সংবাদ শিরোনাম
৬৮ লাখে বিক্রি হলো বাটলারের সেই জার্সি  » «   সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত  » «   মধু ও কালোজিরায় করোনা থেকে যেভাবে সুস্থ হলাম: গভর্নর  » «   বিশ্বনবীর মিম্বর থেকে করোনা নিয়ে যা বললেন শাইখ সুদাইস  » «   জাফলংয়ে সাড়ে ৮শ’ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  » «   জাফলংয়ে অসহায় মানুষের পাশে ট্যুরিস্ট পুলিশ  » «   নিউইয়র্কে করোনায় বাংলাদেশ সোসাইটির নেতার মৃত্যু  » «   করোনা: আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ও মৃত্যু ৭৪ হাজার ছাড়িয়েছে  » «   শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে এক নারীর মৃত্যু  » «   করোনা ভাইরাস : ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পাইলট এখন ডেলিভারি ভ্যানের চালক  » «   ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আইসিইউতে  » «   করোনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্স আজ  » «   এবার করোনায় আক্রান্ত বাঘ  » «   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘন্টায় আরও ১২০০ জনের মৃত্যু  » «   ছোট অপরাধীদের মুক্তি দিতে চায় সরকার  » «  

আওয়ামী লীগের দুই মেয়র প্রার্থীর আহ্বান, উন্নয়ন চাইলে নৌকায় ভোট দিন

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::ঢাকাবাসীর জীবনযাত্রা উন্নয়নের কোনো রূপরেখা বিএনপি প্রার্থীদের নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের দুই মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও আতিকুল ইসলাম। একই সঙ্গে উন্নত, আধুনিক ও মানবিক ঢাকা গড়ে তুলতে সবার কাছে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন তারা।

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে শনিবার ১৬তম দিনের প্রচারণায় অংশ নিয়ে তারা এসব কথা বলেন। এদিকে ঢাকা উত্তরের আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম আজ সকাল সাড়ে ১০টায় লেকশোর হোটেলে তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন। অন্যদিকে দক্ষিণের প্রার্থী তাপস ২৮ অথবা ২৯ জানুয়ারি ঢাকাবাসীর সামনে তার নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করবেন।

উত্তরে নতুন ২৪টি পার্ক নির্মাণের আশ্বাস আতিকের : ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে নতুন ২৪টি পার্ক নির্মাণের আশ্বাস দিলেন এ সিটেতে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। একই সঙ্গে ঘোষণা দিলেন ঢাকাকে আধুনিক, মানবিক ও সবুজ নগরী হিসেবে গড়ে তোলার।

গড়ে তোলা হবে আরও ২৪টি পার্ক। সব বয়সের মানুষের জন্য নির্মিত বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ পার্কে রাখা হয়েছে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। আমরা আরও উন্নয়ন করতে চাই। আর এসব উন্নয়নের জন্য নৌকায় ভোট দেয়ার বিকল্প নেই। আতিক বলেন, আপনারা যদি আমাকে উন্নয়নের মার্কা নৌকায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেন, তাহলে আমি কথা দিতে চাই, একটি সুন্দর, সচল আধুনিক গতিময় ঢাকার যে স্বপ্ন, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে ইনশাআল্লাহ কাজ করে যাব।

দুপুরে ১৮নং ওয়ার্ডের নর্দ্দা এলাকার কালাচাঁদপুর মোড়ে নির্বাচনী সমাবেশে যোগ দেন আতিকুল ইসলাম। রোববার (আজ) নির্বাচনী ইশতেহার দেয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, রোববার আমার নির্বাচনী ইশতেহার দেব। সেখানে চমক থাকবে। আর সচল, সুস্থ ও মানবিক ঢাকা গড়ার অঙ্গীকার থাকবে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, আজ বাদে আর ছয়দিন আছে। এ ছয়দিনে সব ভোটারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইতে হবে। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভোটারদের গিয়ে বলতে হবে- ‘একটি আধুনিক ও যানজটমুক্ত শহর গড়তে নৌকায় ভোট দিতে।’

এরপর সাইকেল চালিয়ে কালাচাঁদপুর বাজারে প্রচার চালান আতিকুল ইসলাম। এ সময় তিনি বলেন, ঢাকা শহরকে পরিবেশবান্ধব করার জন্য সাইকেল লেন জরুরি। সাইকেলে আমরা আমাদের দৈনন্দিন যাতায়াত করতে পারি। অফিস-আদালতেও যেতে পারি। উন্নত বিশ্বে প্রায় সবাই সাইকেলে যাতায়াত করেন।

সাইকেলে অফিসে গেলে আমার সম্মান কিন্তু কমবে না বরং বাড়বে। তিনি বলেন, ৯ মাস দায়িত্ব পালনকালে আমি আগারগাঁওয়ে ১০ কিলোমিটারের একটি এক্সক্লুসিভ সাইকেল লেন করেছি। আবার নির্বাচিত হলে যতগুলো নতুন রাস্তা করার সুযোগ পাব, তার সবগুলোতেই সাইকেল লেন করার চেষ্টা করব।

