সংবাদ শিরোনাম
র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার আলম স্ত্রীসহ করোনা আক্রান্ত  » «   করোনায় আক্রান্ত ছয় হাজার পুলিশ, মৃত্যু ১৯  » «   ভারতে ফের একদিনে রেকর্ড ৯,৯৭১ আক্রান্ত  » «   সিলেটে নতুন করোনায় আক্রান্ত আরো ৪ চিকিৎসক  » «   বালাগঞ্জে বজ্রপাতে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু  » «   ধেয়ে আসছে তিন দৈত্যাকার গ্রহাণু  » «   অধ্যাপক গোলাম রহমানের পুরো পরিবার করোনা আক্রান্ত  » «   লকডাউনে হেয়ার কাট, জরিমানা দিতে হল নয় লাখ টাকা!  » «   নিষিদ্ধ হচ্ছে পুলিশের হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরা  » «   ট্রাম্পকে হারাতে নির্বাচনী লড়াইয়ে মনোনয়ন পেলেন বাইডেন  » «   মার্কিন তরুণীকে পাকিস্তানি মন্ত্রীর ধর্ষণ, হাত তোলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   যুক্তরাজ্যে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরাতে দ্বিতীয় বিশেষ ফ্লাইট  » «   অসুস্থ মাকে হাসপাতালের গেটে ফেলে ছেলে উধাও  » «   নাসিমের অবস্থা সংকটাপন্ন, মেডিকেল বোর্ড গঠন  » «   রবিবার থেকে নতুন নিয়মে লকডাউন  » «  

জাফলংয়ে মামার বাজার মার্কেটের ভাড়া মওকুফ করলেন আমজাদ

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি::সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলংয়ের ঐতিহ্যবাহী মামার বাজার আমজাদ মার্কেটের ১১০টি দোকান এবং ১৫টি বাসা ভাড়া অর্ধেক মওকুফ করলেন মার্কেটের স্বত্বাধিকারী মৃত সৈয়দ বকস্ উরফে মামার সন্তান আমজাদ বকস্।
মহামারী করোনাভাইরাসের আতঙ্কে অনেকেই এখন গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন। তাছাড়া কোনো রকম কাজ না থাকায় এখন কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বেশিরভাগ ব্যবসায়ী ও শ্রমিক। তাই অনেকটা অনাহার আর অর্ধাহারে জীবনযাপন করছেন তারা। দেশের এমন পরিস্থিতে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী এবং ভাড়াটে তাদের সংসার চালাতে এমনিতেই হিমশিম খাচ্ছেন।
তাই সব দিক বিবেচনা করে মামার বাজার আমজাদ মার্কেটের স্বত্বাধিকারী আমজাদ বকস্ তার মার্কেটের ১১০টি দোকান এবং বাসার আরও ১৫টি ঘরের এপ্রিল ও মার্চ মাসের ভাড়া অর্ধেক মওকুফ করেছেন।
এ ব্যাপারে মামার বাজার আমজাদ মার্কেটের স্বত্বাধিকারী সৈয়দ আমজাদ বকস্ বলেন, দেশের বর্তমান পরিস্থিতে সরকারি নির্দেশনায় সব মানুষ এখন ঘরবন্দি হয়ে বসবাস করছেন। এমন পরিস্থিতিতে আমার মার্কেটে থাকা ১১০টি দোকানের ব্যবসায়ীরা চরম অসহায় অবস্থায় জীবনযাপন করছেন। ঠিকমতো ব্যবসা না করতে পাররায় তাদের পরিবার চালাতে অনেকটা হিমশিম খাচ্ছেন। তাদের এমন পরিস্থিতে আমি আমার মার্কেটের ১১০টি দোকান ভাড়া অর্ধেক মওকুফ করলাম। একই সাথে আমার বাড়িতে থাকা আরও ১৫টি অসহায় পরিবারের বাসা ভাড়াও মওকুফ করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাই ভবিষ্যতে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি যদি আরও ভয়াবহ হয় তাহলে তাদের প্রতি আরেকটু সহানুভূতি করার চেষ্টা করবো বলে তিনি জানান।
তিনি অন্যান্য মার্কেট মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, এখনই সময় অসহায় ব্যবসায়ীর পাশে দাঁড়ানোর। দেশের এমন পরিস্থিতিতে বিপদে থাকা ব্যবসায়ী ও ভাড়াটেদের পাশে দাঁড়ানো সব মার্কেট এবং বাসা মালিকদের নৈতিক দায়িত্ব। তাই দয়া করে সামর্থ অনুযায়ী তাদের এক মাস, দুই মাস কিংবা অর্ধেক ভাড়া মওকুফ করুন। তারাও বাঁচল, আপনিও বাঁচলেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.