সংবাদ শিরোনাম
এবার সিলেটে পেঁয়াজ,চালের পর বাজারে ঝড় উঠছে লবনের দাম  » «   দেশে মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা দুর্নীতি চলছে: ফখরুল  » «   ওসমানীনগরে সড়ক পারাপারের সময় গাড়ির চাপায় এক শিশু নিহত  » «   পপুলার ইনস্যুরেন্সের এক বিমা কর্মীকে পালাক্রমে ধর্ষণ-থানায় মামলা  » «   সিলেট নগরীর তিনটি স্থানে ৪৫ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি শুরু  » «   ফেসবুকে স্ট্যাটাসে জ্বলে পুড়ে ছাই আন্তর্জাতিক মানব পাচারকারী উজ্জল  » «   ওসমানীনগরে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের সামনে প্রকাশ্যে ধূমপান  » «   প্রধানমন্ত্রীকে মির্জা ফখরুলের চিঠি  » «   স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল, সাধারণ সম্পাদক বাবু  » «   নিখোঁজ ক্রিকেটার গৌতম গাম্ভীর!  » «   রিফাত হত্যা: অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন আজ  » «   বড়লেখায় মুজিব হত্যা: জড়িত একজনের স্বীকারোক্তি  » «   ৫ ডিসেম্বর এক দিনেই হবে সিলেট জেলা ও মহানগর আ. লীগের সম্মেলন  » «   মৌলভীবাজারে তরুণী অপহরণের ঘটনায় মামলা:গ্রেপ্তার ২  » «   গোয়াইনঘাটে শ্বাসরোধ করে এক বৃদ্ধাকে হত্যা-মূল হোতা আটক  » «  

স্বামীর কাছে ৩০ রুপি চেয়ে পেলেন তিন তালাক

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::স্বামী সাবিরের কাছে তার স্ত্রী জয়নব (৩০) চেয়েছিলেন ৩০ রুপি। বিনিময়ে তিনি পেলেন তিন তালাক। সঙ্গে প্রহারও। জয়নবকে উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ অভিযোগে দাদ্রি’তে পুলিশ স্টেশনে একটি মামলা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের নয়ডায়। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।

জয়নবের অপরাধ শনিবার তিনি স্বামী সাবিরে কাছে সবজি কেনার জন্য ৩০ রুপি চেয়েছিলেন। তা নিয়ে তাদের কথা কাটাকাটি হয়।

তিনি আরো জানান, সাবির বিভিন্ন মিলে তেলের কন্টেইনার বিক্রি করতো। তার সঙ্গে জয়নবের বিয়ে হয় ৯ বছর। তাদের দাম্পত্য সম্পর্ক খুব একটা ভাল ছিল না। তাদের রয়েছে চারটি সন্তান। দুই বছর আগে একটি লাঠি দিয়ে জয়নবের মাথায় আঘাত করেছিল সাবির। তা ছাড়া তার শ্বশুর-শাশুড়ি তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করতেন। কয়েকদিন আগে জয়নব অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাই তিনি তাকে নিজের বাড়ি নিয়ে যান। মুরসালিম বলেন, জয়নব আমাদের সঙ্গে ৫ দিন ছিল। শুক্রবার সে দাদ্রি এলাকায় তার শ্বশুরবাড়ি ফিরে যায়। এ সময় সাবির বলে, সে তাকে তালাক দিতে চায়।
এ সব নিয়ে সাবির, নাজ্জো, সাবিরের বোন শামার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সাবিরকে আদালতে তোলার পর সে সেখান থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছে। মুরসালিম বলেন, তাকে সুরাজপুর কোর্টে চালান দেযা উচিত ছিল। এ মামলায় অভিযুক্ত অন্য দুজনকে এখনও ধরতে পারে নি পুলিশ। পুলিশ বলেছে, তারা এ বিষয়টি পারিবারিক আদালতে পাঠাবে। কারণ, এখন তিন তালাক ইস্যুতে গেজেট নোটিফিকেশন দেয়ার মতো কোনো কর্মকর্তা নেই। তবে পুলিশ তিন তালাকের অভিযোগ তদন্ত করছে। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের আগস্টে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট তিন তালাকের বিরুদ্ধে রায় দেন। এমন তালাককে তারা বাতিল, অবৈধ ও অসাংবিধানিক বলে রায়ে বলেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.