সংবাদ শিরোনাম
জৈন্তাপুর সীমান্তে ভারতীয় গরুর দুইটি চালান আটক  » «   বড়লেখা স্ত্রী শাশুড়িসহ ৪ জনকে কুপিয়ে হত্যা : অবশেষে কানন বালাও না ফেরার দেশে  » «   স্টুডেন্ট ভিসায় বিদেশ পাড়ি মৌলভীবাজারের রহিমার:দেশে ফিরে আত্মহত্যার চেষ্টা  » «   মৌলভীবাজারের শেরপুর এলাকায় পিকআপচাপায় ২ অটোরিকশাযাত্রী নিহত  » «   তাহিরপুরে যুবকের মাথা ফাটাল কিশোর গ্যাং  » «   বাহুবলে অটোরিকশার গ্যাস নিতে গিয়ে প্রাণ হারালেন ২ চালক  » «   মৌলভীবাজারে জুতার দোকানে আগুন, একই পরিবারের ৫ জন নিহত  » «   সিলেটে পণ্যবাহী ট্রাক ধর্মঘট প্রত্যাহার  » «   মসজিদ নির্মাণে আর্থিক অনুদান বন্ধ করছে সৌদি!  » «   চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান গাইলেন ও শুনলেন প্রধানমন্ত্রী (ভিডিওসহ)  » «   ওমরাহ পালনে গিয়ে যে সুখবর পেলেন তাসকিন  » «   চীনে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৮০ ছাড়িয়েছে  » «   জৈন্তাপুরে জোরপূর্বক অপহরণ করে ধর্ষণ: মামলার আসামি গ্রেপ্তার  » «   সুনামগঞ্জে দুই বছরের মধ্যেই কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে-পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   সিলেটে উদযাপিত হয়েছে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস  » «  

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে নতুন নিয়মেই চলছে সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক::সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে সাক্ষাতের নতুন নিয়মেই চলছে বন্দীদের সাথে সাক্ষাত।অতীতে যে সকল নিয়ম ছিলো তা,পরিবর্তন করে নতুন নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে আর সেই নিয়মেই চলছে বন্দীদের সাথে আত্নীয় স্বজনের সাক্ষাৎ। তবে যে কেউ আত্নীয় স্বজন বলে সাক্ষাৎ করতে পারবেন না।কারন বন্দীর সাথে সাক্ষাৎ করতে হলে ডকুমেন্টস সহ প্রমান করতে হবে যে সাক্ষাৎকারীর আত্নীয়।কোন বন্দীর মা,বাবা,ভাই, বোন,দাদা,দাদী,সহ যত আত্নীয় স্বজন আছেন,তা ন্যাশনাল আইডি কার্ড সাথে নিয়ে যেতে হবে।ন্যাশনাল আইডি কার্ডের সাথে যদি বন্দীর সাথে সাক্ষাৎকারীর আত্নীয় স্বজন বলে প্রমান করতে পারেন তাহলেই সেই ব্যক্তি দেখা করতে পারবেন বন্দীদের সাথে । অন্যতায় বাহিরের কোন লোক বন্দু, বান্দব,আত্নীয় স্বজন, ছোট ভাই, বড় ভাই, এসব কথা বলে সাক্ষাৎ করা যাবে না।তাছাড়া বন্দীর আত্নীয় স্বজন ও বন্দীর সাথে প্রতি সপ্তাহে এক দিন সাক্ষাৎ করতে পারবেন। এক সপ্তাহের এক দিন আগে চাহিলেও দেখা করতে পারবেন না।এই নিয়মেই বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে সাক্ষাৎ করতেছেন বন্দীদের আত্নীয় স্বজন। এই বিষয়ে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু সায়েমের, সাথে সিলেট পোস্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম এর প্রতিবেদক সরাসরি সাক্ষাৎ করে জানতে চাইলে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার,আবু সায়েম জানান, এই নিয়মেই বন্দীদের সাথে বন্দীদের আত্নীয় স্বজনদের দেখা সাক্ষাৎ করা চলছে ।আগের নিয়ম পরিবর্তন করে নতুন নিয়ম করা হয়েছে শুধু মাত্র বন্দীদের কে কঠোর নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য। কারন যে কেউ বন্দীদের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করে বন্দীদের কে বিভিন্ন কুপরামর্শ দিয়ে যায়।পরবর্তীতে বন্দীরা জেল খানার ভেতরে বিভিন্ন অনিয়ম সহ নানা ধরনের খারাপ কাজের সহিত লিপ্ত হওয়ার চেষ্টা করে।এমন কি টাকা পয়সা দিয়েও বাহিরের লোকের মাধ্যমে নেশা,জাতীয় মাদকদ্রব্য জেল খানার ভেতর ডুকানোর কৌশল অবলম্বন করে।অতীতে আমাদের কর্তৃপক্ষ অনেক বার এধরণের কাজে বাহিরের লোককে হাতে নাতে পেয়ে ধরে ফেলে।বিদায় বন্দীদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে এই নিয়ম করা হয়েছে।এখন থেকে এই নিয়মেই বন্দীদের সাথে সাক্ষাৎ করা চলবে এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ড অবশ্যই সাথে নিয়ে যেথে হবে বন্দীর সাথে সাক্ষাৎকারীরা।তাছাড়া আরো জানান কোন নগদ টাকা জেল খানার ভেতরে চলবে না।আত্নীয় স্বজন যদি বন্দীকে টাকা পয়সা দিতে হয় তাহলে পিসিতে টাকা দিতে পারবেন ঐ টাকা দিয়ে বন্দী জেল খানার ভেতরে কেন্টিন ও দোকান রয়েছে ক্যান্টিন ও দোকান থেকে নিজের প্রয়োজনীয় যে কোন কিছু কিনতে পারবেন বলে জানান সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার,আবু,সায়েম।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.