সংবাদ শিরোনাম
জৈন্তাপুর সীমান্তে ভারতীয় গরুর দুইটি চালান আটক  » «   বড়লেখা স্ত্রী শাশুড়িসহ ৪ জনকে কুপিয়ে হত্যা : অবশেষে কানন বালাও না ফেরার দেশে  » «   স্টুডেন্ট ভিসায় বিদেশ পাড়ি মৌলভীবাজারের রহিমার:দেশে ফিরে আত্মহত্যার চেষ্টা  » «   মৌলভীবাজারের শেরপুর এলাকায় পিকআপচাপায় ২ অটোরিকশাযাত্রী নিহত  » «   তাহিরপুরে যুবকের মাথা ফাটাল কিশোর গ্যাং  » «   বাহুবলে অটোরিকশার গ্যাস নিতে গিয়ে প্রাণ হারালেন ২ চালক  » «   মৌলভীবাজারে জুতার দোকানে আগুন, একই পরিবারের ৫ জন নিহত  » «   সিলেটে পণ্যবাহী ট্রাক ধর্মঘট প্রত্যাহার  » «   মসজিদ নির্মাণে আর্থিক অনুদান বন্ধ করছে সৌদি!  » «   চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান গাইলেন ও শুনলেন প্রধানমন্ত্রী (ভিডিওসহ)  » «   ওমরাহ পালনে গিয়ে যে সুখবর পেলেন তাসকিন  » «   চীনে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৮০ ছাড়িয়েছে  » «   জৈন্তাপুরে জোরপূর্বক অপহরণ করে ধর্ষণ: মামলার আসামি গ্রেপ্তার  » «   সুনামগঞ্জে দুই বছরের মধ্যেই কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে-পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   সিলেটে উদযাপিত হয়েছে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস  » «  

‘ধর্ষিতা কন্যাকে চুপ থাকতে বলেন’ অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::নিজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কায় ধর্ষিতা মেয়েকে চুপ থাকতে বলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী বব হক, অভিযোগ তার কন্যা রোজলিন ডিলনের।

গত শতকের ৮০’র দশকে বব হকের লেবার পার্টির এমপি বিল ল্যান্ডারইউ তাকে ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন ডিলন।

বব হক ও বিল ল্যান্ডারইউ, দুই জনই এখন মৃত। আর ৫৯ বছর বয়সী ডিলন তার পিতার সম্পদ থেকে ৪০ লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার দাবি করে মামলা লড়ছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, ডিলনের অভিযোগ সংক্রান্ত আদালতের নথি দেখেছে অস্ট্রেলিয়ার নিউজ সাইট নিউ ডেইলি।

সেখানে একটি হলফনামায় ডিলন জানিয়েছেন, ল্যান্ডারইউয়ের দপ্তরের হয়ে কাজ করার সময় তিনি তাকে ধর্ষণ করেন। ওই সময় হক লেবার পার্টির নেতা হওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছিলেন।

ওই নথিপত্রের ভাষ্য অনুযায়ী, ১৯৮৩ সালে তিনি তিনবার যৌন হেনেস্থার শিকার হয়েছিলেন বলে ডিলন জানিয়েছেন।

তৃতীয়বার একই ঘটনা ঘটার পর তিনি পিতাকে ধর্ষিত হওয়ার কথা জানিয়ে পুলিশের কাছে যেতে চান বলে জানান। নথিতে দেখা গেছে তার পিতা উত্তর ছিল, “তুমি এটা করতে পার না। এই মূহুর্তে আমি কোনো বিতর্ক চাই না। আমি দুঃখিত, কিন্তু আমি লেবার পার্টির নেতৃত্বের লড়াইয়ে নামছি।”

এই অভিযোগের বিষয়টি তাদের পরিবারের সবাই জানতো বলে ডিলনের বোন সু পিটারর্স হক নিউ ডেইলিকে জানিয়েছেন।

“সে তখন লোকজনকে বলেছিল। তার প্রতি সমর্থনসূচক প্রতিক্রিয়াই ছিল বলে আমার বিশ্বাস, কিন্তু আইনি পথে আর যাওয়া হয়নি,” নিউ ডেইলিক বলেছেন তিনি। তবে এ ঘটনার বিষয়ে তাদের পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমের কাছে আর কোনো মন্তব্য করেনি।

শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক নেতা ল্যান্ডারইউ ১৯৭৬ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্ট সদস্য ছিলেন। কথিত আছে হক প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন পুরোটা সময়ই তার সঙ্গে ল্যান্ডারইউয়ের সম্পর্ক ভাল ছিল।

হক ১৯৮০-র দশকে অস্ট্রেলিয়ার রাজনীতির প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব ছিলেন। চারটি সাধারণ নির্বাচনে জয়লাভ করেছিলেন তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.