সংবাদ শিরোনাম
ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন জারি, অফিস খুলবে ১২ এপ্রিল  » «   করোনা:সিলেটে নতুন করে ৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে  » «   জগন্নাথপুরে করোনা সংক্রামন রোধে পুলিশের বিভিন্ন বাজারে প্রচারণা  » «   ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বড়ো পরীক্ষা করোনা’  » «   যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড ৮৬৫ জনের মৃত্যু  » «   করোনা: ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের ঋণের কিস্তি পরিশোধে চাপ দিতে পারবেনা  » «   শৈশবে দেয়া বিসিজি টিকা বাঁচাবে করোনা থেকে!  » «   দিরাইয়ে রাস্তার পাশে পড়ে থাকা অসুস্থ অজ্ঞাত এক ব্যক্তি উদ্ধার  » «   নগরীর খাসদবীরে মাসুকের উদ্যোগে সুবিধাবঞ্চিতদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন শুরু  » «   ওসমানীনগরে মানা হচ্ছে না নিরাপদ দূরত্ব: প্রশাসনের নিরব ভূমিকা  » «   করোনা:জগন্নাথপুরে প্রত্যেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ সহকারী পুলিশ সুপারের  » «   জগন্নাথপুরে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর যৌথ উদ্যোগে সচেতনামূলক প্রচারনা  » «   সিলেটে হাসপাতাল কোয়ারেন্টাইনে কিশোরীর মৃত্যু: গ্রামের বাড়ী জালালপুরে দাফন সম্পন্ন  » «   করোনা: সিলেটে হাসপাতাল কোয়ারেন্টাইনে এক কিশোরীর মৃত্যু  » «   সিলেটে আরো ৩ জনের করোনা ‘নেগেটিভ’  » «  

সুদবাবদ ব্যয় কমাতে ঋণ নিচ্ছে সরকার

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::ব্যয় ব্যবস্থাপনা ঠিক রাখতে ব্যাংক খাত থেকে অস্বাভাবিক হারে ঋণ নিচ্ছে সরকার। বাজেট ঘাটতি মেটাতে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে সরকার ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা ঋণ নেবে বলে ঠিক করে। কিন্তু প্রথম পাঁচ মাসেই প্রায় সমপরিমাণ অর্থ ধার হিসেবে নিয়ে ফেলেছে সরকার।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সঠিক ব্যয় ব্যবস্থাপনা না থাকায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে ব্যাংক খাতের ওপর চাপ বাড়ছে। আর সরকারি ঋণের এই চাপে বেসরকারি খাতের ঋণে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে হয় রাজস্ব বাড়াতে হবে, না হয় ব্যয় সংকোচন করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য বলছে, চলতি অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে গত ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকার ব্যাংক খাত থেকে ঋণ নিয়েছে ৪৭ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়েছে ৯ হাজার ৮৭৭ কোটি টাকা; আর বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো থেকে ঋণ নিয়েছে ৩৭ হাজার ২৬১ কোটি টাকা। সবমিলিয়ে চলতি বছরের ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যাংকিং খাত থেকে নেয়া সরকারের পুঞ্জীভূত ঋণের স্থিতি বা পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৫৫ হাজার ২৩৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো থেকে ১ লাখ ১১ হাজার ৪১২ কোটি টাকা এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ৪৩ হাজার ৮২২ কোটি টাকা।

ব্যাংক থেকে সরকারের ঋণ নেয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘সঠিক ব্যয় ব্যবস্থাপনার অভাবে অস্বাভাবিক হারে সরকার ব্যাংক ঋণ নিচ্ছে। দুটি কারণে এটি হচ্ছে। এক, সরকার সঞ্চয়পত্র থেকে কম ঋণ নিচ্ছে। যার সমপরিমাণ অর্থ ব্যাংক থেকে নিচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘এটি খারাপ নয়। কারণ, উচ্চ সুদে সঞ্চয়পত্র থেকে ঋণ নেয়ার চেয়ে ব্যাংকের ঋণ ভালো। তবে সমস্যা হচ্ছে সরকারের ঋণ নেয়ার মাত্রা অনেক বেশি। এটির কারণ, লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে রাজস্ব আদায় অনেক কমে গেছে। আর এ ঘাটতির কারণেই সরকারকে ব্যাংক থেকে বেশি ঋণ নিতে হচ্ছে।’

 

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.