সংবাদ শিরোনাম
এখন থেকে প্রতিদিন তিনবার ফুটপাতে অভিযান চলবে-মেয়র আরিফ  » «   মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপির শোভাযাত্রা মঙ্গলবার  » «   নগরীর কাষ্টঘর এলাকা থেকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার  » «   সিলেটে আজ থেকে কার্যকর হলো নতুন সড়ক পরিবহন আইন  » «   কমলগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তরুণীর লাশ উত্তোলন  » «   প্রত্যেক নারীকে অসাম্প্রদায়িক চিন্তা চেতনার হতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   দিরাইয়ে দুইদিন থেকে নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার  » «   ছাতকে পিকআপ ভর্তি ভারতীয় কসমেটিকসহ আটক ৩  » «   সিলেটে চালু হচ্ছে আরও একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়  » «   রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ, আটক ১২  » «   জগন্নাথপুরে মোটর সাইকেল দু্র্ঘটনায় এক প্রবাসীসহ নিহত ২  » «   রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে সোনা জিতলো বাঘিনীরা  » «   বরকে আটকে রেখে অন্য যুবকের সঙ্গে বিয়ে  » «   হবিগঞ্জে দালাল শাহীনের বিরুদ্ধে সৌদিতে নির্যাতিত হুসনার অভিযোগ  » «   গোয়াইনঘাটে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা  » «  

মুমিন যখন দাজ্জালের মুখোমুখি হবে

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::সহীহ মুসলিমে হযরত আবূ সাঈদ খুদরী (রা.) হতে বর্ণিত হাদিসে এসেছে, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, “দাজ্জালের আবির্ভাব হলে ইমানদারদের মধ্য হতে একজন তার দিকে অগ্রসর হবে। (পথিমধ্যে) দাজ্জালের সশস্ত্র প্রহরীদের সাথে তার দেখা হবে। তারা তাকে জিজ্ঞাসা করবে, ‘কোন্ দিকে যাওয়ার ইচ্ছা করেছো?’ সে উত্তরে বলবে, ‘যে ব্যক্তির আবির্ভাব ঘটেছে, তার কাছে যেতে চাচ্ছি।’ তারা তাকে বলবে, ‘তুমি কি আমাদের প্রভুর প্রতি বিশ্বাস স্থাপন কর না?’ সে উত্তর দেবে, ‘আমাদের প্রভু (আল্লাহ তো) গুপ্ত নন যে, (অন্য কাউকে প্রভু বানিয়ে মানবো)।’

এ জবাব শুনে তারা বলবে, ‘একে হত্যা করে ফেলো।’ তখন তারা নিজেদের মধ্যে একে অপরকে বলবে, ‘তোমাদের প্রভু কি তোমাদেরকে নিষেধ করেননি যে, তোমরা তার অনুমতি ছাড়া কাউকে হত্যা করবে না?’ ফলে তারা ঐ মুমিন ব্যক্তিকে ধরে দাজ্জালের কাছে নিয়ে যাবে।

যখন সেই মুমিন ব্যক্তি দাজ্জালকে দেখতে পাবে, (স্বতঃস্ফূর্তভাবে) বলে উঠবে, ‘হে লোক সকল! এই সেই দাজ্জাল, যার সম্পর্কে আল্লাহর রসূল (সা.) আলোচনা করতেন।’ তখন দাজ্জাল তার জন্য আদেশ দেবে যে, ‘ওকে উপুড় করে শোয়ানো হোক।’ তারপর বলবে, ‘ওকে ধরে ওর মুখে-মাথায় প্রচন্ডভাবে আঘাত করো।’ সুতরাং তাকে মেরে মেরে তার পেট ও পিঠ চওড়া করে দেওয়া হবে। এরপর দাজ্জাল প্রশ্ন করবে, ‘তুমি আমার প্রতি বিশ্বাস রাখো?’ সে উত্তর দিবে, ‘তুই তো মহা মিথ্যাবাদী মসীহ।’ সুতরাং তার সম্পর্কে আবার আদেশ দেওয়া হবে, ফলে তার মাথার সিঁথির উপর করাত রেখে তাকে দ্বিখন্ড করে দেওয়া হবে; এমনকি তার পা-দুটোকে আলাদা করে দেওয়া হবে। তারপর দাজ্জাল তার দেহ খন্ডদ্বয়ের মাঝখানে হাঁটতে থাকবে এবং বলবে, ‘উঠ।’ মুমিন ব্যক্তি উঠে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে যাবে! দাজ্জাল আবার তাকে প্রশ্ন করবে, ‘তুমি কি আমার প্রতি ঈমান এনেছো?’ সে জবাব দেবে, ‘তোর সম্পর্কে তো আমার ধারণা আরও দৃঢ় হয়ে গেল।’

তারপর মুমিন ব্যক্তি বলবে, ‘হে লোক সকল! আমার পরে ও অন্য কারো সাথে এরূপ (নির্মম) আচরণ করতে পারবে না।’ সুতরাং দাজ্জাল তাকে যবেহ করার মানসে ধরবে। কিন্তু আল্লাহ তার ঘাড় থেকে কণ্ঠাস্থি পর্যন্ত তামায় পরিণত করে দেবেন। ফলে দাজ্জাল তাকে যবেহ করার কোন উপায় খুঁজে পাবে না। তারপর তার হাত-পা ধরে ছুঁড়ে ফেলে দেবে। তখন লোকে ধারণা করবে যে, সে তাকে আগুনে নিক্ষেপ করল। কিন্তু (বাস্তবে) তাকে জান্নাতে নিক্ষেপ করা হবে।” অতঃপর রাসূলুল্লাহ (সা.) বললেন, “বিশ্বচরাচরের পালনকর্তার নিকট ঐ ব্যক্তিই সবার চেয়ে বড় শহীদ।”

(সহীহ বুখারী : ১৮৮১, ৭১২৪, ৭১৩৪, ৭৪৭৩; সহীহ মুসলিম ২৯৪৩; সুনানে তিরমিযী : ২২৪২; মুসনাদে আহমাদ : ১১৮৩৫, ১২৫৭৪, ১২৬৭৬, ১২৭৩২, ১২৯৮০, ১৩০৮৩, ১৩৫৩৫)

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.