সংবাদ শিরোনাম
ভোলাগঞ্জের খাগাইল নামক স্থানে ট্রাক-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২  » «   নিজের মামলায় ফেসে কারাগারে শামীমা স্বাদীন  » «   টাকার ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়ে রাব্বানীর ফোনালাপ ফাঁস  » «   পুলিশকে জনবান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী  » «   দ্রুত উইকেট পতনে কঠিন চাপে বাংলাদেশ  » «   ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে কাজ করবে জয়-লেখক  » «   মন্ত্রিত্ব গেলে আবার সাংবাদিকতায় আসব: ওবায়দুল কাদের  » «   ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জয়-সা. সম্পাদক লেখক  » «   ছাত্রলীগ থেকে সরিয়ে দেয়া হলো শোভন-রাব্বানীকে  » «   ছাত্রদলের নেতারা নিজেরাই মামলা করে সম্মেলন বন্ধ করেছে  » «   শোভন-রাব্বানীর ভাগ্য নির্ধারণ আজ  » «   সংবাদপত্রকর্মীদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণা  » «   আদালতে ফয়সালা করেই ছাত্রদলের কাউন্সিল : দুদু  » «   জনগণের আস্থা, বিশ্বাস ধরে রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  » «   স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন  » «  

সুনামগঞ্জের বিভিন্ন সীমান্তপথে ভারত থেকে আসা প্রায় ৩ কোটি টাকার কয়লা ও চুনাপাথর জব্দ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::সুনামগঞ্জের তাহিরপুরসহ বিভিন্ন সীমান্তপথে বিনাশুল্কে ভারত থেকে চোরাচালানের মাধ্যমে নিয়ে আসা সোয়া ৩ লাখ কেজি ভারতীয় কয়লা ও সাড়ে ৩ হাজার ঘনফুট চুনাপাথর জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বাংলাদেশ (বিজিবি)।

জব্দকৃত কয়লা ও চুনাপাথরসহ চোরাই মালামালের মূল্য প্রায় ৩ কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল মাকসুদুল আলম জানান, জেলার তাহিরপুরসহ বিভিন্ন সীমান্ত পথে বিনাশুল্কে চোরাচালানের মাধ্যমে ভারত থেকে নিয়ে আসা ২০১৮ সালের ১ অক্টোবর থেকে চলতি বছর ২০১৯ সালের ১০ এপ্রিল বুধবার পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে প্রায় ৩ লাখ ১৬ হাজার ৯২০ কেজি কয়লা জব্দ করা হয়। একই সময়ে ৩ হাজার ৪০৯ ঘনফুট চুনাপাথর জব্দ করা হয়।

জেলার তাহিরপুর সীমান্তের লাউড়েরগড়, চাঁনপুর, টেকেরঘাট, বালিয়াঘাট, চারাগাও ও বীরেন্দ্রনগর বিওপির বিজিবির আওতাভুক্ত সীমান্ত পথ ব্যবহার করে চোরাচালানের মাধ্যমে একাধিক চোরাচালানী চক্র ওই সব কয়লা ও চুনাপাথর নিয়ে আসে।

জব্দকৃত এসব কয়লা চুনাপাথরসহ চোরাই মালামালের মূল্য প্রায় ২ কোটি ৯৪ লাখ ৯৯ হাজার ৪২৩ টাকা।

তিনি আরও বলেন, চোরাচালানের মাধ্যমে নিয়ে আসা কয়লা-চুনাপাথরসহ জব্দকৃত চোরাই মালামালের বিপরীতে ওই সময়ে বিজিবির পক্ষ থেকে ৪৪৩টি মামলা দায়ের করা হয়।

মামলাগুলোর মধ্যে চোরাই মালামালের মালিকসহ ২৪টি ও মালিকবিহীন অবস্থায় ৪১৯টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এসব মামলায় তাৎক্ষণিক সময়ে ১৬ জন আসামিকে আটকের পর থানা পুলিশের মাধ্যমে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এছাড়াও ওই সব মামলায় এখনো পলাতক রয়েছে ১৫ জন আসামি।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.