সংবাদ শিরোনাম
কুলাউড়ায় কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ-প্রেমিক জেলহাজতে  » «   কমলগঞ্জে পানিতে পড়ে প্রতিবন্ধী যুবকের মৃত্যু  » «   সিলেটে ডিবি পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ!  » «   কমলগঞ্জে ইয়াবা ট্যাবলেটসহ দুইজন আটক  » «   আজ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর জন্মদিন সিলেটে আসছেন তিনি  » «   বিশ্বনাথে দেয়াল নির্মাণকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে প্রবাসীসহ আহত ১১  » «   নগরীর মহাজনপট্টিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১  » «   মাছ ধরার জেরে মামা-ভাগ্নের ঝগড়ায় প্রাণ গেলো অনিকের  » «   হবিগঞ্জের বাহুবলে দুই অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী নিহত  » «   বিশ্ববাসীকে জেগে উঠার আহ্বান ইমরানের  » «   সৌদি আরবে চালু তাৎক্ষণিক লেবার ভিসা সার্ভিস  » «   যাত্রা শুরু হলো ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ গাঙচিলের  » «   মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১  » «   ‘একজন রোহিঙ্গাও ফেরত যেতে রাজি হয়নি’  » «   মোদির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ করবে পিটিআই  » «  

বান্ধবীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অন্তঃসত্ত্বা করলেন তাহিরপুরের নির্বাহী কর্মকর্তা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::বান্ধবীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অন্তঃসত্ত্বা করে ফেঁসে যাচ্ছেন সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। কিছুদিন আগেই তিনি তাহিরপুর উপজেলায় বদলি হয়ে এসেছেন। ইউএনওর হঠাৎ বদলি যেমনটা রহস্যজনক তেমনি নতুন ক্ষমতায় যোগদান করার পরপরই অভিযোগ উঠেছে ক্ষমতার অপব্যবহারের।

বান্ধবীর সঙ্গে এই অবৈধ সম্পর্ক জানাজানির পর ব্যাপক সমালোচনা চলছে সমগ্র উপজেলাজুড়ে। বিষয়টি প্রশাসন পর্যন্ত গড়ালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশে এই অভিযোগ তদন্ত করে দেখছে জেলা প্রশাসন।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে কর্মরত ওই বান্ধবীর লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত বছরের এপ্রিলে তার পরিচয় হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ ইমতিয়াজের সঙ্গে। ডিভোর্স হয়েছে জানার পর কিছুদিন ফোনালাপ হয় উভয়ের মধ্যে। এরপর এপ্রিলেই তাদের প্রথম সাক্ষাতে উভয়ের বিয়ে নিয়ে কথা হয়। এ সময় আসিফ ডিভোর্স পেপার হাতে পাবার পরদিনই তাকে বিয়ে করবেন বলে আশ্বাস দেন। এই আশ্বাসের প্রেক্ষিতে তিনি আসিফের বোন ও ভগ্নিপতিকে সাক্ষী করার পরই আসিফের সাথে একত্রে থাকতে রাজি হন।

পরে মে মাসের প্রথম সপ্তাহে মিরপুর-৬ নম্বরে একটি বাসা ভাড়া নেন আসিফ। ওই বাসায় আসিফের বোন-ভগ্নিপতির সঙ্গে কথা হয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে কর্মরত এই বান্ধবীর। তাদের সামনেই মে মাসের মধ্যে বিয়ে করবেন বলে পুনরায় প্রতিশ্রুতি দেন আসিফ।

ইউএনও আসিফের বান্ধবী বলেন, চলতি বছরের জানুয়ারিতে অন্তঃসত্ত্বা হন তিনি। আসিফকে জানানোর পরই সে তার সঙ্গে খারাপ আচরণ শুরু করে ও সন্তান নষ্ট করার জন্য চাপ দেয়। এ ঘটনার এক সপ্তাহ পরই সে আমাকে ফেসবুকসহ সব যোগাযোগ মাধ্যমে ব্লক করে দেয়। এক পর্যায়ে চট্টগ্রাম গিয়ে সাক্ষাতের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হওয়ার পর ডিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করি। তাকে সমস্ত ঘটনা খুলে বললে তিনি বিষয়টি দেখার আশ্বাস দেন এবং একজন এডিসিকে দায়িত্ব দেন।

আসিফের বান্ধবী আরও বলেন, এডিসি আসিফের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে আসিফ পুরোপুরি অস্বীকার করেন একইসাথে সব ডকুমেন্ট দেয়ার পর তাকে চট্টগ্রাম থেকে বদলির সুপারিশ করেন। সুপারিশ মতে চলতি বছরের এপ্রিল মাসে তাকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে বদলি করা হয়। এরপর থেকে তার সঙ্গে আমার কোনো যোগাযোগ নেই। জানুয়ারি মাসে তার সঙ্গে আমার শেষ সাক্ষাৎ হয়। এরপর আসিফ অনেকবার দেখা করতে চাইলেও আমি করিনি। এখন পর্যন্ত নানাভাবে সে আমাকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

এ ঘটনায় তাহিরপুর ইউএনও আসিফ ইমতিয়াজকে তার সরকারি ফোন নম্বরে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, আমরা ঘটনাটি শুনেছি এবং ইতোমধ্যে স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালককে বিষয়টি তদন্ত করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.