সংবাদ শিরোনাম
আপডেট স্থগিত করল হোয়াটসঅ্যাপ  » «   বুধবার নয় বৃহস্পতিবার আসছে ভারত থেকে টিকা  » «   সুনামগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সভাপতি শেফু, সম্পাদক সেলিম  » «   নগরীর দুই মার্কেট থেকে পর্নোগ্রাফির ভিডিওর হার্ডডিস্ক জব্দ  » «   খাদিমনগর এলাকায় পূর্ব বিরোধের জেরে নাইম নামে এক যুবককে হত্যা  » «   ওসমানীনগরে গৃহহীন ২০ পরিবার পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার  » «   ওসমানীনগরে নারী জাগরণী ঐক্য পরিষদের ম্যাসব্যাপী প্রশিক্ষন কার্যক্রমের উদ্ধোধন  » «   কুলাউড়ায় যুবলীগ সম্পাদকের উপর হামলার ঘটনায় দুই জন গ্রেফতার   » «   দিরাইয়ে জামায়াত নেতা কর্তৃক সরকারি জায়গায় ও কৃষকের জমি দখলের অভিযোগ  » «   জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মনিকা’র পরিবারে নগদ সহায়তা প্রদান  » «   অশ্রু সিক্ত নয়নে নিজামউদ্দিন লস্করের শেষ যাত্রা শহীদমিনারে মানুষের ঢল  » «   ভোট পূণ:গণনার দাবী কুলাউড়া পৌর নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান তিন মেয়র প্রার্থী  » «   যুবলীগ সম্পাদকের উপর হামলার ঘটনায় উত্তপ্ত কুলাউড়া:থানায় মামলা  » «   ওসমানীনগরে সহস্রাধিক পরিবারকে শীতবস্ত্র প্রদান  » «   দক্ষিণ সুরমা থেকে ইয়াবা ব্যবসায়ী সালাম গ্রেফতার  » «  

স্কুলছাত্রী ধর্ষণ: ফেসবুকে ভিডিও ছড়ালেন চাচা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সজল মিয়া

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::সরাইলে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় ধর্ষণ করেছে সজল (২৫) নামের বখাটে। আর ধর্ষণের দৃশ্য খুব মজা করে আরাম আয়েশে ভিডিও চিত্র ধারণ করেছে সহযোগী সাজল (২৪)। তারা সম্পর্কে চাচা-ভাতিজি। ধর্ষক সজল আব্দুল আওয়াল মিয়ার ছেলে। আর সামছুল আবেদ আবেদ আলীর ছেলে। উভয়ের বাড়ি বিশুতারা গ্রামে। ধর্ষণের সেই ভিডিও চিত্র এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছে সামছুল। ছাত্রীর পরিবারের সকলেই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে।

গত ৯ই আগস্ট ধর্ষিতা বাদী হয়ে ধর্ষকের মা বাবা সহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। স্পর্শকাতর এ ঘটনার মামলাটি নথিভুক্ত হওয়ার ৪ দিন পর বাদী পক্ষের সহযোগিতায় কুট্টাপাড়া এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে সামছুলকে। ঘটনার দুই মাস পেরিয়ে গেলেও মূল আসামিকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। উল্টো ধর্ষক সজলের পিতা আবদুল আওয়াল এলাকায় ঘুরে ঘুরে হাস্যরসের আলাপচারিতা করছেন। মামলা, ধর্ষিতার পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীটি নিয়মিত বিদ্যালয়ে যেত। বিদ্যালয়ে যাওয়া আসার পথে প্রায়ই তাকে উত্ত্যক্ত করত সামছুল। সামছুল সরাইল উপজেলার কালিকচ্ছ ইউনিয়নের বিশুতারা গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে সামছুল। বিষয়টি সামছুলের অভিভাবকদের একাধিকবার জানালেও তারা গুরুত্ব দেননি। উল্টো ধমক শুনতে হয়েছে ছাত্রীর পরিবারকে। পেশায় মাইক্রো চালক সামছুলের উত্ত্যক্তের কারণে এক সময় ছাত্রীর বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ হয়ে যায়। গত ১লা আগস্ট বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে সজল ও সামছুল ওই ছাত্রীর বসত বাড়িতে যায়। ঘরের বাইর থেকে প্রথমে সজল ছাত্রীর বাবার নাম ধরে ডাকতে থাকে। ছাত্রী ঘরের দরজা খুললে কিছু বুঝে ওঠার আগেই বখাটে সজল ছুরি দেখিয়ে প্রাণনাশের ভয় দেখায়। পরে তাকে ধর্ষণে লিপ্ত হয় সজল। আর পাশে দাঁড়িয়ে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে সামছুল। ধস্তাধস্তির শব্দ শুনে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। সামছুল নিজেকে রক্ষা করে পালিয়ে গেলেও ধর্ষক সজলকে আটক করে ফেলে লোকজন। সজলের পিতা আব্দুল আওয়াল ও মা রেজিয়া বেগম এসে কৌশল অবলম্বন করেন। তারা সজলের সঙ্গে ওই ছাত্রীর বিয়ের কথা বলে প্রাথমিকভাবে বিষয়টিকে ঠাণ্ডা করেন। সেই সাথে ছেলেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান। পরবর্তীতে বেঁকে বসেন সজলের মা-বাবা। বখাটে সামছুল ধর্ষণের সকল ভিডিও চিত্র ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়। দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়। গত ৯ই আগস্ট ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে সজল ও তার মা বাবা সহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার দুই মাস পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহাদাৎ হোসেন টিটো বলেন, ছেলেটিকে ধরে তারা বিয়ের আশ্বাস পেয়ে ছেড়ে দিয়েছে। তাদের মূল টার্গেট বিয়ে। মেডিকেল রিপোর্টে কিশোরীর কোন ক্ষতি হয়নি। ভাইরাল হয়েছে বললেও তারা ভিডিও দেখাতে পারছেন না। পুলিশের অজান্তে তারা ছেলের পক্ষের সাথে গোপনে বৈঠকও করছেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.