সংবাদ শিরোনাম
করোনা: বিশ্ব কাঁপানো মার্কিন রণতরী থেকে বাঁচার আকুতি  » «   ভারতে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ২৪০ জন  » «   ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন জারি, অফিস খুলবে ১২ এপ্রিল  » «   করোনা:সিলেটে নতুন করে ৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে  » «   জগন্নাথপুরে করোনা সংক্রামন রোধে পুলিশের বিভিন্ন বাজারে প্রচারণা  » «   ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বড়ো পরীক্ষা করোনা’  » «   যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড ৮৬৫ জনের মৃত্যু  » «   করোনা: ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের ঋণের কিস্তি পরিশোধে চাপ দিতে পারবেনা  » «   শৈশবে দেয়া বিসিজি টিকা বাঁচাবে করোনা থেকে!  » «   দিরাইয়ে রাস্তার পাশে পড়ে থাকা অসুস্থ অজ্ঞাত এক ব্যক্তি উদ্ধার  » «   নগরীর খাসদবীরে মাসুকের উদ্যোগে সুবিধাবঞ্চিতদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন শুরু  » «   ওসমানীনগরে মানা হচ্ছে না নিরাপদ দূরত্ব: প্রশাসনের নিরব ভূমিকা  » «   করোনা:জগন্নাথপুরে প্রত্যেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ সহকারী পুলিশ সুপারের  » «   জগন্নাথপুরে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর যৌথ উদ্যোগে সচেতনামূলক প্রচারনা  » «   সিলেটে হাসপাতাল কোয়ারেন্টাইনে কিশোরীর মৃত্যু: গ্রামের বাড়ী জালালপুরে দাফন সম্পন্ন  » «  

মালয়েশিয়া একরাতেই গ্রেফতার ১৩১ বাংলাদেশী

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::মালয়েশিয়া জুড়ে পরিচালিত অবৈধ অভিবাসী বিরোধী অভিযানে রাজধানী কুয়ালালামপুরের ডেসা পার্ক সিটিতে অভিযান চালিয়ে একরাতে গ্রেফতার একশত ৩১ বাংলাদেশী।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে বারোটায় কুলালালাপুর অভিবাসন বিভাগের নেতৃত্বে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে ২৫৩ জনকে গ্ৰেফতার। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে বাংলাদেশের ১৩১, ইন্দোনেশিয়ার ১১২, পাকিস্তান ও মায়ানমারের নাগরিক একজন। কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশনের পরিচালক হামিদি এডাম জানান, তথ্য ও বুদ্ধিমত্তার কারণে “অভিযানে বিভিন্ন অভিবাসন অপরাধে ২৫ থেকে ৪৮ বছর বয়সী ৩৬ মহিলাসহ ২৫৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

হামিদী বলেন, তদন্তে দেখা গেছে যে দক্ষিণ-পশ্চিম হাইওয়ে প্রকল্পের (পিএলইউএস) মালিকানাধীন এই অঞ্চলটি অবৈধভাবে বাড়িঘর এবং খাবারের দোকান খুলে ব্যবসা পরিচালনা করতো।তিনি বলেন, আটককৃতদের বেশিরভাগই আশেপাশের কাজ করা নির্মাণকর্মী ।

গ্রেফতারের শিকার অদিকাংশ অভিবাসীদের কাজের ভিসা শেষ হওয়ার পরও অবস্থান এবং জাল ভিসা পাওয় যায়।

তিনি বলেন, ইমিগ্রেশন রেগুলেশন ১৯৬৩ এর বিধি ৩৯ (খ) এবং ইমিগ্রেশন আইন ১৯৫৯ / ৬৩ অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর বরাত দিয়ে একাধিক সংবাদমাধ্যম জানায়, এখন থেকে ইমিগ্ৰেশন বাহিনীর হাতে আটক কাগজপত্র বিহীন বিদেশি অভিবাসিদের আটকের পর বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

অভিবাসন সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়া জুড়ে অভিবাসন বিভাগের চৌদ্দটি ক্যাম্প রয়েছে, যেখানে ইমিগ্রেশন ও পুলিশের অভিযানে আটককৃতদের ওই ক্যাম্পে রাখার পর স্থানীয় আদালতে বিচারের জন্য সোপর্দ করা হয়। এছাড়াও শাস্তির মেয়াদ শেষ হলে ওই ক্যাম্পে দেশে ফেরার জন্য অপেক্ষা করতে হয় অভিবাসীদের। আর এই বিশেষ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে দ্রুত বিচার কার্যক্রম এবং দীর্ঘ পথ অতিক্রম এর সফলতা আসবে বলে সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.