সংবাদ শিরোনাম
১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারির ফল প্রকাশ  » «   চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব রদবদল  » «   কৃষক বাঁচাতে চাল আমদানি বন্ধ হচ্ছে  » «   জঙ্গী-সন্ত্রাস ও মাদকের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে দেশবাসীর দোয়া চাইলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   আগামী ২৮ মে সরকারি চাকুরেদের বেতন-ভাতা  » «   যৌনহয়রানি রোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘অভিযোগ বক্স’ বসানোর নির্দেশ  » «   চুরি করে অন্য দেশের অধিবাসী,দায় পরে বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঘাড়ে  » «   মেয়েকে বাঁচাতে দিনমজুর বাবার আবেদন  » «   প্রথম সন্তানের জন্ম দিলেই মায়েরা পাবেন নগদ টাকা  » «   মানুষের চোখে ৫৭৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা শক্তি!  » «   মৃত্যুর কথা আগাম টের পান যে তরুণী!  » «   আবারও প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মোদি, বুথফেরত জরিপ  » «   পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরপারে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী মায়া ঘোষ  » «   কুলাউড়ায় প্রতিপক্ষের ওপর হামলা,দুই নারীসহ আহত ৩  » «   সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালত চত্বর থেকে ভূয়া আইনজীবী আটক  » «  

মধ্যপ্রাচ্যে কেন বোমারু বিমান পাঠালো যুক্তরাষ্ট্র?

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ইরানকে সতর্ক করতে এবার মধ্যপ্রাচ্যে কয়েকটি বি-৫২ বোমারু বিমান পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানায়, ইরানের কথিত হুমকির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে এসব যুদ্ধবিমান বৃহস্পতিবার কাতারে অবস্থিত একটি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে পাঠানো হয়েছে।

আগে মঙ্গলবার মার্কিন সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থানরত মার্কিন সৈন্যদের সহায়তায় সেখানে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হবে। এরই অংশ হিসেবে এসব বোমারু বিমান পাঠানো হচ্ছে।

মধ্যপ্রাচ্যে ইরান মার্কিন সৈন্যদের প্রতি ‘পরিষ্কার’ হুমকি হিসেবে দেখা দিয়েছে বলে দাবি করছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসন।

এর আগে মধ্যপ্রাচ্যে একই উদ্দেশ্যে একটি যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী পাঠিয়েছে।

ইরান যুক্তরাষ্ট্রের এসব সেনা মোতায়েনকে ‘মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ’র কৌশল হিসেবে অভিহিত করেছে।

গত বছর ইরান ও পরাশক্তিগুলোর মধ্যে স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তি থেকে একতরফাভাবে সরে গিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। এর পরও সেটি মেনে চলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ইরান ও চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী অন্যান্য দেশগুলো।

কিন্তু, সম্প্রতি ইরান জানিয়েছে, তারা ওই চুক্তির কয়েকটি ‘স্বতঃস্ফূর্ত শর্ত’ আর মেনে চলবে না। তবে এতে পরমাণু অস্ত্র চুক্তির লঙ্ঘনও হবে না বলে জানিয়েছে তারা।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসন পরমাণু চুক্তি বাতিলের পর দেশটির ওপর কঠোর অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করেছে।

ইরানের অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি তেল রফতানি বন্ধ করে দেশটিকে চাপের মুখে ফেলার উদ্দেশে এই অবরোধ দেয়া হয়েছে।

তেল কেনার ওপর নিষেধাজ্ঞা থেকে কয়েকটি দেশকে ছয় মাসের জন্য অব্যাহতি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু, ১ মে সেটাও বন্ধ করে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, কেউ ইরানের তেল কিনলে সে দেশের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.