সংবাদ শিরোনাম
জগন্নাথপুরে হাওর থেকে এক অঞ্জাতনামা ব্যক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ১ ব্যক্তি: মোট ১০, সুস্থ ৬, আইসোলেশনে ৪  » «   দোয়ারাবাজারে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ১০  » «   সিলেটে দক্ষিণ সুরমায় দু’দল বাস শ্রমিকের মধ্যে দেড় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষ  » «   করোন:এক দিনে ৯৩ জন আক্রান্ত সিলেট বিভাগে:মোট ১০৪০ জন  » «   ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডুবিতে নিহত ৩৬: এ মামলার প্রধান আসামি রফিকুল গ্রেফতার  » «   সিলেট থেকে বাস চলাচল শুরু  » «   ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ঔষধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   সুনামগঞ্জে চেয়ারম্যানের অপসারনের দাবীতে অভিযোগ দায়ের  » «   সুনামগঞ্জে র‍্যাব ক্যাম্পের ১৬ জন সদস্যসহ মোট ২১ জন করোনায় আক্রান্ত  » «   জগন্নাথপুরে মানসিক রোগী দীর্ঘ এক বছর পর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফিরে পেল পরিবার  » «   রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ১৯-২০ বছরের উন্মুক্ত বাজেট পেশ  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরেক জন  » «   জগন্নাথপুরে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা জরিমানা আদায়  » «   গোয়াইনঘাটে এসএসসিতে পাশের হার ৭৯.২৭ জিপিএ ৪৫ জন  » «  

আফ্রিদিকে পাল্টা তোপ মিঁয়াদাদের

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::‘আত্মজীবনী ‘গেম চেঞ্জার’-এ একের পর এক বোমা ফাটিয়েছেন শহীদ আফ্রিদি। নিজের বয়স নিয়ে গোমর ফাঁস, কথা বলেছেন ২০১০ সালের স্পট ফিক্সিং নিয়ে। সামালোচনা করেছেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের। সেই তালিকায় ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর যেমন আছেন। তেমনি আছেন স্বদেশি ওয়াকার ইউনুস ও জাভেদ মিঁয়াদাদও।

 

এর মধ্যে আফ্রিদির সমালোচনার বেশ ঝাঁঝালো জবাব দিয়েছেন গম্ভীর। ক্রিকেট মাঠেও দুইজনের সম্পর্ক ছিল সাপে-নেউলের মতো। আফ্রিদির সমালোচনার জবাবে গম্ভীর তাকে মানসিক ডাক্তারের কাছে নেওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়েছিলেন। সমালোচনার উত্তর দিয়েছেন মিঁয়াদাদও।

১৯৯৯ সালে চেন্নাই টেস্টে পাকিস্তানের কোচ ছিলেন মিঁয়াদাদ। ওই ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪১ রানের ইনিংস খেলে পাকিস্তানের জয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন আফ্রিদি। সেই টেস্টের প্রসঙ্গ তুলে আত্মজীবনীতে আফ্রিদি লিখেছেন, ‘আমার ব্যাপারে মিঁয়াদাদের নেতিবাচক ধারণা ছিল। ব্যাটিং করতে নামার আগের দিনও সে আমাকে নেট অনুশীলন করতে দেয়নি। তাই আমাকে আলাদা করে অনুশীলন করতে হয়েছিল।’

আফ্রিদি আরো লিখেছেন, ‘সেদিন থেকেই তার ওপর থেকে আমার সব সম্মান উঠে গিয়েছে। সে হয়তো খেলাটার কিংবদন্তিদের একজন, বাস্তবে ছোট একজন মানুষ।’

আফ্রিদির এমন সমালোচনার কড়া জবাব দিয়েছেন মিঁয়াদাদ। আফ্রিদির এমন আচরণ দুঃখজনক জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘সে পুরো বদল গেছে। পাকিস্তান ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত সবার দৃষ্টিতেই তার আচরণ দুঃখজনক। বইটা লিখেছে সে টাকা কামানোর জন্য।’

মিঁয়াদাদের দাবি, আফ্রিদিকে তিনি সবসময় সমর্থন ও উৎসাহ দিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.