সংবাদ শিরোনাম
বিশ্বনাথে দেয়াল নির্মাণকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে প্রবাসীসহ আহত ১১  » «   নগরীর মহাজনপট্টিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১  » «   মাছ ধরার জেরে মামা-ভাগ্নের ঝগড়ায় প্রাণ গেলো অনিকের  » «   হবিগঞ্জের বাহুবলে দুই অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী নিহত  » «   বিশ্ববাসীকে জেগে উঠার আহ্বান ইমরানের  » «   সৌদি আরবে চালু তাৎক্ষণিক লেবার ভিসা সার্ভিস  » «   যাত্রা শুরু হলো ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ গাঙচিলের  » «   মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১  » «   ‘একজন রোহিঙ্গাও ফেরত যেতে রাজি হয়নি’  » «   মোদির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ করবে পিটিআই  » «   বিএনপিকে ধ্বংসের চক্রান্ত করছে সরকার: রিজভী  » «   ‘২১শে আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমান’  » «   ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুন  » «   প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিয়ে ঢাকা ছাড়লেন জয়শঙ্কর  » «   ট্রেনের বগিতে ছাত্রীর লাশ ! ধর্ষণের পর হত্যা  » «  

কিছু বদঅভ্যাস, যা জনসমক্ষে করা উচিত নয়

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::আপনার প্রতিদিনের কিছু ব্যক্তিগত অভ্যাস, জনসমক্ষে করাটা মোটেও উচিত নয়। এ প্রতিবেদনে সে ধরনের ৯টি বদঅভ্যাস তুলে ধরা হলো, যা আপনার ব্যক্তিগতভাবে পালন করা উচিত।

ট্রায়াল রুমের বাইরে পোশাক পরিধান: কোনো পোশাকের দোকানে পোশাক পরিধানের সময় কিছু নিয়ম আপনার অনুসরণ করা উচিত। সোয়েটার, কোট বা শালের চাদর আপনি ট্রায়াল রুমে না গিয়েও পরে দেখতে পারেন। কিন্তু ভেতরে পরিধানযোগ্য পোশাক যদি আপনি ট্রায়াল রুমের বাইরে প্রকাশ্যে পরিধান করেন তাহলে সেটা অন্যকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলবে। যে মাপের পোশাক আপনার ফিট হবে সে মাপের পোশাক নিয়েই ট্রায়াল রুমে যান। বারবার ট্রায়াল রুমে গেলে দোকানদারও প্রচণ্ড বিরক্ত হতে পারেন।

প্রকাশ্যে অন্তর্বাস ঠিক করা: আপনার পোশাক আপনার ব্যক্তিত্বের পরিচয় বহন করে এবং তা সঠিক অবস্থানে রাখার দায়িত্ব আপনার। প্রকাশ্যে মানুষজনের সামনে অন্তর্বাস ঠিক করা কখনোই কাম্য নয়। আপনি নিশ্চয় চাইবেন না যে, আপনার অন্তর্বাস ঠিক করার সময় কেউ তাকিয়ে থাকুক। আপনার অন্তর্বাসের কোনো অংশ যদি অল্প পরিমাণে ঠিক করে নেওয়ার প্রয়োজন হয়, সেটাও গোপনে করা উচিত। আপনি নিকটস্থ কোনো বাথরুমে গিয়ে কাজটা সেরে ফেলতে পারেন। তারপর আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে সবার সামনে যান, এতে আপনার ব্যক্তিত্বের উৎকর্ষ প্রকাশ পাবে।

নখে নেইল পলিশ লাগানো

দেখা গেল, আপনি কোনো কাজে বের হচ্ছেন এবং আপনার হাতে সময় কম। খেয়াল করলেন আপনার নখের নেইল পলিশ উঠে আছে। আপনি কি করলেন? পথিমধ্যে কোথাও বসে প্রকাশ্যে নখে নেইল পলিশ লাগাতে শুরু করলেন। কিন্তু বোতল খোলার আগে এটা জানা গুরুত্বপূর্ণ যে, নেইল পলিশের গন্ধ অনেকে সহ্য করতে পারেন না। তাছাড়া নখে নেইল পলিশ লাগানো আপনার ব্যক্তিগত সাজগোজের একটি অংশ যা জনসমক্ষে করা উচিত নয়। নেইল পলিশের গন্ধ পাশের কারো জন্য বিরক্তিকর হতে পারে।

যেখানে সেখানে ভ্যানিটি ব্যাগ রাখা: একবার চিন্তা করুন তো, সারাদিনে বিভিন্ন জায়গায় চলাফেরার সময় আপনার ভ্যানিটি ব্যাগ আপনি কত নোংরা জায়গায় রাখেন। কোনো দোকানের মেঝে থেকে শুরু করে ব্যাগ রাখার উপযুক্ত নয় এমন অনেক জায়গায় অনেককে ভ্যানিটি ব্যাগ রাখতে দেখা যায়। আপনার ব্যাগের তলদেশ নানানরকম জীবাণুতে ভরপুর থাকে এবং আপনি অবশ্যই তা বাড়িতে বয়ে নিয়ে যেতে চাইবেন না। আপনার ভ্যানিটি ব্যাগ চেয়ার বা হুকের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখুন অথবা কোনো নির্দিষ্ট জায়গায় রাখুন। এতে করে আপনি আপনার নিজের জন্য একটি সুস্থ পরিবেশ তৈরি করে নিতে পারবেন।

