সংবাদ শিরোনাম
ভোলাগঞ্জের খাগাইল নামক স্থানে ট্রাক-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২  » «   নিজের মামলায় ফেসে কারাগারে শামীমা স্বাদীন  » «   টাকার ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়ে রাব্বানীর ফোনালাপ ফাঁস  » «   পুলিশকে জনবান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী  » «   দ্রুত উইকেট পতনে কঠিন চাপে বাংলাদেশ  » «   ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে কাজ করবে জয়-লেখক  » «   মন্ত্রিত্ব গেলে আবার সাংবাদিকতায় আসব: ওবায়দুল কাদের  » «   ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জয়-সা. সম্পাদক লেখক  » «   ছাত্রলীগ থেকে সরিয়ে দেয়া হলো শোভন-রাব্বানীকে  » «   ছাত্রদলের নেতারা নিজেরাই মামলা করে সম্মেলন বন্ধ করেছে  » «   শোভন-রাব্বানীর ভাগ্য নির্ধারণ আজ  » «   সংবাদপত্রকর্মীদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণা  » «   আদালতে ফয়সালা করেই ছাত্রদলের কাউন্সিল : দুদু  » «   জনগণের আস্থা, বিশ্বাস ধরে রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  » «   স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন  » «  

মামলার আসামী নিপু ও সাইদুল গং প্রকাশ্য চলাফেরা করতেছে পুলিশ গ্রেফতার করছেনা-আনাস হক

আসামী সাইদুল

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী হামলাসহ বাসার মালামাল লুটপাঠের ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলায় বালুচর এলাকার ত্রাস হিরন মাহমুদ নিপুর সহযোগী গিয়াসকে গ্রেফতার করলে ও অন্য আসামীরা প্রকাশ্য চলাফেরা করতেছে।এছাড়া নিপুসহ তার সহযোগীদের গ্রেফতার করছে না পুলিশ এমন দাবী করেন মামলার বাদী পক্ষ।শাহপরান থানার পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৬শে মার্চ রাত অনুমান ১০টার দিকে হিরন মাহমুদ নিপুর নেতৃত্বে ১১/১২ জনের একটি সঙ্গবদ্ধ দল দেশি বিদেশী অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বালুচর এলাকার রহমান প্যালেসের বাসিন্ধা বদরুল হকের ছেলে আনাস হকের বাসায় গিয়ে মোটা অংকের টাকা চাঁদা দাবী করে। এসময় চাঁদা না পেয়ে সন্ত্রাসীরা বাসার লোকজনের উপর হামলা করে নগদ টাকাসহ প্রায় ৫০ হাজার টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় বাসার একাধিক বাসিন্ধা আহত হন। তারা সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা নিলেও এ ঘটনায় শাহপরাণ থানার পুলিশ মামলা গ্রহন না করায় আনাস হক (২৫) বাদী হয়ে হিরন মাহমুদ নিপুসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে গত ২/৪/২০১৯ ইং সিলেট সিলেট মেট্টোপলিটন ম্যাজিষ্টেট ১ম আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন । মামলা নং ০৩(৪)১৯ । পরে আদালতের নির্দেশে ৬/৪/২০১৯ ইং শাহপরাণ থানা মামলাটি এফআইআর করে। শাহপরান থানার মামলা নং ৬(৬)২০১৯ইং। উক্ত মামলার একজন আসামী গ্রেফতার করলে ও ঐ আসামী আদালতের মাধ্যমে ছাড়া পায়। মামলার বাদী আনাস হক জানান,আমি মামলা করার কারনে ১০ নং আসামী গিয়াস জেল থেকে বের হয়ে সে তার ভাই এবং হিরন মাহমুদ নিপু ও সাইদুল ইসলাম বাহার সহ তাদের সাথে থাকা সব সন্ত্রাসী মিলে আমাকে প্রানে মারার হুমকি দিচ্ছে। আমি এসব অবস্হা দেখে নিজের ও পরিবারের সবার প্রান বাচানোর জন্য শাহপরান থানায় গিয়ে আবার ও একটি জিডি করি যার নং ৫০১। বর্তমান অবস্হায় আমার জানের নিরাপত্তা নাই,সাথে আমার পরিবার ও চিন্তায় আছেন কখন যে কি হবে। ওরা খুব খারাপ প্রকৃতির লোক যে কোনু সময় দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে। তাছাড়া ওরা ওয়ারেন্টের আসামী থাকা স্বত্বে ও প্রকাশ্য দিবালোকে ঘুরাফেরা করতেছে,পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করতেছেনা বলে জানান আনাস হক। এদিকে মামলার প্রধান আসামী হিরন মাহমুদ নিপু ও তার প্রধান সহযোগী সাইদুল ইসলাম বাহার সহ অন্য আসামীরা প্রকাশ্য রাস্তায় চলাফেরা করতেছে বলে দাবী করেন বাদী পক্ষ। এ ব্যাপারে শাহপরান থানার অফিসার ইনচার্জ আখতার হোসেন জানান,এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বাকি সব আসামীদের গ্রেফতার করার জন্য চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.