সংবাদ শিরোনাম
১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারির ফল প্রকাশ  » «   চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব রদবদল  » «   কৃষক বাঁচাতে চাল আমদানি বন্ধ হচ্ছে  » «   জঙ্গী-সন্ত্রাস ও মাদকের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে দেশবাসীর দোয়া চাইলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   আগামী ২৮ মে সরকারি চাকুরেদের বেতন-ভাতা  » «   যৌনহয়রানি রোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘অভিযোগ বক্স’ বসানোর নির্দেশ  » «   চুরি করে অন্য দেশের অধিবাসী,দায় পরে বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঘাড়ে  » «   মেয়েকে বাঁচাতে দিনমজুর বাবার আবেদন  » «   প্রথম সন্তানের জন্ম দিলেই মায়েরা পাবেন নগদ টাকা  » «   মানুষের চোখে ৫৭৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা শক্তি!  » «   মৃত্যুর কথা আগাম টের পান যে তরুণী!  » «   আবারও প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মোদি, বুথফেরত জরিপ  » «   পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরপারে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী মায়া ঘোষ  » «   কুলাউড়ায় প্রতিপক্ষের ওপর হামলা,দুই নারীসহ আহত ৩  » «   সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালত চত্বর থেকে ভূয়া আইনজীবী আটক  » «  

আফ্রিদিকে পাল্টা তোপ মিঁয়াদাদের

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::‘আত্মজীবনী ‘গেম চেঞ্জার’-এ একের পর এক বোমা ফাটিয়েছেন শহীদ আফ্রিদি। নিজের বয়স নিয়ে গোমর ফাঁস, কথা বলেছেন ২০১০ সালের স্পট ফিক্সিং নিয়ে। সামালোচনা করেছেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের। সেই তালিকায় ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর যেমন আছেন। তেমনি আছেন স্বদেশি ওয়াকার ইউনুস ও জাভেদ মিঁয়াদাদও।

 

এর মধ্যে আফ্রিদির সমালোচনার বেশ ঝাঁঝালো জবাব দিয়েছেন গম্ভীর। ক্রিকেট মাঠেও দুইজনের সম্পর্ক ছিল সাপে-নেউলের মতো। আফ্রিদির সমালোচনার জবাবে গম্ভীর তাকে মানসিক ডাক্তারের কাছে নেওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়েছিলেন। সমালোচনার উত্তর দিয়েছেন মিঁয়াদাদও।

১৯৯৯ সালে চেন্নাই টেস্টে পাকিস্তানের কোচ ছিলেন মিঁয়াদাদ। ওই ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪১ রানের ইনিংস খেলে পাকিস্তানের জয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন আফ্রিদি। সেই টেস্টের প্রসঙ্গ তুলে আত্মজীবনীতে আফ্রিদি লিখেছেন, ‘আমার ব্যাপারে মিঁয়াদাদের নেতিবাচক ধারণা ছিল। ব্যাটিং করতে নামার আগের দিনও সে আমাকে নেট অনুশীলন করতে দেয়নি। তাই আমাকে আলাদা করে অনুশীলন করতে হয়েছিল।’

আফ্রিদি আরো লিখেছেন, ‘সেদিন থেকেই তার ওপর থেকে আমার সব সম্মান উঠে গিয়েছে। সে হয়তো খেলাটার কিংবদন্তিদের একজন, বাস্তবে ছোট একজন মানুষ।’

আফ্রিদির এমন সমালোচনার কড়া জবাব দিয়েছেন মিঁয়াদাদ। আফ্রিদির এমন আচরণ দুঃখজনক জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘সে পুরো বদল গেছে। পাকিস্তান ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত সবার দৃষ্টিতেই তার আচরণ দুঃখজনক। বইটা লিখেছে সে টাকা কামানোর জন্য।’

মিঁয়াদাদের দাবি, আফ্রিদিকে তিনি সবসময় সমর্থন ও উৎসাহ দিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.