সংবাদ শিরোনাম
ভারত থেকে পিয়াজ আসছে দাম কমতির দিকে  » «   তাহিরপুর সীমান্তে ভারতীয় গোলকাঠ উদ্বার  » «   সিলেটে ৩ জন চিকিৎসকসহ নতুন করে ১৩ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত  » «   জেলা তথ্য অফিসের উপ পরিচালক মিলি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত  » «   খাদিমনগর ইউনিয়নে চুরি হওয়া গরুসহ দুই চোর আটক  » «   মেয়র আরিফের রোগমুক্তি কামনায় মহানগর  ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের দোয়া  » «   আল্লামা শফীর জানাজা সম্পন্ন, লাখো মানুষের ঢল  » «   মৃত ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষিকাকে বদলি  » «   সাবেক মেয়র কামরানের ছোট ভাই বখতিয়ার আহমদ কানিছ আর নেই  » «   যে কেউ পাবে না আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র  » «   ইউএনও ওয়াহিদা ও তার স্বামীকে বদলি  » «   দক্ষিণ সুরমায় নারীকে মারধরের অভিযোগে ট্রাভেলস ব্যবসায়ী গ্রেফতার  » «   দৌড়বিদ-সাইক্লিস্ট ও সাঁতারুদের পদচারণায় মুখরিত ওসমানীনগর  » «   মহানগর পুলিশের অভিযানে গণধর্ষণ মামলার দুই আসামি গ্রেপ্তার  » «   সিলেটে বঞ্চিত আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিবাদ মিছিল  » «  

‘ধর্ষিতা কন্যাকে চুপ থাকতে বলেন’ অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::নিজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কায় ধর্ষিতা মেয়েকে চুপ থাকতে বলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী বব হক, অভিযোগ তার কন্যা রোজলিন ডিলনের।

গত শতকের ৮০’র দশকে বব হকের লেবার পার্টির এমপি বিল ল্যান্ডারইউ তাকে ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন ডিলন।

বব হক ও বিল ল্যান্ডারইউ, দুই জনই এখন মৃত। আর ৫৯ বছর বয়সী ডিলন তার পিতার সম্পদ থেকে ৪০ লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার দাবি করে মামলা লড়ছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, ডিলনের অভিযোগ সংক্রান্ত আদালতের নথি দেখেছে অস্ট্রেলিয়ার নিউজ সাইট নিউ ডেইলি।

সেখানে একটি হলফনামায় ডিলন জানিয়েছেন, ল্যান্ডারইউয়ের দপ্তরের হয়ে কাজ করার সময় তিনি তাকে ধর্ষণ করেন। ওই সময় হক লেবার পার্টির নেতা হওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছিলেন।

ওই নথিপত্রের ভাষ্য অনুযায়ী, ১৯৮৩ সালে তিনি তিনবার যৌন হেনেস্থার শিকার হয়েছিলেন বলে ডিলন জানিয়েছেন।

তৃতীয়বার একই ঘটনা ঘটার পর তিনি পিতাকে ধর্ষিত হওয়ার কথা জানিয়ে পুলিশের কাছে যেতে চান বলে জানান। নথিতে দেখা গেছে তার পিতা উত্তর ছিল, “তুমি এটা করতে পার না। এই মূহুর্তে আমি কোনো বিতর্ক চাই না। আমি দুঃখিত, কিন্তু আমি লেবার পার্টির নেতৃত্বের লড়াইয়ে নামছি।”

এই অভিযোগের বিষয়টি তাদের পরিবারের সবাই জানতো বলে ডিলনের বোন সু পিটারর্স হক নিউ ডেইলিকে জানিয়েছেন।

“সে তখন লোকজনকে বলেছিল। তার প্রতি সমর্থনসূচক প্রতিক্রিয়াই ছিল বলে আমার বিশ্বাস, কিন্তু আইনি পথে আর যাওয়া হয়নি,” নিউ ডেইলিক বলেছেন তিনি। তবে এ ঘটনার বিষয়ে তাদের পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমের কাছে আর কোনো মন্তব্য করেনি।

শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক নেতা ল্যান্ডারইউ ১৯৭৬ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্ট সদস্য ছিলেন। কথিত আছে হক প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন পুরোটা সময়ই তার সঙ্গে ল্যান্ডারইউয়ের সম্পর্ক ভাল ছিল।

হক ১৯৮০-র দশকে অস্ট্রেলিয়ার রাজনীতির প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব ছিলেন। চারটি সাধারণ নির্বাচনে জয়লাভ করেছিলেন তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.