সংবাদ শিরোনাম
এখন থেকে প্রতিদিন তিনবার ফুটপাতে অভিযান চলবে-মেয়র আরিফ  » «   মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপির শোভাযাত্রা মঙ্গলবার  » «   নগরীর কাষ্টঘর এলাকা থেকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার  » «   সিলেটে আজ থেকে কার্যকর হলো নতুন সড়ক পরিবহন আইন  » «   কমলগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তরুণীর লাশ উত্তোলন  » «   প্রত্যেক নারীকে অসাম্প্রদায়িক চিন্তা চেতনার হতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   দিরাইয়ে দুইদিন থেকে নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার  » «   ছাতকে পিকআপ ভর্তি ভারতীয় কসমেটিকসহ আটক ৩  » «   সিলেটে চালু হচ্ছে আরও একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়  » «   রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ, আটক ১২  » «   জগন্নাথপুরে মোটর সাইকেল দু্র্ঘটনায় এক প্রবাসীসহ নিহত ২  » «   রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে সোনা জিতলো বাঘিনীরা  » «   বরকে আটকে রেখে অন্য যুবকের সঙ্গে বিয়ে  » «   হবিগঞ্জে দালাল শাহীনের বিরুদ্ধে সৌদিতে নির্যাতিত হুসনার অভিযোগ  » «   গোয়াইনঘাটে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা  » «  

থাইল্যান্ডের কাছে ৩৬ পণ্যে শুল্ক সুবিধা চেয়েছে বাংলাদেশ

16সিলেটপোস্ট রিপোর্ট ::থাইল্যান্ডের কাছে তৈরি পোশাক, ঔষধসহ ৩৬টি পণ্য রফতানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদ।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ঢাকায় সফররত থাইল্যান্ডের ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমিক রিফর্মস বিষয়কমন্ত্রী কোবসাক পুত্রাকুলের নেতৃত্বে থাই প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে থাইল্যান্ডের ১০০টি প্রকল্পে প্রায় ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোনে থাইল্যান্ড বিনিয়োগ করলে একটি স্পেশাল ইকোনমিক জোন বরাদ্দ দেয়া হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ঔষধ শিল্প নগরীতে থাইল্যান্ডের বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করলে রফতানি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার নগদ আর্থিক সহায়তার সুযোগ গ্রহণ করতে পারে।

তোফায়েল আহমদ বলেন, বাংলাদেশ ২০২৪ সালে এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশ থাইল্যান্ডের সঙ্গে এফটিএ করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এ মুহূর্তে থাইল্যান্ড বাংলাদেশকে ৬ হাজার ৯৯৮টি পণ্য রফতানি ক্ষেত্রে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিচ্ছে। গত অর্থবছরে বাংলাদেশ দেশটিতে ৪৮.৫৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রফতানি করেছে। একই সময়ে আমদানি করেছে ৭৮১.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক, ঔষধসহ থাইল্যান্ডে প্রচুর চাহিদা রয়েছে, এমন ৩৬টি পণ্য রফতানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা চাওয়া হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশে থাইল্যান্ডের বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং থাইল্যান্ড ভ্রমণের ক্ষেত্রে ভিসা সহজ করার জন্য আহবান জানানো হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, আশা করা হচ্ছে, আগামী ২০২১ সালে উভয় দেশের বাণিজ্য ২ বিলিয়রনন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যাবে।

এ সময় থাইল্যান্ডের মন্ত্রী বলেন, থাইল্যান্ড বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে আগ্রহী। পর্যটন, ফাইনান্স, ম্যান্যুফেকচারার্সসহ বিভিন্ন সেক্টরে বাণিজ্য করতে আমরা আগ্রহী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক বিশ্বসেরা। আগামীতে থাইল্যান্ড বাংলাদেশের সঙ্গে আরও ঘনিষ্টভাবে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীস বসু, বাংলাদেশে নিযুক্ত থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত বেনোয়েট প্রিফনটেইন, থাইল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম, থাইল্যান্ডের ডেলিগেশন সদস্য এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.