সমাজে কিছু কারণে অসমতা সৃষ্টি হচ্ছে জানিয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, আজকাল সমাজে সমতার অভাবও দেখা যাচ্ছে। অনেকে তাদের কী কী ব্র্যান্ডের গাড়ি আছে, তা দেখাচ্ছে। এই দেখানো থেকে আমাদের বের হয়ে আসতে হবে। আমরা সবাই মানুষ। সবাই সবাইকে শ্রদ্ধা করব।

এদিকে কালাচাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কালাচাঁদপুর হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের মাঠে ১৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সমাবেশের আয়োজন করলেও আচরণবিধি লঙ্ঘন হবে জেনে তাতে যোগ দেননি আতিকুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এসএ মান্নান, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, উত্তরের ১৮নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী জাকির হোসেন, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হাসিনা বারী ও ১৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতারা।

এরপর যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে প্রগতি সরণিতে আতিকুল ইসলাম বলেন, আমি চাই না কোনো আচরণবিধি লঙ্ঘন হোক। এজন্য স্কুলের মাঠের সমাবেশ বাতিল করে দিয়েছি। এ কাজে কাউকে উৎসাহ দেব না। আমি চাই না নির্বাচনী প্রচারণায় কোনো শিশু বা ছাত্রছাত্রী থাকুক। এ সময় ১৭নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হাজী ইসহাক মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পাচ্ছি- তাপস : শনিবার সকালে বাবুবাজার ব্রিজের নিচ থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। এ সময় তিনি বলেন, আমরা উন্নয়নের যে রূপরেখা প্রকাশ করেছি, সেটা ঢাকাবাসী সাদরে গ্রহণ করেছেন। আমরা যেখানে যাচ্ছি বিপুল সাড়া পাচ্ছি। আশা করছি, ২৮ অথবা ২৯ তারিখের মধ্যে বিস্তারিত নির্বাচনী ইশতেহার ঢাকাবাসীর সামনে প্রকাশ করতে পারব।

তাপস বলেন, আমাদের ৫টি রূপরেখা। ঐতিহ্যের ঢাকা, সুন্দর ঢাকা, সুশাসিত ঢাকা, আমাদের সচল ঢাকা এবং উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্য ১ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন ঢাকাবাসীর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। এই নির্বাচনে ঢাকাবাসী তাদের রায় প্রদানের মাধ্যমে উন্নত ঢাকা গড়ার নবসূচনা, নবযাত্রা আমরা করতে চাই। আমি বিশ্বাস করি, ঢাকাবাসী নৌকায় তাদের রায় দিয়ে আমাকে সেবক হিসেবে নির্বাচিত করবে। আমাদের নিজ নিজ ওয়ার্ডে আমাদের কাউন্সিলরদের নির্বাচিত করে আমাদের পথচলাকে বেগবান করবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শেখ তাপস বলেন, আমরা গণসংযোগ করছি। নেতাকর্মীসহ ঢাকাবাসীর ঘরে ঘরে যাচ্ছি। ঢাকাবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পাচ্ছি। আমরা দ্বারে দ্বারে যাচ্ছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা লক্ষ করেছি, আমাদের প্রতিপক্ষ শুধু অভিযোগ নিয়ে ব্যস্ত। ঢাকাবাসীর জন্য কোনো উন্নয়নের রূপরেখা তাদের নেই। ঢাকাবাসীর জীবনযাত্রা উন্নয়নে কোনো কার্যক্রম নেই। তারা জাতীয় রাজনীতি নিয়ে ব্যস্ত। আমরা ঢাকাবাসীর উন্নয়ন নিয়ে ব্যস্ত, গণসংযোগ নিয়ে ব্যস্ত।

এদিকে ফজলে নূর তাপসের নির্বাচনী প্রচারকে সামনে রেখে সকাল থেকে বাবুবাজার ব্রিজ এলাকায় জড়ো হতে থাকেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ দলটির সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মিছিল ও নানা স্লোগানে তারা মুখর করে তুলে আশপাশের এলাকা। ফজলে নূর তাপস উপস্থিত হলে আওয়ামী লীগ সমর্থিত স্থানীয় কাউন্সিলর প্রার্থী ও নেতাকর্মীরা তার হাতে নৌকা প্রতীক তুলে দিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক আখতার হোসেন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদ কামালসহ নগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে কোতোয়ালি থানার ৩২ ও ৩৭নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী যথাক্রমে হাজী এমএ মান্নান ও আবদুর রহমান মিয়াজীকে পরিচয় করিয়ে দেন ফজলে নূর তাপস। এরপর দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে তিনি বিভিন্ন সড়কে গণসংযোগ করেন। এ সময় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এই মেয়র প্রার্থী বলেন, সুশৃঙ্খলভাবে প্রচার কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করবেন। যাতে রাস্তায় কোনো ধরনের যানজট সৃষ্টি না হয়।

খবর জানিয়েছে যুগান্তর

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.