সংবাদ শিরোনাম
ছাতকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে যুবতীর আত্মহত্যা  » «   জৈন্তাপুর থেকে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   কানাইঘাটে শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় ইমাম গ্রেপ্তার  » «   সুনামগঞ্জে নদী থেকে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার  » «   হুজুরের বেশ ধারণ করে ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার করেছে জৈন্তাপুর থানা পুলিশ  » «   বড়লেখায় ভারতীয় মদসহ একজন গ্রেপ্তার  » «   পিকনিক করতে এসে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে দুর্ঘটনায় ৩ শিক্ষার্থীসহ নিহত ৪  » «   নগরীর চারাদিঘীর পাড় ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে প্রাণ হারালেন পুলিশ কর্মকর্তা  » «   সিলেটে কখন কোথায় ঈদের জামাত-ঈদগাহ মাঠ থেকে দূরে পার্কিং করে রাখার নির্দেশ  » «   কুলাউড়ায় বড় ভাইয়ের দায়ের কোপে ছোট ভাই রাজিব খুন  » «   অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি লুৎফুর রহমানের ঈদ শুভেচ্ছা  » «   এরশাদের কুলখানি সিলেটে ২৩ আগস্ট  » «   বিশ্বনাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মেয়েকে ধর্ষণ ‘মায়ের পরকিয়া প্রেমিকের’!  » «   মাধবপুরের নয়াপাড়া এলাকা থেকে ডাকাতদলের সদস্য গ্রেপ্তার  » «   এলাচের কেজি ৩০০০ টাকা  » «  

যৌন সম্পর্কের দায়ে যুবক-যুবতীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় শাস্তি

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ইন্দোনেশিয়ার বান্‌দা আচেহ প্রদেশে প্রেমে পড়েছিলেন এক যুবক (১৯) ও এক যুবতী (২২)। সেই প্রেম গাঢ় হতে হতে এমন এক পর্যায়ে যায় যে, তারা যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন। এ বিষয়টি গোপন থাকেনি। এই অভিযোগে, তাদের উভয়কেই একটি স্টেডিয়ামে মঞ্চ স্থাপন করে সেখানে প্রকাশ্যে ১০০ ঘা করে বেত্রাঘাত করা হয়েছে। বিপুল সংখ্যক মানুষের সামনে তাদের বেত্রাঘাত করা হয়। সে সময় ব্যথায় আর্তনাদ করছিলেন ওই যুবতী। তিনি বারবার করুণা ভিক্ষা চাইছিলেন। যুবকটি ছিল সাদা শার্ট পরা।

তাকে এতটাই জোরে বেত্রাঘাত করা হয় যে, তাতে তার ত্বক ফেটে রক্তে রঞ্জিত হয় শার্ট। এখানেই শেষ নয়। তাকে এ অপরাধের জন্য ৫ বছর জেল খাটতে হবে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।
খবরে বলা হয়েছে, যখন বেত্রাঘাত করা হচ্ছিল তখন ২২ বছর বয়সী ওই যুবতী ব্যথায় বার বার মূর্ছা যাচ্ছিলেন। তারপরও তাকে প্রহার করতে থাকেন মুখোশ পরা দণ্ডদাতারা। তিনি করুণা ভিক্ষা চাইলেও শরিয়া কঠোর আইনের অধীনে তার শাস্তি পূর্ণ করা হয়। বান্‌দা আচেহ প্রদেশের লোকসেমাউয়েতে একটি স্টেডিয়ামে এই শাস্তি কার্যকর করা হয়। ব্যবহার করা হয় তেল দিয়ে পাকানো বেতের লাঠি। উল্লেখ্য, বিয়ের আগে এমন যৌন সম্পর্ক স্থাপন ইসলামিক আইনে কঠোর শাস্তিযোগ্য অপরাধ ওই অঞ্চলে। একই রকম শাস্তির বিধান রয়েছে জুয়া ও মদ পানের ক্ষেত্রেও।
ওদিকে মানবাধিকার বিষয়ক গ্রুপগুলো প্রকাশ্যে এভাবে বেত্রাঘাতকে বর্বর শাস্তি বলে অভিহিত করেছে। তারা ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডোডোর কাছে এমন শাস্তি বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে। কিন্তু আচেহ প্রদেশে বসবাস প্রায় ৫০ লাখ মুসলিমের। তারা ধর্মের ভিত্তিতে এমন শাস্তিকে সমর্থন করেন। মার্চে সন্তান ও পরিবারের সামনে প্রকাশ্যে ৫ দম্পতিকে একইভাবে বেত্রাঘাত করা হয়েছে। বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগে গত বছর নভেম্বরে বেত্রাঘাত করা হয়েছে এক নারীকে। তা দেখে উৎসুক জনতা উল্লাস করেছিল। আরেকজন নারীর ক্ষেত্রে একই ঘটনা ঘটেছিল।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.