সংবাদ শিরোনাম
জগন্নাথপুরে ৫০০ মসজিদে প্রধানমন্ত্রী সহায়তার চেক বিতরণ  » «   সুনামগঞ্জে র‍্যাবের ১৪ সদস্যসহ একদিনে ৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত রেকর্ড,এ নিয়ে মোট ২১৩  » «   জগন্নাথপুরে হাওর থেকে এক অঞ্জাতনামা ব্যক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ১ ব্যক্তি: মোট ১০, সুস্থ ৬, আইসোলেশনে ৪  » «   দোয়ারাবাজারে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ১০  » «   সিলেটে দক্ষিণ সুরমায় দু’দল বাস শ্রমিকের মধ্যে দেড় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষ  » «   করোন:এক দিনে ৯৩ জন আক্রান্ত সিলেট বিভাগে:মোট ১০৪০ জন  » «   ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডুবিতে নিহত ৩৬: এ মামলার প্রধান আসামি রফিকুল গ্রেফতার  » «   সিলেট থেকে বাস চলাচল শুরু  » «   ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ঔষধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   সুনামগঞ্জে চেয়ারম্যানের অপসারনের দাবীতে অভিযোগ দায়ের  » «   সুনামগঞ্জে র‍্যাব ক্যাম্পের ১৬ জন সদস্যসহ মোট ২১ জন করোনায় আক্রান্ত  » «   জগন্নাথপুরে মানসিক রোগী দীর্ঘ এক বছর পর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফিরে পেল পরিবার  » «   রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ১৯-২০ বছরের উন্মুক্ত বাজেট পেশ  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরেক জন  » «  

জগন্নাথপুরে মিলছে না স্যাভলন হেক্সিসল

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::সারা দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে ভাইরাস থেকে আক্রমণ প্রতিরোধের ওষুধ ও সার্জিক্যাল সামগ্রীর চাহিদা। কিন্তু সেভাবে উৎপাদন ও বাজারজাত বৃদ্ধি না পাওয়ায় প্রয়োজন মেটাতে পারছে না। বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে এ সব পণ্যসামগ্রী।
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার বিভিন্ন বাজারে ঘুরে এমন চিত্র মিলেছে। করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে ধরা পড়ার পর থেকে এসব পণ্যের যে চাহিদা বাড়তে শুরু করে, সে সুযোগে এসব পণ্যের দাম বাড়িয়ে দেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে কয়েকজনকে জরিমানা করায় তারা কিছুটা সংযত হয়। উপজেলার বিভিন্ন বাজারের ওষুধের দোকান ও ডিপার্টমেন্টাল স্টোরগুলোতে হাত ধোয়ার স্যানিটাইজারের জন্য গেলে পাওয়া যাচ্ছে না। দুয়েকটি দোকানে পাওয়া গেলে পরিমাণ কম।
এ বিষয়ে বাজার ব্যবসায়ীরা জানান, স্যাভলন ও হেক্সিসল মূলত চারটি প্রতিষ্ঠান সরবরাহ করে। এগুলো হলো এসিআই, অফসোনিন ও কাজী ফার্মাসিউটিক্যাল। এর বাইরে আরও কোম্পানি এ স্যানিটাইজার ও স্যাভলনের উৎপাদন করলেও এ সব এলাকায় পাওয়া যায় না। সপ্তাহের জন্য ৫ থেকে ১০ প্যাকেট হেক্সিসল ও স্যাভলন রাখলেও একদিনেই শেষ হয়ে যাচ্ছে। এরপর গ্রাহক এলে আর দেওয়া যাচ্ছে না। তবে বাজার ব্যাবসায়ীরা জানান স্যানিটাইজারের কোনো সংকট হওয়ার আশঙ্কা নেই।

পোস্ট/এস এ/জি পি

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.