সংবাদ শিরোনাম
যুক্তরাষ্ট্রে মৃত মানব শরীর কম্পোস্ট করে তৈরি হবে জৈব সার  » «   বিমান বাহিনীর প্রধান হিসেবে নারীকে মনোনয়ন দিলেন ট্রাম্প  » «   ফল ঘোষণার আগেই পাঁচ বছরের পরিকল্পনা স্থির মোদির  » «   রাজধানীতে কোনও ছিনতাইকারী নেই : আছাদুজ্জামান মিয়া  » «   বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ॥ ধর্ষক গ্রেফতার  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন  » «   বদলে গেল কিলোগ্রাম মাপার প্রতীক  » «   মার্কিন সুপারস্ট্রার সেলেনার বিয়ে এই ‘বুড়ো’র সঙ্গে!  » «   বশেমুরবিপ্রবি’র ৯ শিক্ষার্থীকে আড়াই লাখ টাকা অনুদান  » «   নতুন টাকার নোট বিনিময় কার্যক্রম শুরু  » «   বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপজ্জনক ক্রিকেটার জস বাটলার  » «   কানাইঘাটে পাওনা টাকার জের ধরে ধারালো চাকুর আঘাতে গুরুতর আহত মাইক্রোচালকের মৃত্যু  » «   ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফেলে যাওয়া সেই নবজাতককে নিলেন পুলিশ দম্পতি  » «   সিলেট নগরীতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান-জরিমানা  » «   ঈদের আগে সিলেটে ফিটনেসবিহীন বাসের বিরুদ্ধে অভিযানে পুলিশ  » «  

দিনের বেলার হালকা ঘুমে সুস্থ থাকা যায়

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::দিনের বেলার একটুখানি ঘুম নতুন করে কাজের প্রাণশক্তি এনে দিতে পারে। গবেষণায় উঠে এসেছে, নিয়মিত ২০ মিনিটের ন্যাপ হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে দিতে পারে।

গ্রীসের একটি হাসপাতালের গবেষণা অনুসারে মাথা ঠেকিয়ে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে পারলে ব্লাড প্রেসার বা রক্তচাপ কমে। বয়স্ক মানুষদের ওপর গবেষণাটি চালানো হলেও, দিনের কোনো একটি সময় চোখ বন্ধ করে ঝটিকা একটু ঘুমিয়ে নিতে পারলে উপকার পাবে যে কোনো বয়সী মানুষ।

গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করা কার্ডিওলজিস্ট মানোলিস কালিস্ট্রাটোস বলেন, দিনের বেলার খুব সহজেই অল্প সময়ের জন্য ঘুমিয়ে নেওয়া যায়। এর জন্য সাধারণত কোনো খরচও নেই। গবেষণার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে বলতে পারি, যদি কেউ নিয়মিত দিনের বেলা ঘুমানোর অভ্যাস বজায় রাখতে পারে তাহলে তা উচ্চ রক্তচাপের জন্য উপকার করবে। তার এই গবেষণায় দেখা গেছে, দিনের বেলা ২০ মিনিটের ঘুম গড়ে যে পরিমাণ রক্তচাপ কমিয়ে দিতে পারে তা স্বল্প মাত্রার ওষুধ নিয়ে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের মতো। সুতরাং, আমাদের সবারই সম্ভবত দিনের বেলা কোনো একসময় ভালোমতো একটু ঘুমিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে হবে।

 

 

অনেকেরই দুপুরের খাওয়ার পর ঝিমুনি ভাবের সৃষ্টি হয়। কেউ কেউ মনে করেন, মধ্যাহ্নভোজের কারণেই এই ঝিমুনি হয়। কিন্তু গবেষকরা জানিয়েছেন, ঝিমুনি ভাবের জন্য দায়ী মূলত হাজার বছর আগের পূর্ব-পুরুষদের অভ্যাস। দুপুরে খাওয়ার পর এই ঝিমুনি আমাদের ডিএনএতে প্রবাহিত।

দ্য স্পি স্কুলে ক্লিনিকাল ডিরেক্টর ডক্টর গাই মিডোস বলেন, মানুষের সারকাডিয়ান রিদম হচ্ছে ২৪ ঘন্টার দেহ-ঘড়ি। যখন কেউ কাজে থাকে কিংবা স্কুলে থাকে সব সময়ই সুইচ চালু থাকে। কিন্তু ন্যাপ নেওয়ার পর অন্যদিকের সুইচ চালু হয়ে যায়। এবং সেটা বিশ্রাম ও পরিপাক মুডে চলে যায়।

মিটার মিডোস বলেন, বাড়িতে থাকলে ২০ মিনিটের এই ছোট ঘুম নেওয়াটা খুব সহজ। কিন্তু বাড়ির বাইরে কিংবা কর্মক্ষেত্রে থাকলে এই অবসর বের করাটা কিছুটা ঝামেলার। গবেষকদের পরামর্শ বাড়ির বাইরে থাকলেও যে কোনো উপায়ে একটু নিরিবিলি জায়গা খুঁজে বিশ্রাম নিতে পারলে তা দারুণ শারীরিক সুফল এনে দেবে।-বিবিসি

 

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.