সংবাদ শিরোনাম
এম. এ. হক যে কোন দুর্যোগ মুহুর্তে জাতির সেবায় নিয়োজিত ছিলেন: এড. আব্দুর রকিব  » «   এম এ হকের প্রথম জানাযা সম্পন্ন  » «   এম. এ. হকের মৃত্যুতে সিলেট মহানগর যুবলীগের শোক  » «   এম. এ. হকের মৃত্যুতে সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের শোক  » «   এম. এ. হকের মৃত্যুতে সিলেট মহানগর বিএনপির শোক  » «   এম এ হকের মৃত্যুতে মিজান চৌধুরীর শোক  » «   মারা গেলেন সিলেট মহানগর বিএনপি’র সাবেক সভাপতি এম এ হক  » «   সমালোচনার মুখে ফেয়ার এন্ড লাভলীর নাম পরিবর্তন করা হলো  » «   ফিরলো কফি হাউসের সেই আড্ডা  » «   করোনা:বাসা ভাড়া না দেওয়াতে ১৩৮ শিক্ষার্থীর সার্টিফিকেট, ল্যাপটপ, ট্রাঙ্ক ডাস্টবিনে  » «   বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ ডুবির ১৩ ঘণ্টাপর জীবিত উদ্ধার হওয়া সুমনের ঘটনা সাজানো নাটক:দাবী ভ্রাম্যমাণ হকারদের  » «   বাজেট প্রত্যাখ্যান বিএনপি’র  » «   তিন দিন ধরে ঘুরছেন ক্যানসার আক্রান্ত রোগী  » «   বাংলাদেশে করোনায় তেমন ক্ষতি করতে পারেনি-পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   বিছনাকান্দি সীমান্তে ভারতীয় খাশিয়ার গুলিতে নিহত ১  » «  

আজ আমার ভাগ্নে, কাল হয়তো আপনার ভাই-সন্তানও হতে পারেঃ: সোহেল তাজ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::চট্টগ্রাম থেকে অপহৃত সৈয়দ ইফতেখার আলম সৌরভকে ফিরে পাওয়ার আকুতি জানিয়েছেন তার মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার বুকের ধনকে জীবিত ও অক্ষত অবস্থায় ফেরত চাই।’ এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপও কামনা করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান। তিনি জানান, ২০১৭ সালে সৌরভ ‘বেঙ্গলি বিউটি’ নামে একটি চলচ্চিত্র তৈরি করেন, যা দেশ-বিদেশে সুনাম কুড়ায়। এ সময় সওদা নামে এক তরুণীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা সংযুক্ত ছিলেন। একপর্যায়ে তরুণী জানান, তিনি ধার্মিক ও পর্দানশিন পরিবারের সদস্য। সম্পর্ক বহাল রাখতে হলে তাকে আপাতত টেলিফোনেই বিয়ে করতে হবে। কিন্তু সৌরভ এতে রাজি হননি। এরপর সওদার বাবা তাকে অন্য পাত্রের সঙ্গে জোর করে বিয়ে দেন। ২০১৮ সালের এপ্রিলে তাদের বিচ্ছেদ ঘটে। এ জন্য সৌরভকে দায়ী করেন সওদার বাবা।

তিনি সৌরভের পরিবারকেও হত্যার হুমকি দেন। নানাভাবে আইন-শৃগ্ধখলা রক্ষাকারী বাহিনীর কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে বা বাসায় গিয়ে সৌরভকে হয়রানি ও মানসিক নির্যাতন করা হয়। সর্বশেষ গত ৯ জুন তাকে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ এলাকায় ডেকে নেওয়া হয়। এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ আছেন।

সংবাদ সম্মেলনে সোহেল তাজ সাংবাদিকদের বলেন, অপহরণের এ ঘটনাত্রক্রম সিনেমাকেও ছাড়িয়ে গেছে। এটা কীভাবে ঘটল, সেটা একটা বিরাট প্রশ্ন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপির সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্রের মূল লক্ষ্যই হচ্ছে ন্যায়বিচার। আশা করব, কেউ যদি আইনবহির্ভূত ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে থাকে, প্রধানমন্ত্রী উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন।’

সোহেল তাজ বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনো মানুষের যেন এমন অবস্থা না হয়। এ রকম আশা করি না। আজ আমার ভাগ্নে, কাল হয়তো আপনার ভাই, আরেকদিন আপনার সন্তান হতে পারে। এটা কারও জন্যই কাম্য নয়। কার কী পরিচয় সেটা মুখ্য বিষয় নয়।’

সওদার পরিবার প্রভাবশালী কি-না? এমন প্রশেুর জবাবে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানান, তারা কাউকে ছোট কিংবা আঘাত করতে আসেননি। শুধু সৌরভকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে এসেছেন।

তিনি বলেন, ‘আপনাদের আগ্রহ থাকলে আপনারা খুঁজে বের করুন।’ তবে সৌরভের মা বলেন, সওদার বাবা সালেহ আজাদ চৌধুরী ব্যবসায়ী। তিনি ঢাকায় থাকেন।

এর আগে ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে সোহেল তাজ বলেছিলেন, এ ঘটনায় কারা জড়িত সেটা তিনি জানেন। এর সূত্র ধরে অপহরণকারীদের পরিচয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন তাদের একটাই লক্ষ্য ছেলেটাকে ফিরে পাওয়া। তার প্রাণ বাঁচাতে হবে।

সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘খবরে এসেছে, সৌরভকে যে মোবাইল ফোন নম্বর থেকে কল করা হয়েছে, সেটি রাষ্ট্রীয় সংস্থার কর্মকর্তার। তবে আমাদের পক্ষে তো কোনো কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব নয়।’

রাষ্ট্রীয় বাহিনীকে ব্যক্তিপর্যায়ের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে কি-না? জানতে চাইলে কোনো উত্তর দেননি সোহেল তাজ।
সুত্রঃ সমকাল

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.