সংবাদ শিরোনাম
জগন্নাথপুরে সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী সম্পন্ন  » «   জগন্নাথপুরে হিন্দু সম্প্রাদায়ের উপর অতর্কিত হামলা ভাংচুর ও লুটপাট  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে এক জন  » «   জগন্নাথপুরে সাংবাদিকের বসত ঘরে আগুন প্রায় ২ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি  » «   সুনামগঞ্জ জেলায় নতুন করে ২ শিশু,৪ পুলিশ সদস্য সহ ১৮জন করোনা আক্রান্ত  » «   তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে দেশে গেলেন  ৫ ভারতীয়, ফিরলেন ৪ বাংলাদেশি  » «   গোয়াইনঘাটে নিখোঁজের তিনদিন পর ওসমান আলীর লাশ উদ্ধার  » «   বিশপের দশক সেরা ওয়ানডে একাদশে একমাত্র অলরাউন্ডার সাকিব  » «   মুক্তির শর্তের বিষয়ে আইনজীবীদের সঙ্গেও পরামর্শ  » «   রবিবার থেকে ব্যাংক চলবে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা  » «   অভ্যন্তরীণ তিন রুটে ১ জুন থেকে ফ্লাইট চালু  » «   সৌদি আরবে সিলেটর জকিগন্জের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   নিজ হাতে গড়া দল থেকে বহিষ্কার মাহাথির  » «   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা  » «   শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে এক বৃদ্ধের মৃত্যু  » «  

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে নতুন নিয়মেই চলছে সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক::সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে সাক্ষাতের নতুন নিয়মেই চলছে বন্দীদের সাথে সাক্ষাত।অতীতে যে সকল নিয়ম ছিলো তা,পরিবর্তন করে নতুন নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে আর সেই নিয়মেই চলছে বন্দীদের সাথে আত্নীয় স্বজনের সাক্ষাৎ। তবে যে কেউ আত্নীয় স্বজন বলে সাক্ষাৎ করতে পারবেন না।কারন বন্দীর সাথে সাক্ষাৎ করতে হলে ডকুমেন্টস সহ প্রমান করতে হবে যে সাক্ষাৎকারীর আত্নীয়।কোন বন্দীর মা,বাবা,ভাই, বোন,দাদা,দাদী,সহ যত আত্নীয় স্বজন আছেন,তা ন্যাশনাল আইডি কার্ড সাথে নিয়ে যেতে হবে।ন্যাশনাল আইডি কার্ডের সাথে যদি বন্দীর সাথে সাক্ষাৎকারীর আত্নীয় স্বজন বলে প্রমান করতে পারেন তাহলেই সেই ব্যক্তি দেখা করতে পারবেন বন্দীদের সাথে । অন্যতায় বাহিরের কোন লোক বন্দু, বান্দব,আত্নীয় স্বজন, ছোট ভাই, বড় ভাই, এসব কথা বলে সাক্ষাৎ করা যাবে না।তাছাড়া বন্দীর আত্নীয় স্বজন ও বন্দীর সাথে প্রতি সপ্তাহে এক দিন সাক্ষাৎ করতে পারবেন। এক সপ্তাহের এক দিন আগে চাহিলেও দেখা করতে পারবেন না।এই নিয়মেই বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দীদের সাথে সাক্ষাৎ করতেছেন বন্দীদের আত্নীয় স্বজন। এই বিষয়ে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু সায়েমের, সাথে সিলেট পোস্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম এর প্রতিবেদক সরাসরি সাক্ষাৎ করে জানতে চাইলে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার,আবু সায়েম জানান, এই নিয়মেই বন্দীদের সাথে বন্দীদের আত্নীয় স্বজনদের দেখা সাক্ষাৎ করা চলছে ।আগের নিয়ম পরিবর্তন করে নতুন নিয়ম করা হয়েছে শুধু মাত্র বন্দীদের কে কঠোর নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য। কারন যে কেউ বন্দীদের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করে বন্দীদের কে বিভিন্ন কুপরামর্শ দিয়ে যায়।পরবর্তীতে বন্দীরা জেল খানার ভেতরে বিভিন্ন অনিয়ম সহ নানা ধরনের খারাপ কাজের সহিত লিপ্ত হওয়ার চেষ্টা করে।এমন কি টাকা পয়সা দিয়েও বাহিরের লোকের মাধ্যমে নেশা,জাতীয় মাদকদ্রব্য জেল খানার ভেতর ডুকানোর কৌশল অবলম্বন করে।অতীতে আমাদের কর্তৃপক্ষ অনেক বার এধরণের কাজে বাহিরের লোককে হাতে নাতে পেয়ে ধরে ফেলে।বিদায় বন্দীদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে এই নিয়ম করা হয়েছে।এখন থেকে এই নিয়মেই বন্দীদের সাথে সাক্ষাৎ করা চলবে এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ড অবশ্যই সাথে নিয়ে যেথে হবে বন্দীর সাথে সাক্ষাৎকারীরা।তাছাড়া আরো জানান কোন নগদ টাকা জেল খানার ভেতরে চলবে না।আত্নীয় স্বজন যদি বন্দীকে টাকা পয়সা দিতে হয় তাহলে পিসিতে টাকা দিতে পারবেন ঐ টাকা দিয়ে বন্দী জেল খানার ভেতরে কেন্টিন ও দোকান রয়েছে ক্যান্টিন ও দোকান থেকে নিজের প্রয়োজনীয় যে কোন কিছু কিনতে পারবেন বলে জানান সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার,আবু,সায়েম।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.