সংবাদ শিরোনাম
ভক্তদের সারপ্রাইজ দিলেন মুশফিক  » «   করোনাকালে হাসপাতালেই হলো ডাক্তার আর নার্সের বিয়ে  » «   স্টেশনেই মরে পড়ে আছে মা, জাগাতে চেষ্টা করছে শিশু!  » «   করোনা মোকাবিলায় সফল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে নিউজিল্যান্ড  » «   করোনা: দেশে একদিনে মৃত্যু ২২, নতুন শনাক্ত ১৫৪১  » «   স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে  » «   ঈদের ছুটি নিলেন না আনোয়ারা খান হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সরা  » «   বাড়ছে না সাধারণ ছুটি, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে অফিস  » «   খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন মান্না  » «   ‘বিএনপি রাজনৈতিক আইসোলেশনে রয়েছে’  » «   রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড:করোনাভাইরাস আক্রান্ত পাঁচ রোগীর মৃত্যু  » «   সিলেটে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা:এক দিনে ৪২ জন শনাক্ত  » «   জাফলংয়ে বাড়ছে পানি, বাঁধ রক্ষার আকুতি  » «   জগন্নাথপুরে নারায়নগঞ্জ ফেরত ৭ জন কোয়ারেন্টাইনে  » «   জগন্নাথপুরে মাছ শিকার উৎসব  » «  

করোনায় খুশির হাওয়া, পুত্র সন্তানের বাবা হলেন জনসন

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::প্রায় একমাস ধরে টানাপোড়েনের পর করোনাযুদ্ধে জয়ী হয়ে সোমবার প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ফেরেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এর মধ্যে এল সুখবর। বাবা হলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী। সূত্রের খবর, বান্ধবী ক্যারি সিমন্ডস জন্ম দিয়েছেন পুত্র সন্তানের। বুধবার সকালে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ওই সদ্যোজাতের জন্ম হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, মা ও শিশু পুরোপুরি সুস্থ রয়েছে।

সন্তানের হওয়ার খবর শুনে চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন বরিস ও তার বান্ধবী ক্যারি সিমন্ডস। এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘ক্যারি সিমন্ডস আজ সকালে লন্ডনের একটি হাসপাতালে একটি সুস্থ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন।

এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানে তাঁর বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষা করা হয়। এর পর তাঁর অবস্থার অবনতি হলে ICU-তে পাঠানো হয়। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর বাড়িতেই চিকিত্সাধীন ছিলেন বরিস। কিন্তু, শ্বাসকষ্ট শুরু হলে, হাসপাতালে ভরতি করে অক্সিজেন দিতে হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বরিসকে আইসিইউতে শিফট করার খবর নিশ্চিত করা হয়েছিল। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর করোনার লক্ষণগুলি জোরালো হচ্ছে, তবে তিনি সজ্ঞানেই রয়েছেন। করোনা ধরা পড়ার ১০ দিন পর প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে ভরতি করে অক্সিজেন দেওয়া হয়। রিপোর্ট পজিটিভ আসার পরেও ১০ দিন ধরে বাড়িতেই ছিলেন বরিস জনসন। ঘরে বসেই তিনি অনলাইনে সব ধরনের কাজ করছিলেন। এর পর প্রায় একমাস ধরে চলে তাঁর টানাপোড়েন। অবশেষে করোনাকে হারিয়ে যুদ্ধে জয়ী হন তিনি। সোমবার থেকে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ফিরছেন তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.