সংবাদ শিরোনাম
বিক্ষোভ অব্যাহত রাখতে ও পুলিশে সংস্কারের আহ্বান ওবামার  » «   কিছু মানুষ আছে যারা কখনোই করোনায় আক্রান্ত হবেন না!  » «   করোনা পরিস্থিতিতে মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়েছে গর্ভবতীদের: এখন গর্ভধারণ না করার পরামর্শ  » «   উষ্ণতায় বেড়েছে বজ্রপাত সিলেট সহ সারাদেশে এক দিনেই নিহত ১২  » «   ব্যাংকে টাকা জমার খরচ বাড়ছে  » «   মানুষকে রক্ষার চেষ্টা করছি প্রাণপণে : প্রধানমন্ত্রী  » «   জগন্নাথপুরে অজ্ঞাতনামা লাশের পরিজয় পেতে পুলিশের সাহায্য কামনা  » «   গোয়াইনঘাটে আরও এক করোনা রোগী শনাক্ত: উপজেলায় মোট আক্রান্ত ৮  » «   জগন্নাথপুরে পুলিশ সদস্য সহ ২জন করোনায় আক্রান্ত  » «   দিরাইয়ে বজ্রপাতে ১৪ বছরের কিশোরের মৃত্যু  » «   তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে দেশে ফিরলেন ২ বাংলাদেশি  » «   সাংবাদিক ফয়সল আহমদ বাবলুর মাতৃবিয়োগ-গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের শোক  » «   দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে জাফলংয়ে যুবলীগ নেতা বহিষ্কার  » «   সাংবাদিক বাবলুর মাতার মৃত্যুতে সিলেট বিভাগীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক  » «   সিলেট বিভাগে নতুন করে আরও ৭৯ জনের করোনা শনাক্ত-মোট ১২৩৮  » «  

কলেরার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হচ্ছে আজ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক:দেশে ডায়রিয়া ও কলেরার প্রকোপ কমাতে আজ বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে টিকাদান কর্মসূচি। ছয়দিনব্যাপী এই টিকাদান কর্মসূচি চলবে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ।

ঢাকা সিটি করপোরেশনের অন্তর্গত মোহাম্মদপুর, আদাবর দারুস সালাম, কামরাঙ্গীরচর, হাজারীবাগ ও লালবাগ এলাকার ১৬টি ওয়ার্ডে (৯, ১০, ১৪, ২২-২৫, ২৯-৩৪, ৫৫-৫৭) এই টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর মহাখালিস্থ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মিলনায়তনে এ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্র শাখার ডিরেক্টর ও সিডিসি’র লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. শাহনীলা ফেরদৌস লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন।

সিটি করপোরেশনের স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রসহ ৩৬০ টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই টিকা দেয়া হবে। তবে কর্মজীবীদের সুবিধার্থে কিছু কিছু টিকাদান কেন্দ্র সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত খোলা রাখা হবে। এক বছর এবং তদুর্ধ বয়সি মানুষের জন্য এই টিকাদান কর্মসূচি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ২০৩০ সালের মধ্যেকলেরা নির্মূলের দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখা বাংলাদেশের জন্য কলেরা কন্ট্রোল প্লান ২০১৯-২০৩০ গ্রহণ করে, যেখানে পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি কলেরা টিকাদানকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গ্লোবাল টাক্সফোর্স অন কলেরা কন্ট্রোল (জিটিএফসিসি)-এর মাধ্যমে ইউনিসেফের সহায়তায় চব্বিশ লাখ মুখে খাওয়ার কলেরা টিকা সংগ্রহ করা হয়েছে, যা একমাস অন্তর অন্তর ২টি ডোজের মাধ্যমে একবছর থেকে তদূর্ধ্ব বয়সীদেরকে প্রদান করা হবে।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি এবং ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (উত্তর ও দক্ষিণ)-এর সহায়তায় আইসিডিডিআর,বি এই টিকাদান কার্যμম পরিচালনা করবে। দক্ষিণ কোরিয়ার ইউবায়োলোজি কো. লিমিটেডের তৈরি ইউভিকল প্লাস নামের মুখে খাওয়ার এই কলেরা টিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনপ্রাপ্ত ও নিরাপদ। প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকার ৬টি এলাকায় শুরু হলেও পর্যায়μমে ঢাকার কলেরা প্রবণ অন্যান্য এলাকা এবং সারা বাংলাদেশের কলেরা প্রবণ এলাকাতেও এই টিকাদান কর্মসূচি চলবে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.