সংবাদ শিরোনাম
বিক্ষোভ অব্যাহত রাখতে ও পুলিশে সংস্কারের আহ্বান ওবামার  » «   কিছু মানুষ আছে যারা কখনোই করোনায় আক্রান্ত হবেন না!  » «   করোনা পরিস্থিতিতে মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়েছে গর্ভবতীদের: এখন গর্ভধারণ না করার পরামর্শ  » «   উষ্ণতায় বেড়েছে বজ্রপাত সিলেট সহ সারাদেশে এক দিনেই নিহত ১২  » «   ব্যাংকে টাকা জমার খরচ বাড়ছে  » «   মানুষকে রক্ষার চেষ্টা করছি প্রাণপণে : প্রধানমন্ত্রী  » «   জগন্নাথপুরে অজ্ঞাতনামা লাশের পরিজয় পেতে পুলিশের সাহায্য কামনা  » «   গোয়াইনঘাটে আরও এক করোনা রোগী শনাক্ত: উপজেলায় মোট আক্রান্ত ৮  » «   জগন্নাথপুরে পুলিশ সদস্য সহ ২জন করোনায় আক্রান্ত  » «   দিরাইয়ে বজ্রপাতে ১৪ বছরের কিশোরের মৃত্যু  » «   তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে দেশে ফিরলেন ২ বাংলাদেশি  » «   সাংবাদিক ফয়সল আহমদ বাবলুর মাতৃবিয়োগ-গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের শোক  » «   দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে জাফলংয়ে যুবলীগ নেতা বহিষ্কার  » «   সাংবাদিক বাবলুর মাতার মৃত্যুতে সিলেট বিভাগীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক  » «   সিলেট বিভাগে নতুন করে আরও ৭৯ জনের করোনা শনাক্ত-মোট ১২৩৮  » «  

ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ : তিন সৌদি প্রিন্স আটক

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::ক্ষমতার দ্বন্দ্বের জেরে সৌদি রাজপরিবারের তিন প্রবীণ সদস্য আটক হয়েছেন। আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ তোলা হয়েছে। আটকদের দুইজন রাজপরিবারের খুবই প্রভাবশালী সদস্য। এদের একজন বাদশাহ সালমানের এক ভাই প্রিন্স আহমেদ বিন আব্দুলআজিজ আল-সৌদ, অপরজন ভাতিজা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফ। এছাড়াও আটক হয়েছেন প্রিন্স নাওয়াফ বিন নায়েফ।

ধারণা করা হচ্ছে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের (এমবিএস) ক্ষমতা নিরঙ্কুশ করতেই তাদের আটক করা হয়েছে। অজ্ঞাত সূত্রের বরাতে এ সংবাদ দিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

পত্রিকাটি জানায়, ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগে গতকাল ৬ মার্চ, শুক্রবার সকালে কালো পোশাকধারী রাজরক্ষীরা তাদেরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। এসময় তাদের বাড়িতেও তল্লাশি চালানো হয়।

এর আগে ২০১৭ সালে যুবরাজ মোহাম্মদের নির্দেশে ডজনখানেক রাজকীয় ব্যক্তিত্ব, মন্ত্রী ও ব্যবসায়ীকে দেশটির রাজধানী রিয়াদের রিজ-কার্লটন হোটেলে অন্তরীণ করা হয়। ওই বছর মোহাম্মদ বিন নায়েফকেও গৃহবন্দী করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মোহাম্মদ বিন সালমান।

আটকদের দুই জনের বিরুদ্ধে সৌদি রাজ আদালত অভিযোগ এনেছে বলেও খবরে জানা গেছে।  এদের একজন প্রিন্স আহমেদ বিন আব্দুলআজিজ আল-সৌদ রাজসিংহাসনের একজন দাবিদার। তারা বাদশাহ ও যুবরাজকে উৎখাতের জন্য ষড়যন্ত্র করছিলেন এমন অভিযোগ তোলা হয়েছে, যার ফলে তাদের বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা মৃত্যুদণ্ডাদেশও দেয়া হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক  র‌্যান্ড কর্পোরেশনের নীতিবিশ্লেষক বেকা ওয়াসের এ বিষয়ে বলেন, ‘যুবরাজ মোহাম্মদ আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন। তার উত্থানের ক্ষেত্রে সব হুমকি ইতিমধ্যে তিনি সরিয়ে দিয়েছেন।’

পাল্টা প্রতিক্রিয়া ছাড়াই যুবরাজ সমালোচকদের হত্যা করছেন উল্লেখ করে তিনি আরো জানান, ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করতে এটা তার আরো বড় পদক্ষেপ।

এই বিশ্লেষকের ভাষ্য, ‘তাকে যাতে অতিক্রম করার চেষ্টা করা না হয়, নতুন এই ধরপাকড়ের মাধ্যমে রাজপরিবারের সদস্যদের তিনি সেই বার্তাটিই দিতে চেয়েছেন।’

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.