সংবাদ শিরোনাম
‘ধর্ষিতা কন্যাকে চুপ থাকতে বলেন’ অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী  » «   নিউ জিল্যান্ডে অগ্ন্যুৎপাত ॥ নিহত ১,কয়েকজন নিখোঁজ  » «   বঙ্গবন্ধু বিপিএলে একমাত্র দেশী কোচ সালাউদ্দিন  » «   নারীরা এখন সর্বত্র কাজ করছে ॥ প্রধানমন্ত্রী  » «   ২২ ডিআইজি-অতিরিক্ত ডিআইজি বদলি  » «   এখন থেকে প্রতিদিন তিনবার ফুটপাতে অভিযান চলবে-মেয়র আরিফ  » «   মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপির শোভাযাত্রা মঙ্গলবার  » «   নগরীর কাষ্টঘর এলাকা থেকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার  » «   সিলেটে আজ থেকে কার্যকর হলো নতুন সড়ক পরিবহন আইন  » «   কমলগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তরুণীর লাশ উত্তোলন  » «   প্রত্যেক নারীকে অসাম্প্রদায়িক চিন্তা চেতনার হতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   দিরাইয়ে দুইদিন থেকে নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার  » «   ছাতকে পিকআপ ভর্তি ভারতীয় কসমেটিকসহ আটক ৩  » «   সিলেটে চালু হচ্ছে আরও একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়  » «   রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ, আটক ১২  » «  

প্রবাসে নারীর নরক যন্ত্রণা: বিউটির পায়ে শিকল, পারুল পাগল

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::স্বপ্নের প্রবাসে ভালো নেই আমাদের নারী শ্রমিকেরা। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে নারীরা আছেন নরক যন্ত্রণায়। তবে প্রবাসে কত নারী কর্মী গেলেন সেই সংখ্যাটা পাওয়া গেলেও নিঃস্ব ও রিক্ত হাতে ফিরলেন ক’জন সেই সংখ্যা কখনোই জানা যায় না সঠিকভাবে।
আপন মনে কী যেনো পড়ছেন মানিকগঞ্জের বিউটি আক্তার। দূর থেকে দেখে তাকে মনোযোগী পাঠক মনে হতে পারে, কিন্তু প্রবাস জীবন মানসিক ভারসাম্যহীন করে ফেলেছে বিউটিকে।
ভাগ্য বদলের আশায় ক’বছর আগে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ জর্ডানে গৃহকর্মীর কাজে গিয়েছিলেন তিনি। আগে যিনি ছিলেন সুস্থ, ফেরার পর তাকে লোহার শিকলে বেঁধে রাখতে বাধ্য হচ্ছে পরিবার।
বিদেশ যাবার আগে সুস্থ বিউটি কেনো মানসিক ভারসাম্য হারালেন তা নিয়ে যেমন মাথাব্যথা নেই সরকারের, তেমনি রেমিটেন্স যোদ্ধা বিউটির চিকিৎসায় এগিয়ে আসেনি সরকারের কোনো সংস্থাও।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য রেমিটেন্স অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ তবে তা নিশ্চয়ই মানবাধিকার লঙ্ঘন করে নয়, তাই রাষ্ট্র যেন এইসব মানুষকে রেমিটেন্স মেশিন না মনে করে।
বিউটির স্বজনরা বলছেন, পাগলের সঙ্গে থেকে আমাদের খুব খারাপ লাগে। আর বিউটি বলছেন, যার পায়ে শিকল থাকে সে কী ভালো থাকতে পারে?
মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরেই এমন ঘটনা আরো আছে। সুদিনের আশায় বিউটির মতো গত বছর সৌদি আরবে গিয়েছিলেন পারুলও। ফিরেছেন মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে। পরিবারের দাবি অমানুষিক নির্যাতনের কারণেই পারুলের আজ এই দশা।
পারুল বলেন, স্বামীর সঙ্গে যখন কথা বলি তখন আমার মাথায় আঘাত করেছিল। এক মহিলা এই আঘাত করে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গৃহকর্মীর কাজ নিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে যাওয়া নারীদের বেশিরভাগই নির্যাতনের শিকার। তার উপর একটি ঘটনাতেও বিচারের বা ক্ষতিপূরণ আদায়ের নজির নেই।
ব্রাকের অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান বলেন, আমরা এখনো পর্যন্ত এমন নির্যাতনকারী কারো দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হতে দেখিনি।
কর্তৃপক্ষের মতে গৃহকর্মীর কাজে যাওয়া বিপুল সংখ্যক নারীকর্মীর সকলের খোঁজখবর নেওয়া কষ্টসাধ্য।
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব রৌনক জাহান বলেন, আমাদের প্রেক্ষাপটে বিদেশে গৃহকর্মীদের নিরাপত্তা দেয়া সম্ভব নয়।
১৯৯১ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত বিভিন্ন দেশে নারী কর্মী গেছেন প্রায় সোয়া ৮ লাখ। অনেকেরই মত, গত ৩ বছরে নির্যাতনের শিকার হয়ে দেশে ফিরেছেন অন্তত ৮ হাজার নারী শ্রমিক।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.