সংবাদ শিরোনাম
জগন্নাথপুরে হাওর থেকে এক অঞ্জাতনামা ব্যক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ১ ব্যক্তি: মোট ১০, সুস্থ ৬, আইসোলেশনে ৪  » «   দোয়ারাবাজারে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ১০  » «   সিলেটে দক্ষিণ সুরমায় দু’দল বাস শ্রমিকের মধ্যে দেড় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষ  » «   করোন:এক দিনে ৯৩ জন আক্রান্ত সিলেট বিভাগে:মোট ১০৪০ জন  » «   ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডুবিতে নিহত ৩৬: এ মামলার প্রধান আসামি রফিকুল গ্রেফতার  » «   সিলেট থেকে বাস চলাচল শুরু  » «   ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ঔষধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু  » «   সুনামগঞ্জে চেয়ারম্যানের অপসারনের দাবীতে অভিযোগ দায়ের  » «   সুনামগঞ্জে র‍্যাব ক্যাম্পের ১৬ জন সদস্যসহ মোট ২১ জন করোনায় আক্রান্ত  » «   জগন্নাথপুরে মানসিক রোগী দীর্ঘ এক বছর পর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফিরে পেল পরিবার  » «   রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ১৯-২০ বছরের উন্মুক্ত বাজেট পেশ  » «   জগন্নাথপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আরেক জন  » «   জগন্নাথপুরে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা জরিমানা আদায়  » «   গোয়াইনঘাটে এসএসসিতে পাশের হার ৭৯.২৭ জিপিএ ৪৫ জন  » «  

নগরীতে মিলেছে এডিস মশার লার্ভা:করোনার সাথে নতুন আতঙ্কে নগরবাসী

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::সিলেটে করোনাভাইরাসের মধ্যে আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেছে ডেঙ্গু। সিলেট নগরীতে মিলেছে এডিস মশার লার্ভা। এরপর থেকে করোনার সাথে নগরবাসীর মধ্যে নতুন আতঙ্ক হিসেবে যুক্ত হয়েছে ডেঙ্গু। ডেঙ্গু প্রতিরোধে সিটি করপোরেশনও প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। সিলেট নগরীর দুটি ওয়ার্ডকে অতি ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করে তারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে করোনা পরিস্থিতির কারনে এবার ডেঙ্গু প্রতিরোধে বেশ বেগ পেতে হবে বলে মনে করছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) কর্মকর্তারা।

সিসিক সূত্র জানায়, গত ২৬ এপ্রিল নগরীর ২৬ নং ওয়ার্ডে এডিস মশার লার্ভার সন্ধান পায় সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা। কিনব্রিজের দক্ষিণ প্রান্ত থেকে রেলওয়ে স্টেশনগামী সড়কের পাশে একটি সেনিটারি সামগ্রীর দোকানের সামনে রাখা কমোডের ভেতরে লার্ভার সন্ধান পান তারা। এরপর ডেঙ্গুর বিস্তার নিয়ে আতঙ্ক ছড়ায় স্থানীয় লোকজনের মধ্যে। গত বছরও পাশর্^বর্তী ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে পুরনো টায়ারের দোকানের সামনে রাখা টায়ারের মধ্যে প্রথম ডেঙ্গু মশার অস্তিত্ব পেয়েছিল সিটি করপোরেশন। এই দুটি ওয়ার্ডে প্রচুর সংখ্যক টায়ার ও স্যানেটারি সামগ্রীর দোকান থাকায় ওয়ার্ড দুটিকে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ ধরে বিশেষ প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে সিটি করপোরেশন।

সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য শাখা সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে ২৪, ২৫, ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে এডিস মশার অস্তিত্ব খোঁজার কাজ শেষ হয়েছে। এর মধ্যে শুধুমাত্র ২৬নং ওয়ার্ডের একটি স্থানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। আগামী সপ্তাহে নগরীর বাকি ২৩টি ওয়ার্ডে লার্ভার খোঁজে অভিযানে নামবে করপোরেশনের স্বাস্থ্য শাখার কর্মীরা।

সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম সুমন জানান, গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে সিলেটে মশক নিধন অভিযান শুরু হয়েছিল। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে কিছুদিন ঔষধ ছিটানো বন্ধ থাকার পর ফের শুরু হয়েছে এই কার্যক্রম। ২৫ ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ড ছাড়া বাকি ওয়ার্ডগুলোতে ইতোমধ্যে মশার ঔষধ ছিটানো শেষ হয়েছে। শনিবার থেকে এ দুটি ওয়ার্ডে মশক নিধন কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানান তিনি।

গত বছর সিলেটের ৫টি ওয়ার্ডে এডিস মশার অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছিল। এবারও ওই পাঁচটি ওয়ার্ডকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে সিটি করপোরেশন। তবে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে ২৫ ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ডকে। ওই দুই ওয়ার্ডের কদমতলী, ভার্থখলা ও আশপাশ এলাকায় স্যানেটারি সামগ্রী, গাড়ির পুরনো যন্ত্রাংশ ও গাড়ির পুরনো টায়ারের দোকান থাকায় ওই এলাকাকে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছে সিটি করপোরেশন। এসব দোকানের সামনে রাখা স্যানেটারি সামগ্রী, গাড়ির পুরনো যন্ত্রাংশ ও টায়ার ফেলে রাখায় বৃষ্টির পানি জমে এডিসি মশার প্রজননের ক্ষেত্র তৈরি হয়। গত বছরও কয়েকটি দোকানের সামনে রাখা টায়ারে এডিস মশার অস্তিত্ব পেয়েছিল সিটি করপোরেশন।

গত বছর বাসা-বাড়িতে ঢুকে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা ও স্বাস্থ্য শাখার কর্মীরা ঔষধ ছিটানো ও এডিস মশার উৎসস্থল ধ্বংস করলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার তা সম্ভব হবে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদ বলেন, ‘এই সময়ে সিটি করপোরেশনের কর্মীদের অনেকেই বাসা-বাড়ির ভেতরে ঢুকতে দেবেন না। তাই ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিকেই আপাতত বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। এডিস মশার উৎসস্থল অর্থাৎ বাসা-বাড়ির ভেতরে যাতে কোথাও বৃষ্টির পানি না জমে থাকে সেজন্য মানুষকে সচেতন করতে মাইকিং করা হচ্ছে। শনিবার থেকে মাইকিং আরো জোরদার করা হবে। তবে লকডাউনের নামে অনেক পাড়া-মহল্লার প্রবেশপথ বন্ধ করে দেওয়ায় ভেতরে মাইকিং করা যাচ্ছে না।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.