সংবাদ শিরোনাম
বাঁচা মরা তো আল্লাহর হাতে:আমার স্ত্রীর অবস্থা খুবই খারাপ-মানবতার ফেরিওয়ালা মাকসুদুল  » «   এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল আজ  » «   কোমা থেকে জাগলেন করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ পাইলট  » «   করোনা প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের আরও সম্পৃক্তির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর  » «   লিবিয়ায় নিহতদের মরদেহ বাংলাদেশে আনা যাবে না  » «   জগন্নাথপুরে জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল  » «   সুনামগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের হামলা আহত ২-থানায় অভিযোগ  » «   জগন্নাথপুরে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এক নারী চিকিৎসক  » «   দক্ষিণ সুনামগঞ্জে করোনার নমুনা সংগ্রহের বুথ স্থাপন  » «   সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে ট্রলি চাপায় এক শিশুর মৃত্যু  » «   এবার ছেলের বাবা হলেন আশরাফুল  » «   মেসিকে কাটিয়ে সবচেয়ে বেশি আয় ফেদেরারের  » «   কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে যুক্তরাষ্ট্রে তুলকালাম  » «   কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা: অভিযুক্ত সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে ডিভোর্স দিচ্ছেন স্ত্রী  » «   ছেলেকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা  » «  

ছাত্রলীগ নেতার ধর্ষণের হুমকি,সিলেটে ইন্টার্ন চিকিসৎকদের কর্মবিরতি

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ইন্টার্ন নারী চিকিৎসককে ছাত্রলীগ নেতার ধর্ষণের হুমকি ও লাঞ্ছনার ঘটনার প্রতিবাদে কর্মবিরতিতে নেমেছেন সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২ টা থেকে চিকিৎসকরা সেবা কার্যক্রম বন্ধ রেখে কলেজের মূল ফটকে অবস্থান নিয়ে মানববন্ধনও করেন তারা। এ সময় ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি সম্বলিত বিভিন্ন শ্লোগান লেখা প্লেকার্ডও প্রদর্শন করেন তারা।

এ বিষয়ে সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের ডা. মো. ইশফাক জামান জানান, ‘সিলেটের সবকটা মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তাদের আন্দোলনে একাত্মতা পোষণ করেছেন। এমনকি বিএমএ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তাদের আলোচনা চলছে। আগামীকাল রোববার সবাই সম্মিলিতভাবে আন্দোলনে নামবেন ‘

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে শিক্ষানবিশ নারী চিকিৎসককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজের পাশাপাশি অস্ত্র উঁচিয়ে হত্যা এবং ধর্ষণের হুমকি দেন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সারোয়ার হোসেন।

এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে। পাশাপাশি লাঞ্ছনার শিকার ওই চিকিৎসক ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দেন। এ ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়। এছাড়া ওইদিন রাতে চিকিৎসকরা আন্দোলনে নামেন। পরে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে তারা আন্দোলন থেকে সরে আসে।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান, বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে। পুলিশ ঘটনা পর্যবেক্ষণ করছে। পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ দিলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পুলিশ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.