সংবাদ শিরোনাম
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় হাওরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে নিহত ১, আহত ১  » «   ন্যাপ সভাপতিসহ তামাবিল দিয়ে দেশে ফিরলেন আরও ১০ বাংলাদেশি  » «   লোভাছড়ায় পাথর সরবরাহে কোর্টের আদেশ   » «   হাইকোর্ট এর আদেশ মানছেন না তাহিরপুর উপজেলা প্রশাসন:জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন  » «   করোনা:সিলেটে মারা গেলেন আরেক চিকিৎসকের স্ত্রী  » «   মাহমুদুলের সহকারী থেকে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি   » «   তামাবিল স্থলবন্দরে কাষ্টমস এসির সাথে ব্যবসায়ী নেতাদের সভা  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে এক পরিবারের ৪ জন সহ ৫ জন  করোনা আক্রান্ত: মোট আক্রান্ত ১৭  » «   চিকিৎসা না পেয়ে মারা গেছেন বন্দরবাজারের এক ব্যবসায়ী  » «   মাধবপুরে বিজিবির অভিযানে গাঁজাসহ আটক ৩  » «   শ্রীমঙ্গলে মা-মেয়ের রহস্যজনক মৃত্যু  » «   সিলেটে করোনার ভয়ঙ্কর থাবা : একদিনে আক্রান্ত ৮৬, মৃত্যু ৩  » «   ছাতকে করোনা আক্রান্ত হয়ে এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু,এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ২  » «   বীর মুক্তিযোদ্ধা কবির আহমদ মোশনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ  » «   গোয়াইনঘাটে এক শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত: মোট আক্রান্ত ৯  » «  

কোনো জায়গাই চিরস্থায়ী নয় আল-আমিন

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::বিসিবি একাডেমিতে জিম করছিলেন আল-আমিন হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান। জাতীয় লিগে খুলনা বিভাগীয় দলে খেলেন এই দুই পেসার। এক সাংবাদিক বলে উঠলেন, তারা চলে আসায় খুলনার পেস আক্রমণের ধার অনেকখানি কমে গেল।

সঙ্গে সঙ্গেই আল-আমিনের জবাব, কিছুটা তো হবেই। রুবেল আছে, জিয়া ভাই (জিয়াউর রহমান) আছে। তবে দ্বিতীয় রাউন্ডে যে দলটা আমরা খেলছি, পুরো এনসিএলে এমন থাকলে খুলনাকে হারানো কঠিন হতো।

আল-আমিন এখন বেশ ফুরফুরে মেজাজেই আছেন। প্রায় সাড়ে তিন বছর পর জাতীয় দলে ফিরেছেন ডানহাতি এই পেসার। যদিও ২০১৩ সালে অভিষেকের পর বাংলাদেশ দলে বেশ অপরিহার্য ছিলেন তিনি। আসন্ন ভারত সফরের টি-২০ দলে ডাক পাওয়া আল-আমিন এবার মুখিয়ে আছেন, অনেকদিন পর আসা সুযোগটা কাজে লাগাতে।

জাতীয় দলের বাইরে থাকার সময়টা ২৯ বছর বয়সি এই পেসারকে শিখিয়েছে, বাস্তবতা অনেক কঠিন। আল-আমিন তাই এখন আর অত উত্ফুল্ল নন। মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন, কোনো জায়গাই চিরস্থায়ী নয়। তাই খুব ভাবনা নেই তার। শুধু মাঠে নিজের সামর্থ্যটা তুলে ধরতে চান।

জাতীয় দলের বাইরে থাকার কষ্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে গতকাল আল-আমিন বলেছেন, ‘না, আসলে কষ্ট পাওয়ার তো কিছু নেই। কোনো জায়গাই চিরস্থায়ী নয় দুনিয়াতে, কারণ আপনি জাতীয় দল বলেন বা এনসিএল বলেন আপনি যখন ভালো খেলবেন তখন খেলবেন আর যখন খারাপ খেলবেন তখন খেলবেন না।’

সামনে আসা সুযোগটা কাজে লাগানোর দিকেই মনোযোগ দিতে চান আল-আমিন। তিনি বলেছেন, ‘জাতীয় দলে যারা আমাকে সুযোগ দিয়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই যে, আরেকটি সুযোগ আমাকে দিয়েছে। এখন দায়িত্ব আমার সুযোগটি কাজে লাগানোর।’

আল-আমিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শেষবার খেলেছিলেন ২০১৬ সালে ভারতের মাটিতে। আবারও ভারত সফরের দল দিয়েই ফিরছেন তিনি। ভারত সফর চ্যালেঞ্জিং হলেও ডানহাতি এই পেসার সুযোগ হিসেবেই বিবেচনা করছেন।

গতকাল ঝিনাইদহের এই ক্রিকেটার বলেছেন, ‘আসলে ভারতের সঙ্গে খেলা সবমিলিয়ে বড়ো একটি চ্যালেঞ্জ বলতে পারেন। কারণ ওরা অন্যতম সেরা একটি দল যতগুলো দল আছে এর মধ্যে। চ্যালেঞ্জ যদি সেভাবে নেওয়া যায় যে ভালো করব, ভালো খেলতে হবে তাহলে এটা অনেক বড়ো চ্যালেঞ্জ। আর আপনি যদি মনে করেন যে একটি সুযোগ এসেছে, আমি যদি ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারি তাহলে ভালো কিছু হবে।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে এই তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজে নাও খেলতে পারেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তারপরও ভারতের ব্যাটিং লাইন বেশ শক্তিশালী। আর নিজেদের মাটিতে তারা সবসময় দুর্দান্ত। ভারতীয় দলে কে খেলবে, কে খেলবে না তা নিয়ে ভাবতে চান না আল-আমিন। বরং নিজের সেরাটা দেওয়ার দিকেই মনোযোগী এই পেসার। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘দেখুন কোহলি খেলবে কিনা, কিংবা ভারত দলে কে খেলবে না খেলবে এগুলো কিন্তু আমাদের অধিনায়ক আছে, ম্যানেজমেন্ট আছে তারা চিন্তা করবে। আমাকে একজন খেলোয়াড় হিসেবে সুযোগ দিলে আমি সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব।’

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.