সংবাদ শিরোনাম
ছাতকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে যুবতীর আত্মহত্যা  » «   জৈন্তাপুর থেকে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   কানাইঘাটে শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় ইমাম গ্রেপ্তার  » «   সুনামগঞ্জে নদী থেকে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার  » «   হুজুরের বেশ ধারণ করে ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার করেছে জৈন্তাপুর থানা পুলিশ  » «   বড়লেখায় ভারতীয় মদসহ একজন গ্রেপ্তার  » «   পিকনিক করতে এসে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে দুর্ঘটনায় ৩ শিক্ষার্থীসহ নিহত ৪  » «   নগরীর চারাদিঘীর পাড় ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে প্রাণ হারালেন পুলিশ কর্মকর্তা  » «   সিলেটে কখন কোথায় ঈদের জামাত-ঈদগাহ মাঠ থেকে দূরে পার্কিং করে রাখার নির্দেশ  » «   কুলাউড়ায় বড় ভাইয়ের দায়ের কোপে ছোট ভাই রাজিব খুন  » «   অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি লুৎফুর রহমানের ঈদ শুভেচ্ছা  » «   এরশাদের কুলখানি সিলেটে ২৩ আগস্ট  » «   বিশ্বনাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মেয়েকে ধর্ষণ ‘মায়ের পরকিয়া প্রেমিকের’!  » «   মাধবপুরের নয়াপাড়া এলাকা থেকে ডাকাতদলের সদস্য গ্রেপ্তার  » «   এলাচের কেজি ৩০০০ টাকা  » «  

এক প্রেমিককে পেতে দুই যুবতীর জোট, একজনের স্বামীকে হত্যা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::এক প্রেমিককে পেতে অদ্ভুত এক জোট গঠন করলেন দুই যুবতী। ভারতের চেন্নাইয়ে গৃহবধূ গায়ত্রী স্বামী নাগরাজ। স্বামীর বন্ধু মেহেরদানের প্রেমে পড়েছিলেন গায়ত্রী। বিষয়টি জানতেন মেহেরদানের স্ত্রী বানুও। স্বামীর এমন পরনারীর প্রতি আসক্তিতে কোনো আপত্তি ছিল না তার। ওদিকে গায়ত্রী-নাগরাজ সম্পর্কের খবর জেনে ফেলেন নাগরাজ। তিনি স্ত্রী গায়ত্রীকে এ সম্পর্ক ছিন্ন করার অনুরোধ করেন। কিন্তু তার স্ত্রী এ পথ থেকে ফেরেন নি।

এতে আরো বলা হয়, বিষয়টি নিয়ে বানুর সঙ্গে পরামর্শ করেন গায়ত্রী। তারা পরিকল্পনা করেন নাগরাজকে খুন করবেন। এ নিয়ে দু’জনে একজোট হন।  গায়ত্রীর সঙ্গে মেহেরদানের সম্পর্ক মেনে নিয়েছিলেন তার স্ত্রী বানু। সোমবার রাত দেড়টা নাগাদ নাগরাজ ও তার সন্তানরা যখন ঘুমাচ্ছিলেন, তখন বানুকে ডেকে পাঠান গায়ত্রী। তারা দু’জনে মিলে নাগরাজের মুখে বালিশ চাপা দিয়ে তাকে খুন করেন। প্রেমিক মেহেরদানের সঙ্গে থাকতে একজোট হলেন এই দুই প্রেমিকা। তাদের মধ্যে একজন অপরজনের সাহায্য নিয়ে খুন করলেন নিজের স্বামীকে।

ঘটনাটি ঘটেছে চেন্নাইয়ের নারকুন্দ্রামে। ২৮ বছর বয়সী অটোচালক নাগরাজ। তাকে খুন করেছে তার স্ত্রী ২৮ বছর বয়সী গায়ত্রী ও তার সমবয়সী বান্ধবী বানু। দু’জনকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, স্ত্রী গায়ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে শক্তিনগরে থাকতেন নাগরাজ। তার বন্ধু ২৭ বছর বয়সী গাড়ির চালক মেহেরদানের সঙ্গে বিবাহবহির্ভুত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন গায়ত্রী। দুজনকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন নাগরাজ। তাদের সম্পর্ক বিচ্ছেদ করতে বললে তাতে রাজি হয়নি মেহেরদান। প্রেমিকের সঙ্গে বিচ্ছেদে রাজি ছিলেন না গায়ত্রী। দুই সন্তানকে নিয়ে বোনের বাড়ি চলে যান তিনি। এরপরই মেহেরদানকে খুনের হুমকি দেন নাগরাজ। গত সপ্তাহে গায়ত্রী ও সন্তানদের বাড়ি ফিরিয়ে আনেন নাগরাজ। তিনি তার বন্ধুদেরও বলেন যে, বেশি বাড়াবাড়ি করলে তিনি মেহেরদানকে খুন করবেন। এতেই আতংকে পড়ে মেহেরদানের স্ত্রী বানুর সঙ্গে মিলে নাগরাজকে খুনের ষড়যন্ত্র করেন গায়ত্রী। সোমবার রাত দেড়টা নাগাদ নাগরাজ ও তার সন্তানরা যখন ঘুমোচ্ছে, তখন বানুকে ডেকে পাঠায় গায়ত্রী। তারা দু জনে মিলে নাগরাজের মুখে বালিশ চাপা দিয়ে তাকে খুন করে। এরপর মৃত্যু নিশ্চিত করতে দোপাট্টা দিয়ে তার শ্বাসরোধও করা হয়। এরপর সকালে যে যার কাজে চলে যায় দুই মহিলা। গায়ত্রীর ভাই বাড়ি ফিরে দেখেন, নাগরাজের দেহ পড়ে রয়েছে। মেহেরদানের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.