সংবাদ শিরোনাম
৬৮ লাখে বিক্রি হলো বাটলারের সেই জার্সি  » «   সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মধু ও কালোজিরায় করোনা থেকে যেভাবে সুস্থ হলাম: গভর্নর  » «   বিশ্বনবীর মিম্বর থেকে করোনা নিয়ে যা বললেন শাইখ সুদাইস  » «   জাফলংয়ে সাড়ে ৮শ’ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  » «   জাফলংয়ে অসহায় মানুষের পাশে ট্যুরিস্ট পুলিশ  » «   নিউইয়র্কে করোনায় বাংলাদেশ সোসাইটির নেতার মৃত্যু  » «   করোনা: আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ও মৃত্যু ৭৪ হাজার ছাড়িয়েছে  » «   শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে এক নারীর মৃত্যু  » «   করোনা ভাইরাস : ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পাইলট এখন ডেলিভারি ভ্যানের চালক  » «   ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আইসিইউতে  » «   করোনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্স আজ  » «   এবার করোনায় আক্রান্ত বাঘ  » «   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘন্টায় আরও ১২০০ জনের মৃত্যু  » «   ছোট অপরাধীদের মুক্তি দিতে চায় সরকার  » «  

প্রেমিকের অপবাদে প্রেমিকার আত্মহত্যা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ফেসবুক মেসেঞ্জারে দ্বাদশ শ্রেণির প্রেমিক রোকনের অপবাদ সইতে না পেরে একাদশ শ্রেণির প্রেমিকা সোনালি গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ সোনালির মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। রোকন ও সোনালি বাগাতিপাড়ার লোকমানপুর কলেজের শিক্ষার্থী। এ ঘটনার পর থেকে রোকন ও তার পরিবারের লোকজন গা ঢাকা দিয়েছে । পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বাগাতিপাড়া উপজেলার পাকা ইউনিয়নের মালিগাছা সাজিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সুমনের মেয়ে জাকিয়া সুলতানা সোনালি লোকমানপুর কলেজের একাদশ শ্রেণির প্রথম বর্ষের ছাত্রী। সে কলেজে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই নানাভাবে সোনালিকে বিরক্ত ও প্রেমের প্রস্তাব দিত রোকন। কলেজে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করায় কলেজে রোকন ও তার বন্ধুদের বিরুদ্ধে একাধিক বিচারও হয় বলে নিশ্চিত করেছেন কলেজের কয়েকজন শিক্ষক। একপর্যায়ে রোকনের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় সোনালির।

কিন্তু নানা কারণেই সোনালিকে সন্দেহ করতো রোকন। এই নিয়ে মাঝে মধ্যেই তাদের মধ্যে মনোমালিন্য ও ঝগড়া হতো। গত রাতে এসব বিষয়ে রোকনের সঙ্গে ফেসবুক মেসেঞ্জারে সোনালিকে নানা ধরনের গালিগালাজ করে। একপর্যায়ে তার বাবাকে তুলে গালি দিলে তাতে সোনালি রোকনকে তার বাবাকে গালি না দিতে অনুরোধ করে। এরপরও নানা ধরনের চরিত্রহীন বলে অপবাদ দেয় রোকন। সোনালি মেসেজ দেয় আমাকে খারাপ মেয়ে বলো না আমি খারাপ না বোকা আমাকে দিও না আমি মরে যাব। এনিয়ে একপর্যায়ে আত্মহত্যার হুমকিও দেয় সোনালি। তারপরও কোনো তোয়াক্কা করেনি রোকন। অন্য ছেলেদের সঙ্গে জড়িয়ে নানা খারাপ কথা লিখে। এ সময় এ নিয়ে কথা চলাকালে মেসেঞ্জার ও আইডি বন্ধ করে দেয় রোকন। এই ক্ষোভেই গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঘরের তীরের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করে সোনালি। পরে সকালে সোনালির পরিবারের লোকজন সোনালির মরদেহ ঝুলতে দেখে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। এদিকে রাতে কথোপকথনের প্রমাণ ও মেসেঞ্জার আলাপন পুলিশের হাতে আসলে বিষয়টি নিয়ে কানাঘুষা চলতে থাকে। এরপর পুলিশ পাশের গ্রাম মারিয়ায় রোকনের বাড়িতে হানা দিয়ে বাড়িতে গিয়ে কাউকেই পায়নি। রোকন বাগাতিপাড়ার মারিয়া গ্রামের শিমুলের ছেলে। এ ব্যাপারে নাটোর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত বলেন, বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে প্রেমিক-প্রেমিকার মনোমালিন্যের কারণে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। মোবাইলের কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে। তদন্ত চলছে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.