বাথরুম বাদে যেখানে সেখানে চুল আঁচড়ানো: গণবাথরুম বা ব্যক্তিগত বাথরুম যেটাই হোক না কেনো সেখানে চুল আঁচড়ালে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু বাথরুমের বাইরে যেখানে সেখানে চুল আঁচড়ানো ঠিক নয়। আপনি যতই সচেতন হোন না কেন চুল আঁচড়ালে মাথা থেকে ঝরে যাওয়া চুল বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে যায়। মানুষজনের মাঝে প্রকাশ্যে এই কাজ করলে অনেকেই বিরক্ত হতে পারেন। আপনি যদি এই কাজ একেবারেই এড়াতে না পারেন তাহলে কেউ আশেপাশে না থাকলে করুন। কেননা প্রকাশ্যে চুল আঁচড়ালে অনেকসময় তা বাতাসে উড়ে গিয়ে মানুষের মুখে ঢুকে যায় যা খুবই বিদঘুটে একটা ব্যাপার।

প্রকাশ্যে নখ কাটা: সাজসজ্জার যে কাজে আপনার ডিএনএ শরীর থেকে বের হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তা বাড়িতে বসে করা উচিত। নখ কাটা থেকে শুরু করে চোখের অতিরিক্ত ভ্রূ তুলে ফেলার কাজ ব্যক্তিগত পরিবেশে সম্পন্ন করাই ভালো। দেখা গেল, আপনি কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজে বের হয়েছেন কিন্তু আপনার অতিরিক্ত কিছু ভ্রূ তোলা দরকার বা নখ কেটে পরিপাটি হওয়া দরকার। অনেকেই প্রকাশ্যে এমন কাজ শুরু করে দেন যা খুবই উদ্ভট দেখায়। আপনার প্রয়োজনে আপনি একটি বাথরুম খুঁজে নিন এবং ইচ্ছামতো নিজেকে পরিপাটি করে নিন। এই কাজগুলো প্রকাশ্যে করবেন না। শুধু শুধু মানুষের বিরক্তির কারণ কেনো হবেন।

বিমানে ভ্রমণের সময় মলত্যাগ: বিমানে ভ্রমণ করা বেশ চাপের একটি কাজ এবং এ সময় আপনার বেশ কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা অতীব প্রয়োজনীয়। বিমানে থাকা অবস্থায় আপনার মলত্যাগের প্রয়োজন হলে টয়লেটে ব্যবহারের উপযোগী সুগন্ধি সঙ্গে রাখুন। আপনার শারীরিক প্রয়োজনে আপনি বিমানের টয়লেট ব্যবহার করতেই পারেন কিন্তু তা যদি অসুস্থ পরিবেশ তৈরি করে ফেলে তাহলে সেটা খুবই বাজে দেখায়। আপনি মলত্যাগের পর সুগন্ধি ব্যবহার করলে আপনার মলের দুর্গন্ধ আপনি এড়াতে পারবেন। আপনার পরে কেউ টয়লেটে গেলে সে যেন আপনার কারণে বিরক্ত না হয় সে দায়িত্ব আপনারই।

প্রকাশ্যে নাক খোচানো: মানুষজনের সামনে হাত দিয়ে নাক খোচানো খুবই বাজে একটি অভ্যাস। আপনার খুব প্রয়োজন হয়ে থাকলে সরাসরি হাত না লাগিয়ে টিস্যু ব্যবহার করুন। একেবারে হাত দিয়ে নাক খোচানো খুবই বিদঘুটে দেখায় যা প্রকাশ্যে করা উচিত নয়। এটা আপনার ব্যক্তিত্বের চরম হানি ঘটাবে।

পুনরায় মেকআপ করা: প্রকাশ্যে যেকোনো প্রকার সাজার সামগ্রী ব্যবহার করা আরেক বাজে অভ্যাস যা অনেকেই হরহামেশা করে থাকেন। আপনি আপনার সাজসজ্জার কাজ বাড়িতে করুন, বাইরে প্রয়োজন পড়লে বাথরুম ব্যবহার করুন। কিন্তু প্রকাশ্যে সাজগোজ আপনার চারপাশের মানুষকে যথেষ্ট বিরক্ত করতে পারে। সাধারণত লিপস্টিক বা ছোটখাট কিছু প্রকাশ্যে ব্যবহার করা যায় কিন্তু পাউডার বা চোখের কাজল বা অন্যান্য সামগ্রী প্রকাশ্যে ব্যবহার না করাই উত্তম।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.