সংবাদ শিরোনাম
ওসমানীনগর উপজেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের নিন্দা ও প্রতিবাদ  » «   আফগান পুলিশ সদরদপ্তরে তালিবান হামলায় নিহত ১১  » «   নগরীতে র‌্যাবের অভিযানে ১৭ জুয়াড়ি আটক  » «   জৈন্তাপুরে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ স্ত্রী আটক, স্বামী পলাতক  » «   সুরমা মার্কেটের ১ নং গেটের দু’তলা থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «   সিলেটে ভূমিকম্প অনুভূত” মাত্রা ছিলো ৫.৫  » «   গোয়াইনঘাটে চালককে হত্যা করে মোটর সাইকেল ছিনতাই  » «   জৈন্তাপুরে ২ কেজি গাঁজাসহ আটক ১  » «   কোম্পানীগঞ্জে বজ্রপাতে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু, বাবা আহত  » «   গোলাপগঞ্জের ঢাকা দক্ষিণে ট্রাক-সিএনজির সংঘর্ষে নিহত ১  » «   সুনামগঞ্জে হাওরে মাছ ধর‌তে গিয়ে বজ্রপাতে বাবা-ছে‌লের মৃত্যু  » «   ৫ দিনের রিমান্ডে রিশান ফরাজী  » «   লন্ডনের পথে প্রধানমন্ত্রী  » «   আসামে বন্যায় মৃত ২৭, বিপদসীমার ওপরে ব্রহ্মপুত্র ও শাখা নদী  » «   জাপানে আগুনে নিহত কমপক্ষে ২৩, বহু মানুষ নিখোঁজ  » «  

সিলেট যুবলীগের কমিটি গঠন নিয়ে লবিং তুঙ্গে

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::এক সময় খেই হারিয়ে ফেলেছিলো সিলেট যুবলীগ। নেতৃত্ব দেয়ার মতো নেতা খুঁজে পায়নি। এ কারণে বর্তমান সিলেট জেলা যুবলীগের সভাপতি তাজপুর ডিগ্রি কলেজের সাবেক ভিপি শামীম আহমদকে ৬ নম্বর সহ-সভাপতি থেকে টপকিয়ে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়েছিলো। মহানগরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো আলম খান মুক্তিকে। এই দুই জনের হাত ধরে বর্তমান সময়ে যুবলীগ অনেকটা শক্তিশালী। এ কারণে সিলেট যুবলীগের সম্মেলনকে ঘিরে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। উত্তেজনাও তৈরি হয়েছে। খাদিমপাড়া হয়েছে রণক্ষেত্র।

এছাড়া সভাপতি পদে লবিং চালাচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর ঘনিষ্ঠজন মহানগর যুবলীগের বর্তমান কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান আসাদ। সাধারণ সম্পাদক পদে লড়াইয়ে রয়েছেন- জেলা পরিষদের সদস্য শামীম আহমদ, খাদিমপাড়ার চেয়ারম্যান আফসর আহমদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বাবলা চৌধুরী। তবে সাধারণ সম্পাদক ছাত্রলীগের সাবেক নেতারাই এগিয়ে রয়েছেন। ২০০৫ সালে গঠিত সিলেট মহানগর যুবলীগের কমিটিতে সভাপতি ছিলেন, সৈয়দ শামীম আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন আবদুর রহমান জামিল। পরবর্তীতে শামীম ও জামিল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে অন্তর্ভুক্ত হন। ওই সময় বর্তমান যুগ্ম আহ্বায়ক মুশফিক জায়গীয়দার হাল ধরেছিলেন। পরবর্তীতে মহানগর যুবলীগকে চাঙ্গা করতে ২০১৪ সালে আলম খান মুক্তিকে আহ্বায়ক করে মহানগর আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটি এখন সিলেট মহানগরে কমিটিকে চাঙ্গা করে তুলেছে। একইভাবে জেলায় শামীমের মতো মহানগরে মুক্তিও দুর্দিনের কাণ্ডারি হিসেবে হাল ধরেন। এবার মহানগর যুবলীগের সভাপতি হওয়ার দৌড়ে বেশ এগিয়ে আছেন আলম খান মুক্তি।

কাউন্সিল হলেও মুক্তির পক্ষে যাবে জনরায়। তবে- মুক্তিকে একক ছাড় দিতে নারাজ প্রতিপক্ষ গ্রুপের নেতারা। এই পদে শক্ত অবস্থান নিয়ে লবিং চালাচ্ছেন সিনিয়র যুবলীগ নেতা শান্ত দেব। এর বাইরেও আরো কয়েকজন নতুন মুখ প্রার্থী হওয়ার জন্য লবিং চালাচ্ছেন। সাধারণ সম্পাদক হতে এগিয়ে আছেন সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদার। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন, ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র নেতা জাকিরুল আলম জাকির। চলতি মাসের শেষ দিকে মহানগর যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে- সিলেট জেলা ও মহানগর যুবলীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে গতকাল সিলেটে এসেছেন যুবলীগের সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট বেলাল হোসাইন ও সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক। তারা সম্মেলন সফল করতে বিভিন্ন পর্যায়ে নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.