সংবাদ শিরোনাম
কুলাউড়ায় জমির দলিল সহ ১১০ পরিবারের কাছে ঘরের চাবি হস্থান্তর  » «   কুলাউড়ার ব্রাহ্মনবাজারে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষায় তন্ত্রমন্ত্র, নিয়োগ বাতিল-স্কুলের নাইট গার্ড আটক  » «   কুলাউড়ায় পুলিশের সহযোগীতায় বৃদ্ধা মহিলাকে ঘর উপহার  » «   ওসমানীনগরের জমির আহমদ ছিলেন ‘আলোর ফেরিওয়ালা’   » «   কুলাউড়ায় নারী কেলেঙ্কারির হোতাকে ধরায় উল্টো স্টাফদের চাকুরীচূত্যের হিড়িক  » «   জগন্নাথপুর ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান আর নেই:বিভিন্ন মহলের শোক  » «   মুজিববর্ষে সুনামগঞ্জে ৪০৭ দরিদ্র গৃহহীন পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রীর  দেয়া উপহার ঘর  » «   কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সেক্রেটারির রোগমুক্তি কামনায় সুনামগঞ্জে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল  » «   ওসমানীনগরে এক কিলোমিটারে ৫টি বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখে সড়ক সংস্কার, খোঁড়াখুঁড়িতে বছরপার  » «   ওসমানীনগরে চালককে খুন করে রিকশা ছিনতাই  » «   বঙ্গবন্ধু আর বাংলাদেশ একই সূত্রে গাঁথা বাংলাদেশ কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না.মন্ত্রী ইমরান  » «   সুনামগঞ্জে রেস্তোরাঁর কর্মচারীর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা  » «   দর্শকদের প্রশংসার জোয়ারে ভাসছে ‘জানোয়ার’  » «   তারকা ও সাংবাদিকদের জন্য নতুন নিরাপত্তাসুবিধা ফেসবুকের  » «   জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম কাদের সহ সকলের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল  » «  

চীনই দেবে সারা বিশ্বে করোনার ভ্যাকসিন ; প্রস্তুতি সম্পন্ন

  • 269
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    269
    Shares

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::গোটা বিশ্ব জুড়েই বিজ্ঞানীরা হন্যে হয়ে খুঁজছেন করোনার প্রতিষেধক। এখনো নির্ভরযোগ্য কোন ওষুধের সন্ধান তারা দিতে পারেনি। তবে এরমধ্যেই চিন কিন্তু বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন প্ল্যান্ট প্রতিষ্ঠা করে ফেলেছে।

চিনের এই ভ্যাকসিন প্ল্যান্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়, একবার প্রতিষেধক কার্যকরী প্রমাণিত হলেই বছরে প্রায় ১০ কোটি প্রতিষেধক উৎপাদনেও সক্ষম এই প্ল্যান্ট। উৎপাদনকারী সংস্থা দ্য ফোর্থ কনস্ট্রাকশান কো লিমিটেডের অধীনেই রয়েছে বিশ্বের বায়োম্যাডিকেল বাজারের ৮০ শতাংশ। তাদের তথ্য অনুযায়ী, তারা বিএসএল-৩ পদ্ধতিতে কাজ করতে সক্ষম। এর আগে এই পদ্ধতিতে কাজ হয়েছে সার্স ও মার্সের ক্ষেত্রেও।

১৯৫৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হেবেইর এই সংস্থা অ্যান্টিবডি, সেল থেরাপি এবং ইনসুলিন উৎপাদনের কাজ করে। এপ্রিল মাসে চিনের সিনোভেক বায়োটেক তাদের প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছে। যদি তারা সফল হয় তাহলে তারাও বিপুল পরিমাণ প্রতিষেধক উৎপাদন করতে পারবে। সিনোভেকও ফার্ম তৈরির জন্য ৭০ হাজার বর্গকিলোমিটার জমি নিয়ে রেখেছে বেজিং প্রশাসনের কাছ থেকে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ১১ মে এর তথ্য অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত ৮ টি প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। যার মধ্যে চারটি চিনের। আশার আলো দেখিয়ে ট্রায়ালের দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রবেশ করেছে অ্যাডিনোভাইরাস ভেক্টর। চিনের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের প্রধান ড. গাও ফু জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বরেই আসতে পারে করোনা প্রতিষেধক। যা প্রথমে স্বাস্থ্যকর্মীদের দেওয়া হবে। তবে ডব্লিউএইচও অবশ্য বলছে ভাইরাসের প্রতিষেধক বাজারে আসতে আরও অন্তত ১২ থেকে ১৮ মাস সময় লাগবে। কিংবা তা অধরাও থেকে যেতে পারে।

অন্যদিকে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপিকা সারাহ গিলবার্ট আশাবাদী যে যদি সব ঠিকঠাক যায় তাহলে তাদের ভ্যাকসিন সেপ্টেম্বরেই বাজারে আসবে। এবং তারা ৮০ শতাংশ আত্মবিশ্বাসী যে তাদের ভ্যাকসিন করোনা কাত করতে সক্ষম।


  • 269
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    269
    Shares

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.