সংবাদ শিরোনাম
নিষিদ্ধ হচ্ছে পুলিশের হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরা  » «   ট্রাম্পকে হারাতে নির্বাচনী লড়াইয়ে মনোনয়ন পেলেন বাইডেন  » «   মার্কিন তরুণীকে পাকিস্তানি মন্ত্রীর ধর্ষণ, হাত তোলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   যুক্তরাজ্যে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরাতে দ্বিতীয় বিশেষ ফ্লাইট  » «   অসুস্থ মাকে হাসপাতালের গেটে ফেলে ছেলে উধাও  » «   নাসিমের অবস্থা সংকটাপন্ন, মেডিকেল বোর্ড গঠন  » «   রবিবার থেকে নতুন নিয়মে লকডাউন  » «   ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করেছে স্বেচ্ছাসেবক টিম  » «   ছাতকে সরকারী চাল চুরির ঘটনায় ৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের-আটক ১   » «   জগন্নাথপুরে ৩ দিন ধরে ১৩ বছরের ছেলে নিখোঁজ: সন্ধান পেতে সাহায্য কামনা  » «   ছাতকে করোনা আক্রান্ত হয়ে আরো এক জনের মৃত্যু ,এ নিয়ে মোট ৩  » «   গোয়াইনঘাটে একই পরিবারের চারজন ও পুলিশ সদস্যসহ আক্রান্ত ১০  » «   সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় হাওরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে নিহত ১, আহত ১  » «   ন্যাপ সভাপতিসহ তামাবিল দিয়ে দেশে ফিরলেন আরও ১০ বাংলাদেশি  » «   লোভাছড়ায় পাথর সরবরাহে কোর্টের আদেশ   » «  

শিক্ষার্থীর বেশে ক্লাসরুমে সচিব!

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ক্লাসভর্তি ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের মাঝে একজনকে পাওয়া গেল যিনি একটু বয়স্ক। কিন্তু তিনি এখানে কী করছেন? জানা গেল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন গণিত বিষয়ে দক্ষতা মূল্যায়নে নিজেই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ক্লাসের পেছনে বসেছেন।
বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) মাগুরা জেলার পাঁচটি বিদ্যালয় পরিদর্শনের সময় তিনি ছাত্র সেজে নিজেই ক্লাসে বসেন। সাতক্ষীরা জেলার গণিত অলিম্পিয়াড চালু করা পাঁচটি বিদ্যালয় পরির্দশন করেন সচিব।
আকরাম আল হোসেন বলেন, ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের গণিতে দুর্বলতা কাটিয়ে পারদর্শী করতে দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গণিত অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতা চালু করা হবে। পাইলটিং হিসেবে দেশের ৮০ বিদ্যালয়ে এ কার্যক্রম সফল হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
সচিব বলেন, সমস্যা সমাধানভিত্তিক আনন্দদায়ক গণিত শিক্ষা পদ্ধতি প্রণয়নে ‘গণিত অলিম্পিয়াড কৌশল প্রয়োগের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের গাণিতিক দক্ষতা বৃদ্ধির সম্ভাব্যতা যাচাই’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ প্রকল্পের আওতায় ১৭ জেলার ১৭ উপজেলার ৮০ স্কুলের ২৪০ শিক্ষককে তিন দফায় ১২ দিন করে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। প্রকল্প চলাকালীন প্রতিটি স্কুলে সপ্তাহে একবার করে একাডেমিক সুপারভিশনের ব্যবস্থা করা হয়। প্রকল্প শুরুর আগে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে অবহিতকরণ কর্মশালা আয়োজিত হয়।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.