সংবাদ শিরোনাম
যুক্তরাষ্ট্রে মৃত মানব শরীর কম্পোস্ট করে তৈরি হবে জৈব সার  » «   বিমান বাহিনীর প্রধান হিসেবে নারীকে মনোনয়ন দিলেন ট্রাম্প  » «   ফল ঘোষণার আগেই পাঁচ বছরের পরিকল্পনা স্থির মোদির  » «   রাজধানীতে কোনও ছিনতাইকারী নেই : আছাদুজ্জামান মিয়া  » «   বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ॥ ধর্ষক গ্রেফতার  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন  » «   বদলে গেল কিলোগ্রাম মাপার প্রতীক  » «   মার্কিন সুপারস্ট্রার সেলেনার বিয়ে এই ‘বুড়ো’র সঙ্গে!  » «   বশেমুরবিপ্রবি’র ৯ শিক্ষার্থীকে আড়াই লাখ টাকা অনুদান  » «   নতুন টাকার নোট বিনিময় কার্যক্রম শুরু  » «   বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপজ্জনক ক্রিকেটার জস বাটলার  » «   কানাইঘাটে পাওনা টাকার জের ধরে ধারালো চাকুর আঘাতে গুরুতর আহত মাইক্রোচালকের মৃত্যু  » «   ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফেলে যাওয়া সেই নবজাতককে নিলেন পুলিশ দম্পতি  » «   সিলেট নগরীতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান-জরিমানা  » «   ঈদের আগে সিলেটে ফিটনেসবিহীন বাসের বিরুদ্ধে অভিযানে পুলিশ  » «  

পিপিপি’র আওতায় আধুনিকায়ন হচ্ছে সিলেট পর্যটন মোটেল

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::পিপিপি’র মাধ্যমে সিলেটের পর্যটন মোটেলকে আধুনিকায়নের মাধ্যমে ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ট্যুরিজম কমপ্লেক্স হিসেবে গড়ে তোলা হবে। বর্তমানে এখানে প্রায় ২৮ একর জমি রয়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের ৪৫ বছরের জন্য লীজ দেওয়া হবে। অন্তত একশ কোটি টাকা বিনিয়োগে সক্ষম উদ্যোক্তাদের এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য দরপত্র আহবান করা হচ্ছে। এখানে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ নিরাপদ থাকবে এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারের পক্ষ থেকে সবধরণের সহযোগিতা করবে কর্তৃপক্ষ।’

বৃহস্পতিবার সিলেট চেম্বারের কনফারেন্স হলে আয়োজিত ‘স্টেকহোল্ডার কনসালটেশন ওয়ার্কশপ অন পিপিপি প্রজেক্ট্স ইন ট্যুরিজম সেক্টর’ শীর্ষক কর্মশালায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পিপিপি কর্তৃপক্ষের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত সচিব) মুহাম্মদ আলকামা সিদ্দিকী এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশ সরকারের পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন ও দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

মুহাম্মদ আলকামা সিদ্দিকী আরও বলেন, ‘পর্যটনকে প্রধানমন্ত্রী নিজে ধারণ করেন বলেই এসব বাস্তবায়নে নিজের কার্যালয়ের অধীনে রেখেছেন পিপিপি কর্তৃপক্ষকে। সরকারের একার পক্ষে সব কর্মসূচী বাস্তবায়ন সম্ভব নয় বলেই বেসরকারী উদ্যোক্তা ও বিনিয়োগকারীদের এগিয়ে আসতে হবে। ২০১৫ সালে পিপিপি আইন করা হয়েছে বিনিয়োগকে সুরক্ষিত করার জন্য। পিপিপি’র আওতায় মৌলভীবাজারে অবসর নামে একটি প্রকল্প প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে গড়ে তোলা হচ্ছে। প্রবাসীদের আহবানেই প্রবীণদের নিরাপদ আবাসনস্থল হিসেবে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘সিলেট চেম্বার উদ্যোগ নিলে পিপিপি’র মাধ্যমে সিলেটে অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সহজ হবে। সরকার তাদেরকে সবধরণের সহযোগিতা করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পিপিপি কর্তৃপক্ষ বিনিয়োগ করবেনা তবে উদ্যোক্তাদের সবধরণের সহযোগিতা দেবে। তিনি সিলেটকে দেশের অন্যতম আধ্যাত্মিক ও পর্যটন এলাকা উল্লেখ করে এখানে বিনিয়োগের জন্য দেশী-বিদেশী উদ্যোক্তাদের আহবান জানান। তিনি ট্যুরিজম ওয়েব পোর্টাল চালু করে সিলেট অঞ্চলের সব পর্যটন এলাকার বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

সিলেটের জেলা প্রশাসক এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এতে আলোচকরা সিলেটকে ভূস্বর্গ উল্লেখ করে বলেন, ‘দেশী-বিদেশী বিনিয়োগকারীরা পর্যটন ক্ষেত্রে এগিয়ে আসলে পুরো দেশের চিত্র বদলে যাবে। সিলেটের সৌন্দর্য্য বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা সম্ভব হবে। বিশেষ করে সিলেটে পর্যটনের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে, যেখানে বিনিয়োগও হবে লাভজনক।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিপিপি কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক মোঃ আবুল বাসার। কর্মশালার বিষয়বস্তু তুলে ধরেন পিপিপি কর্তৃপক্ষের পরিচালক মিরানা মাহরুখ এবং মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পিপিপি কর্তৃপক্ষের পরামর্শক মোঃ মোর্শেদ হায়দার।

কর্মশালায় আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের ম্যানেজার প্ল্যানিং মোঃ নুরুল ইসলাম, সিলেট চেম্বারের সহ সভাপতি মোঃ এমদাদ হোসেন, পরিচালক ফালাহ উদ্দিন আলী আহমদ, সিলেট উইমেন চেম্বারের সভাপতি স্বর্ণলতা রায়, কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী, অধ্যাপক শফিকুর রহমান, মোঃ আব্দুল হান্নান, ইছমত হানিফা, হুমায়ুন কবির চৌধুরী, রুহুল আমিন প্রমুখ।

কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবির, সিলেট চেম্বারের পরিচালক মোঃ সাহিদুর রহমান, আমিরুজ্জামান চৌধুরী, এহতেশামুল হক চৌধুরী, মুকির হোসেন চৌধুরী, আব্দুর রহমান, চন্দন সাহা, মুজিবুর রহমান মিন্টু, সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের সহ সভাপতি হুরায়রা ইফতার হোসেন। এছাড়াও সিলেট বিভাগের বিভিন্ন রিসোর্ট, হোটেল ও মোটেলের প্রতিনিধিবৃন্দ, পর্যটন খাতের উদ্যোক্তাবৃন্দ, সরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ, সিলেট চেম্বারের সদস্যবৃন্দ, এবং প্রেস ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.