সংবাদ শিরোনাম
ওসমানীনগরে র‌্যাব-৯ এর সদস্যদের উপর হামলা,মোটরসাইকেল ভাংচুর-আহত ৩  » «   গোলাপগঞ্জের বারকোট গ্রামের ডাকাত জয়নাল গ্রেফতার  » «   টাকার অভাবে মেডিকেলে ভর্তি অনিশ্চিত রিকশাচালকের মেয়ে পান্নার  » «   বাবরি মসজিদের উপর রাম মন্দির নির্মাণের ঘোষণা!  » «   কবর থেকে বেরিয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে কন্যাশিশু!  » «   মদিনাতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩৫  » «   প্রধানমন্ত্রী যুবলীগের বিষয়ে নির্দেশনা দিবেন রবিবার  » «   কুবির বঙ্গবন্ধু হল থেকে গাঁজা সেবনকালে ছাত্রলীগের ২ নেতাসহ আটক ৩  » «   বিশ্ব এ্যানেসথেশিয়া ও মেরুদণ্ড দিবস পালন  » «   রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   আওয়ামীলীগ মাঠ থেকে পালিয়ে যাবার দল নয় : মোহাম্মদ নাসিম  » «   নগরীর সোবহানীঘাট এলাকা থেকে গাড়ী ভর্তি ভারতীয় সুপারীসহ আটক ১  » «   লন্ডনে সাংবাদিক শফিকুলকে ফার্মল্যান্ড ফুড এন্ড এগ্রো ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডের সংবর্ধনা  » «   দক্ষিণ সুরমা থেকে ইয়াবাসহ ব্যবসায়ী আটক  » «   নগরীর ঘাসিটুলা সবুজ সেনা থেকে ৪ জুয়াড়ি গ্রেফতার  » «  

ঋণ দেওয়ার সুযোগ বাড়ল ব্যাংকের

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::বাড়ানো হলো ব্যাংকের ঋণ-আমানত অনুপাত (এডিআর)। এখন থেকে প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলো ১০০ টাকা আমানতের বিপরীতে ৮৫ টাকা এবং ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য সর্বোচ্চ ৯০ টাকা ঋণ দিতে পারবে। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অব অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এই নির্দেশনা জারি করা হয়।

ঋণ প্রবৃদ্ধি ব্যাপকভাবে বাড়তে থাকায় ব্যাংকগুলোর ঋণ-আমানত অনুপাত (এডিআর) কমিয়ে গত ৩০ জানুয়ারি একটি সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এডিআর কমিয়ে প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোর জন্য ৮৩ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ইসলামী ব্যাংকগুলোর জন্য ৮৯ শতাংশ করা হয়। আগে যা ৮৫ ও ৯০ শতাংশ ছিল। ব্যাংকগুলোর এডিআর নির্ধারিত সীমায় নামিয়ে আনতে প্রথমে গত বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়।

এরপর আরেকটি সার্কুলারের মাধ্যমে সময় বাড়িয়ে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর করা হয়। তবে তারল্যসংকটের কথা বলে বিভিন্ন দাবিতে সরব হয় ব্যাংকগুলো। পরবর্তীতে সময় আরো বাড়িয়ে ৩০ মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হয়। এই সময়ের মধ্যেও সমন্বয় করতে না পারায় ঋণ-আমানত অনুপাত নির্ধারিত সীমায় নামিয়ে আনার কার্যক্রম ৩০ সেপ্টেম্বরের (২০১৯) মধ্যে শেষ করতে বলা হয়।

বাংলাদেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো সার্কুলারে বলা হয়, প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোর দ্বিসাপ্তাহিক গড় ভিত্তিতে রক্ষিতব্য সিআরআর এবং দৈনিক ভিত্তিতে রক্ষিতব্য এসএলআর বাদে বিনিয়োগযোগ্য তহবিল দাঁড়ায় ৮১ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ইসলামি শরীয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংক ও প্রচলিত ধারার ব্যাংকের ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য তা দাঁড়ায় ৮৯ শতাংশ।

সামগ্রিকভাবে ব্যাংকিং খাতের মূলধন ভিত্তি, তারল্য পরিস্থিতি, আন্তঃব্যাংক নির্ভরশীলতা এবং সর্বোপরি ব্যাসেল-৩ অনুসারে এলসিআর ও এনএসএফআর-এর নির্ধারিত মাত্রা সংরক্ষণের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্রচলিত ধারার ব্যাংকের জন্য অগ্রিম-আমানত হার (এডিআর) সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ (৮১ দশমিক ৫ শতাংশ + সার্বিক আর্থিক সূচকসমূহ বিবেচনায় ব্যাংকের পর্ষদের সিদ্ধান্তক্রমে অতিরিক্ত ৩.৫ শতাংশ) এবং ইসলামি শরিয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংক এবং প্রচলিত ধারার ব্যাংকের ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য বিনিয়োগ-আমানত হার (এডিআর) সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ (৮৯ শতাংশ + সার্বিক আর্থিক সূচকসমূহ বিবেচনায় ব্যাংকের পর্ষদের সিদ্ধান্তক্রমে অতিরিক্ত ১ শতাংশ) নির্ধারণ করা হলো। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের মার্চ শেষে সীমার ওপরে ছিল ১৯ ব্যাংকের এডিআর।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.