সংবাদ শিরোনাম
লকডাউনে হেয়ার কাট, জরিমানা দিতে হল নয় লাখ টাকা!  » «   নিষিদ্ধ হচ্ছে পুলিশের হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরা  » «   ট্রাম্পকে হারাতে নির্বাচনী লড়াইয়ে মনোনয়ন পেলেন বাইডেন  » «   মার্কিন তরুণীকে পাকিস্তানি মন্ত্রীর ধর্ষণ, হাত তোলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   যুক্তরাজ্যে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরাতে দ্বিতীয় বিশেষ ফ্লাইট  » «   অসুস্থ মাকে হাসপাতালের গেটে ফেলে ছেলে উধাও  » «   নাসিমের অবস্থা সংকটাপন্ন, মেডিকেল বোর্ড গঠন  » «   রবিবার থেকে নতুন নিয়মে লকডাউন  » «   ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করেছে স্বেচ্ছাসেবক টিম  » «   ছাতকে সরকারী চাল চুরির ঘটনায় ৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের-আটক ১   » «   জগন্নাথপুরে ৩ দিন ধরে ১৩ বছরের ছেলে নিখোঁজ: সন্ধান পেতে সাহায্য কামনা  » «   ছাতকে করোনা আক্রান্ত হয়ে আরো এক জনের মৃত্যু ,এ নিয়ে মোট ৩  » «   গোয়াইনঘাটে একই পরিবারের চারজন ও পুলিশ সদস্যসহ আক্রান্ত ১০  » «   সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় হাওরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে নিহত ১, আহত ১  » «   ন্যাপ সভাপতিসহ তামাবিল দিয়ে দেশে ফিরলেন আরও ১০ বাংলাদেশি  » «  

চলছে জাতীয় জুনিয়র দাবা চ্যাম্পিয়নশীপ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::দাবা ফেডারেশনের আয়োজনে চলছে জাতীয় জুনিয়র অনুর্ধ্ব-২০ চ্যাম্পিয়নশীপ। 
এ টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়নরা অংশ নেয়ার সুযোগ পাবেন এশিয়ান জুনিয়র ও বিশ্ব জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে। যেখানে লাল-সবুজের প্রতিনিধিত্ব করে দেশের জন্য সাফল্য বয়ে আনতে চায় ফাহাদ-সুব্রত-নওশীনরা।
সম্ভাবনাময় খুদে এ দাবাড়ুরা বিশ্ব মঞ্চে সামর্থ্যের সেরাটা দিতে পারবে বলে মনে করেন গ্র্যান্ডমাস্টার এনামুল হোসেন রাজীব।
এছাড়া তৃনমূল থেকে দাবাড়ু তুলে এনে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণের কথা জানিয়েছেন ফেডারেশনের কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ।
বুদ্ধি, মেধা আর মননের খেলা দাবা। তাইতো দাবাড়ুদের খেলার চাল দিতে এতো গভীর ভাবনা। নিজের সৈন্য-সামন্ত, হাতি, ঘোড়া, কিস্তি নিয়ে প্রতিপক্ষের রক্ষণ ব্যুহ ভাঙ্গতে আপ্রাণ চেষ্টায় একেকজন।
দাবা ফেডারেশনের আয়োজনে জাতীয় জুনিয়র অনূর্ধ্ব-২০ চ্যাম্পিয়নশীপ চলছে। ১৫ থেকে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতায় দেড়শ দাবাড়ু অংশ নিয়েছে। যেখানে ওপেন ও বালিকা বিভাগের দুটি ইভেন্টের চ্যাম্পিয়নরা সুযোগ পাবেন জুনে ইন্দোনেশিয়া অনুষ্ঠিত এশিয়ান জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশীপে।
এছাড়া চ্যাম্পিয়ন দাবাড়ুরা অক্টোবরে দিল্লীতে বিশ্ব জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপেও খেলার সুযোগ পাবেন।
তাইতো জাতীয় পর্যায়ে ট্রফি জিতে, বিশ্ব অঙ্গনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার লক্ষ্য ফাহাদ,সুব্রত,মননের মতো রেটিংধারী দাবাড়ুদের সামনে।
দাবাড়ুরা বলছেন, ওয়ার্ল্ড গেমে সাধারণত হাই লেভেলের খেলোয়াড়রা থাকে। তবে গ্যাং মাস্টাররা আমাদের শেখাচ্ছেন এটা ভালো।
ফাহাদ-সুব্রতদের মতো নওশিন জান্নাতুলরাও জাতীয় পর্যায়ে সেরা পারফর্ম করে আন্তর্জাতিক সার্কিটে দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনতে প্রত্যয়ী।
দাবাড়ুরা বলছেন, সামনে ভালো খেলবো। গ্রান্ড মাস্টার হয়ে দেশের মুখ উজ্জল করবো।
এ ধরণের প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ভবিষ্যতের দাবাড়ুরা রেটিং বাড়িয়ে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে পারবে। এমনটই মনে করেন গ্র্যান্ডমাস্টার এনামুল হোসেন রাজীব।
গ্র্যান্ডমাস্টার এনামুল হোসেন রাজীব বলেন, যদিও ওয়ার্ল্ড জুনিয়র অনেক শক্তিশালী একটি প্রতিযোগিতা। ধরে নেয়া হয়, এটাতে যারা চ্যাম্পিয়ন হয় তারা পরে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন হয়।
এতসব স্বপ্নের মাঝেও রয়েছে কিছু অপ্রতুলতা। দাবা ফেডারেশনের নিজস্ব ভবন না থাকায় এক রকম ঘিঞ্জি কক্ষেই চলছে প্রতিযোগিতা। তবে এর জন্য সরকারি আর্থিক সহায়তার দাবি ফেডারেশনের।
দাবা ফেডারেশনের রেটিং কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ বলেন, আমাদের আর্থিক সঙ্কট আছে। আগামীতে আমরা ভালো করতে পারবো। তবে সবই নির্ভর করে অর্থ প্রাপ্তির ওপর।
দাবা বোর্ডের হাতি ঘোড়ার পালে নয়,বরং ফেডারেশনের হাত ধরেই দেশে বিশ্ব মানের দাবাড়ু উঠে আসবে, এমনটাই আশা সবার।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.