সংবাদ শিরোনাম
বাংলাদেশে মুসলিমরা নির্যাতিত হিন্দুদের আশ্রয় দেয় : তসলিমা নাসরিন  » «   আদর্শ শিক্ষক জাতি গঠনের কারিগর: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী  » «   দিনের অনশনে অসুস্থ ৫১ শিক্ষার্থী  » «   বিদ্যুতের বাড়তি দাম মেনে নিতে বললেন ওবায়দুল কাদের  » «   বিয়ে করেই শাস্তির মুখে সৌম্য সরকার  » «   ভিডিও দেখতে চাপ, পর্নোগ্রাফিতে স্ত্রী’কেই দেখে তাজ্জ্বব স্বামী  » «   ওসমানীনগরে অগ্নিকাণ্ডে দুই লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে ছাঁই  » «   দিল্লিতে মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ  » «   স্পেনের চার শহরে করোনাভাইরাস: বাংলাদেশিদের জন্য দূতাবাসের নির্দেশনা  » «   মোদীকে বাংলাদেশে আসতে দেওয়া হবেনা:সিলেটে জমিয়তের নেতৃবৃন্দ  » «   সিলেটে বাংলাবিদ ২০২০ বাছাইপর্বে পনেরশো ছাত্রছাত্রীর অংশগ্রহণ  » «   দিল্লি সহিংসতা: নিহত বেড়ে ৩৮  » «   বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পেছনে যেসব যুক্তি দিল এনার্জি কমিশন  » «   মুজিববর্ষে বাংলার মাটিতে মোদিকে দেখতে চায় না মানুষ : আল্লামা শফী  » «   আরেক দফা বাড়ছে বিদ্যুতের দাম, ঘোষণা বিকালে  » «  

প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগে সংশোধিত সূচি প্রকাশ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে লিখিত পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি প্রকাশ করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ এর পরীক্ষা চার ধাপে নিতে বৃহস্পতিবার (১৬ই মে) সংশোধিত তারিখ এবং কোন ধাপে কোন কোন জেলার পরীক্ষা হবে তা প্রকাশ করা হয়েছে। তিন পার্বত্য জেলা বাদে ৬১ জেলার ২৪ লাখ ১ হাজার ৯১৯ জন প্রার্থী ১৩ হাজার পদের বিপরীতে এই পরীক্ষায় অংশ নেবেন বলে জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। পূর্বের সূচি অনুযায়ী, ২৪শে মে, ৩১শে মে, ১৪ই জুন এবং ২১শে জুন সকাল ১০টায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। নতুন সূচি অনুযায়ী, প্রথম ধাপে ২৪শে মে এবং দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ৩১শে মে-ই নেওয়া হবে। তবে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা ২১শে জুন এবং চতুর্থ ধাপের পরীক্ষা হবে ২৮শে জুন। এর আগে গত ১৭শে মে থেকে এই পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও ওই দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা থাকায় এই নিয়োগ পরীক্ষা পিছিয়ে দেয়া হয়। সহকারী শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেতে গত বছরের ১লা থেকে ৩০শে অগাস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করেন প্রার্থীরা। গত কয়েক বছর ধরে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন পরীক্ষার দিন সকালে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ছাপিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্তভাবে নিয়োগের জন্য মনোনীত করা হবে। বর্তমানে দেশের ৬৩ হাজার ৬০১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ লাখ ২২ হাজার ৭৬৬ জন শিক্ষক কর্মরত আছেন বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.