সংবাদ শিরোনাম
নবীগঞ্জে অপহরণ ও মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ  » «   ওসমানীনগরে স্বামীকে খুনের পর স্ত্রীকেও খুনের চেষ্টা চালায় ঘাতকরা গ্রেপ্তার ৩, পলাতক ২  » «   বিক্রি হয়ে যেতে পারে মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্স  » «   নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী আবেগাপ্লুত জাসিন্দা আর্ডেন  » «   যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত  » «   স্মার্টকার্ড বিতরণ নিয়ে অবৈধ ব্যবসা বন্ধে ইসির নির্দেশনা  » «   ‘ওসমানীনগরে বৃদ্ধ আনিছ উল্যাহকে অর্থের লোভে খুন করা হয়’  » «   অধিকাংশের মতামতে গণভবনে গিয়েছিলাম: নূর  » «   হত্যাযজ্ঞ থেকে বেঁচে ফেরা ওমরের ভয়ংকর বর্ণনা  » «   সারাদেশে সড়কে ১১ জনের মৃত্যু  » «   এলিজা কার্সন, মঙ্গলের বুকে হারিয়ে যাবে যে মেয়ে  » «   ‍শিক্ষার্থীদের আন্দোলন স্থগিত, আবারো শুরু আগামীকাল  » «   ওমানে ফ্রি ভিসার শ্রমিকদের ব্যাপকভাবে ধরপাকড়  » «   এক সময় বাটি চালান দিয়েও বিএনপি পাওয়া যাবে না’  » «   বিয়ের তারিখ নির্ধারণে শুভ-অশুভ দিন দেখা কুসংস্কার  » «  

‘ভয়’ দেখাতে গিয়ে বাবাকে মেরে ফেলল ছেলে

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ফেনীর ছাগলনাইয়ায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আবুল কালাম (৫২) হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, নিহতের ছেলে আবুল হাসান ও তার বন্ধুরা মিলেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। শুক্রবার মধ্যরাতে পুলিশের কাছে এই হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দেন ছেলে হাসান।

নিহত আবুল কালামের বাড়ি পশ্চিম মধুগ্রামে।

হাসান জানান, তার বাবা আবুল কালাম পরিবারের সদস্যদের প্রায় নির্যাতন করতেন। এই জন্য ভয় দেখাতে লাঠি দিয়ে হাল্কা আঘাত করেন। এতে তার বাবার মৃত্যু হয়।

তিনি জানান, এত হাল্কা আঘাতে তার বাবার মৃত্যু হবে সেটা ভাবতে পারেননি।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে সেপটিক ট্যাংক থেকে আবুল কালামের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ওইদিনই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্ত্রী রেখা আক্তার ও ছেলে হাসানকে আটক করে পুলিশ। পরে হাসানের আরেক বন্ধু রহিম উদ্দিনকে আটক করা হয়।

বৃহস্পতিবার রাতেই নিহত কালামের ছোট বোন জরিনা আখতার বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় পুলিশ হাসান ও তার বন্ধুকে গ্রেফতার দেখিয়েছে।

মামলার বাদী জরিনা আখতার জানান, ৪ জানুয়ারি রাতে নিখোঁজ হন তার ভাই। গত বৃহস্পতিবার ঘরের পাশে দুর্গন্ধ পান তিনি। পুলিশ সেপটিক ট্যাংক থেকে তার ভাইয়ের লাশ উদ্ধার করে।

তিনি জানান, তার ভাই আবুল কালাম অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য (কুক) ছিলেন। তিনি তিনটি বিয়ে করেছেন। প্রথম স্ত্রীর সাথে সম্পর্ক বিচ্ছেদ হওয়ায় রেখা আক্তারকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এছাড়া ঢাকায় এক গার্মেন্টকর্মীকে বিয়ে করেন।

বাদী জানান, বর্তমানে দ্বিতীয় স্ত্রী রেখার সাথে বাড়িতে বসবাস করতেন তার ভাই। গত দু’বছর আগে তার ভাই স্ট্রোক করার পর থেকে স্বাভাবিক আচরণ করতেন না। রাতে ঠিকমতো ঘুমাতেন না।

তিনি জানান, গত শুক্রবার মাগরিবের নামাজের পর থেকে তার ভাই নিখোঁজ হন। নিখোঁজের দিন দুপুরে তার ভাবী তিনি ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যান।

ছাগলনাইয়া থানার ওসি এমএম মোরশেদ জানান, নিহতের ছোট বোন জরিনা আক্তার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে একটি হত্যা মামলা করেছেন। এই মামলায় নিহতের ছেলে আবুল হাসান ও তার বন্ধু রহিম উদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.