সংবাদ শিরোনাম
তাহিরপুরের চাদাঁবাজ কাশেম ও ফয়সল গংদের গ্রেফতারের দাবীতে শ্রমিকদের মানববন্ধন   » «   গত ২৪ ঘন্টায় সিলেট বিভাগে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে ১৬২ জন।মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের  » «   ভ্যাট জটিলতার সমাধান না হলে সারাদেশে কিছু সময়ের জন্য ইন্টারনেট বন্ধ:আইএসপিএবি  » «   প্রবীণ সাংবাদিক নুরুল করিম মজুমদার করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু  » «   বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’দুই রোহিঙ্গা মাদককারবারী নিহত  » «   দ্বিতীয়বারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে বর্ষসেরা অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক  » «   বিএনপি উঠে দাঁড়াবে ফিনিক্স পাখির মতো এবং জয়ী হবে-ফখরুল  » «   করোনা:বিশ্বে এ পর্যন্ত ৫ লাখ ২৬ হাজার ৬৬৩ জনের মৃত্যু  » «   রাজপরিবার ছেড়ে স্বস্তিতে নেই হ্যারি-মেগান দম্পতি  » «   ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো ৫৫ জনের মৃত্যু:মোট ২০৫২জন  » «   জার্মানিতে আইনশাস্ত্রে সফলতার সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন সিলেটের রুবায়া  » «   আগামীকাল মঙ্গলবার সিলেট নগরীর যে সব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না  » «   জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ-হলিকোনা বাজারের রাস্তার বেহাল দশা দেখার কেউ নাই!!  » «   জগন্নাথপুরে আমজনতার উদাসীনতায় ক্রমে বাড়ছে করোনা পজেটিভ মোট আক্রান্ত ৯৩  » «   সীমান্ত এলাকায় অপরাধ রোধে জনসচেনতামূলক সভা  » «  

লিবিয়ায় নিহতদের মরদেহ বাংলাদেশে আনা যাবে না

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::লিবিয়ায় অপহরণকারীদের গুলিতে মারা যাওয়া বাংলাদেশিদের মরদেহ মিজদাতেই দাফন করা হবে বলে নিশ্চিত করেছে লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের দূতাবাস।

দূতাবাসের শ্রম বিষয়ক কাউন্সিলর আশরাফুল ইসলাম বিবিসি বাংলাকে জানান, নিহতদের পরিবারের সাথে আলোচনার মাধ্যমে মিজদা শহরেই মরদেহগুলো দাফনের প্রক্রিয়া চলছে। তিনি আরো বলেন, ‘লাশগুলো মিজদায় দাফন করা ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই। কাজেই এটা মেনে নিতেই হবে।’ মিজদার একটি হাসপাতালে বর্তমানে লাশগুলো রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এছাড়া যুদ্ধকবলিত এলাকা হওয়ায় এবং লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরের এলাকা হওয়ায় রাজধানী ত্রিপোলির সাথে মিজদা শহরের যোগাযোগের ব্যবস্থাও বেশ খারাপ বলে জানান আশরাফুল ইসলাম।

আর করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে সব ধরণের আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় লাশগুলো মিজদা শহর থেকে সরিয়ে নেয়া সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এসব প্রতিকূল পরিবেশের কারণে লাশ হস্তান্তর করার বা লাশ বাংলাদেশে পাঠানোর কোনো সুযোগ নেই বলেও জানান তিনি। তাই এ অবস্থায় এখানেই লাশগুলো দাফন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং নিহতদের পরিবারের সাথে কথা হচ্ছে বলেও জানান আশরাফুল।

বৃহস্পতিবার সকালে লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপলি থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণের মিজদা অঞ্চলে অপহরণকারীদের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশি নিহত হন। আহত হন আরো ১১ জন বাংলাদেশি। তারা সবাই অবৈধভাবে লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পারি দিয়ে ইতালি যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

এই মাসের মাঝামাঝি সময়ে বেনগাজি থেকে উপকূলবর্তী যুওয়ারা অঞ্চলে যাওয়ার পথে অপহরণকারীদের কবলে পড়েন তারা।

এরপর ২৮শে মে সকালে অপহরণকারীদের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জন মারা যায় বলে জানায় লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকার।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.