সংবাদ শিরোনাম
‘ধর্ষিতা কন্যাকে চুপ থাকতে বলেন’ অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী  » «   নিউ জিল্যান্ডে অগ্ন্যুৎপাত ॥ নিহত ১,কয়েকজন নিখোঁজ  » «   বঙ্গবন্ধু বিপিএলে একমাত্র দেশী কোচ সালাউদ্দিন  » «   নারীরা এখন সর্বত্র কাজ করছে ॥ প্রধানমন্ত্রী  » «   ২২ ডিআইজি-অতিরিক্ত ডিআইজি বদলি  » «   এখন থেকে প্রতিদিন তিনবার ফুটপাতে অভিযান চলবে-মেয়র আরিফ  » «   মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপির শোভাযাত্রা মঙ্গলবার  » «   নগরীর কাষ্টঘর এলাকা থেকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার  » «   সিলেটে আজ থেকে কার্যকর হলো নতুন সড়ক পরিবহন আইন  » «   কমলগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তরুণীর লাশ উত্তোলন  » «   প্রত্যেক নারীকে অসাম্প্রদায়িক চিন্তা চেতনার হতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   দিরাইয়ে দুইদিন থেকে নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার  » «   ছাতকে পিকআপ ভর্তি ভারতীয় কসমেটিকসহ আটক ৩  » «   সিলেটে চালু হচ্ছে আরও একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়  » «   রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ, আটক ১২  » «  

এবার সিলেটে পেঁয়াজ,চালের পর বাজারে ঝড় উঠেছে লবণের দাম

শেখ মোঃ লুৎফুর রহমান::পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিকে অনুসরণ করে বৃদ্ধি পাচ্ছে  লবণ ও চালের দাম। গত এক সপ্তাহে আটাশ ও মিনিকেট চালের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি তিন থেকে পাঁচ টাকা।

সমবার (১৮ নভেম্বর) পেঁয়াজের দাম না বাড়লেও গত দিনের মতো অপরিবর্তিত রয়েছে। আড়তগুলোতে দেশি পেঁয়াজ কেজি প্রতি দাম রাখা হচ্ছে১৮০ -২২০ টাকা, বার্মা থেকে আনা পেঁয়াজ কেজি প্রতি দাম রাখা হচ্ছে ১৭০-২০০ টাকা এবং মিসরের পেঁয়াজ প্রতি কেজি দাম রাখা হচ্ছে ১৯০ টাকা। এই পেঁয়াজই খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২১০ টাকা থেকে ২৩০ টাকা পর্যন্ত।

পেঁয়াজের দর বৃদ্ধির আলোচনার সাথে সাথে ডালপালা গজিয়েছে লবণ ও চালের দর বৃদ্ধির।

সমবার সন্ধায় বালুচর বাজারের চালের জন্য প্রসিদ্ধ একাধিক চালের দোকানদারের সাথে কথা বলে জানা যায়। চলতি মাসের শুরু থেকেই চালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে মিল মালিকরা।

যাদের কাছে বাড়তি চাল কেনা ছিল তারা পুরনো দামে বিক্রি করার কারণে এতদিন চালের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি আলোচনায় ছিল না। কিন্তু গত সপ্তাহ থেকে দোকানিদের পূর্বের দামে কেনা চাল শেষ হয়ে গেলে তারা নতুন দামে কেনা চাল বাড়তি দামে বিক্রি শুরু করলে আলোচনায় আসে চালের দাম বৃদ্ধি।

এদিকে আজ সন্ধা পর থেকে দেখাগেছে বিভিন্ন দোকানে ক্রেতাদের বির জমেছে।বেড়েছে লবণের দাম হঠাৎ করে লবণের দাম বাড়াতে ক্রেতাদের মনে আতঙ্ক জন্মেছে।বালুচরের শামিম মিয়া জানান,অনেকে চার কেজি পাঁচ কেজি করে ক্রয় করছেন ৫০ টাকা কেজি দামে তিনি নিজে ও ৫ কেজি ক্রয় করেছেন।বালুচরের ব্যবসায়ী নেছার খাঁন জানান তিনির দোকানের সব লবণ বিক্রি হয়ে গেছে তিনি আগের দামে বিক্রি করেছেন।তবে

তিনি আরো জানান নগরীর টিলাগর বাজারে ১৪০ টাকা করে ক্রয় করছেন ক্রেতারা। এদিকে কাজিটুলা থেকে সাইফুল ইসলাম সিলেটপোস্টকে মোবাইল ফোনে জানান,কাজিটুলা বাজারে ১৭০-১৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে লবণের ।

আলোচনার মাঝে উপযাচক হয়ে মন্তব্য করলেন একজন সাধারণ ক্রেতা।তিনি মনে করেন, সিন্ডিকেট তো বটেই বাজার মনিটরিংয়ে অব্যবস্থাপনা এবং সংশ্লিষ্টদের অনীহার কারণেই লবণের দাম এভাবে বাড়ানো হয়েছে কোন কারণ ছাড়াই। ওই ক্রেতা আরো বলেন, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির পেছনে সুনির্দিষ্ট দুইটা কারণ বলার মতো আছে কিন্তু লবণের দাম বৃদ্ধির পেছনে কি কোন কারণ আছে?

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.