সংবাদ শিরোনাম
দ্বিতীয়বারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে বর্ষসেরা অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক  » «   বিএনপি উঠে দাঁড়াবে ফিনিক্স পাখির মতো এবং জয়ী হবে-ফখরুল  » «   করোনা:বিশ্বে এ পর্যন্ত ৫ লাখ ২৬ হাজার ৬৬৩ জনের মৃত্যু  » «   রাজপরিবার ছেড়ে স্বস্তিতে নেই হ্যারি-মেগান দম্পতি  » «   ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো ৫৫ জনের মৃত্যু:মোট ২০৫২জন  » «   জার্মানিতে আইনশাস্ত্রে সফলতার সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন সিলেটের রুবায়া  » «   আগামীকাল মঙ্গলবার সিলেট নগরীর যে সব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না  » «   জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ-হলিকোনা বাজারের রাস্তার বেহাল দশা দেখার কেউ নাই!!  » «   জগন্নাথপুরে আমজনতার উদাসীনতায় ক্রমে বাড়ছে করোনা পজেটিভ মোট আক্রান্ত ৯৩  » «   সীমান্ত এলাকায় অপরাধ রোধে জনসচেনতামূলক সভা  » «   ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল: ৩০০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে শাস্তির সুপারিশ  » «   জাপানে বন্যা:ভূমিধসে অন্তত ২০ জনের মৃত্যু  » «   ‘হেরে আমাদের কাছে মাফ চাইতো ভারতের ক্রিকেটাররা’  » «   মিশরের সেই যৌন নির্যাতনকারী গ্রেপ্তার  » «   পাকিস্তানে ট্রেন দূর্ঘটনায় নিহত ১৯  » «  

ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ : তিন সৌদি প্রিন্স আটক

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ক্ষমতার দ্বন্দ্বের জেরে সৌদি রাজপরিবারের তিন প্রবীণ সদস্য আটক হয়েছেন। আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ তোলা হয়েছে। আটকদের দুইজন রাজপরিবারের খুবই প্রভাবশালী সদস্য। এদের একজন বাদশাহ সালমানের এক ভাই প্রিন্স আহমেদ বিন আব্দুলআজিজ আল-সৌদ, অপরজন ভাতিজা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফ। এছাড়াও আটক হয়েছেন প্রিন্স নাওয়াফ বিন নায়েফ।

ধারণা করা হচ্ছে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের (এমবিএস) ক্ষমতা নিরঙ্কুশ করতেই তাদের আটক করা হয়েছে। অজ্ঞাত সূত্রের বরাতে এ সংবাদ দিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

পত্রিকাটি জানায়, ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগে গতকাল ৬ মার্চ, শুক্রবার সকালে কালো পোশাকধারী রাজরক্ষীরা তাদেরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। এসময় তাদের বাড়িতেও তল্লাশি চালানো হয়।

এর আগে ২০১৭ সালে যুবরাজ মোহাম্মদের নির্দেশে ডজনখানেক রাজকীয় ব্যক্তিত্ব, মন্ত্রী ও ব্যবসায়ীকে দেশটির রাজধানী রিয়াদের রিজ-কার্লটন হোটেলে অন্তরীণ করা হয়। ওই বছর মোহাম্মদ বিন নায়েফকেও গৃহবন্দী করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মোহাম্মদ বিন সালমান।

আটকদের দুই জনের বিরুদ্ধে সৌদি রাজ আদালত অভিযোগ এনেছে বলেও খবরে জানা গেছে।  এদের একজন প্রিন্স আহমেদ বিন আব্দুলআজিজ আল-সৌদ রাজসিংহাসনের একজন দাবিদার। তারা বাদশাহ ও যুবরাজকে উৎখাতের জন্য ষড়যন্ত্র করছিলেন এমন অভিযোগ তোলা হয়েছে, যার ফলে তাদের বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা মৃত্যুদণ্ডাদেশও দেয়া হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক  র‌্যান্ড কর্পোরেশনের নীতিবিশ্লেষক বেকা ওয়াসের এ বিষয়ে বলেন, ‘যুবরাজ মোহাম্মদ আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন। তার উত্থানের ক্ষেত্রে সব হুমকি ইতিমধ্যে তিনি সরিয়ে দিয়েছেন।’

পাল্টা প্রতিক্রিয়া ছাড়াই যুবরাজ সমালোচকদের হত্যা করছেন উল্লেখ করে তিনি আরো জানান, ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করতে এটা তার আরো বড় পদক্ষেপ।

এই বিশ্লেষকের ভাষ্য, ‘তাকে যাতে অতিক্রম করার চেষ্টা করা না হয়, নতুন এই ধরপাকড়ের মাধ্যমে রাজপরিবারের সদস্যদের তিনি সেই বার্তাটিই দিতে চেয়েছেন।’

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.