সংবাদ শিরোনাম
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের শনির হাওর থেকে এক নিখোঁজ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার  » «   জগন্নাথপুরে আরো ২জন মহিলা করোনায় পজেটিভ, মোট আক্রান্ত ৯৮: সুস্থ ৮৩  » «   জগন্নাথপুর ২য় দফা বন্যা,পানিবন্দী হাজার হাজার মানুষ  » «   সিলেটে ট্যাঙ্ক লরি শ্রমিক নেতা খুন  » «   সিলেটে বন্যা:দ্বিতীয় দফায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন অর্ধলক্ষাধিক মানুষ  » «   সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ৫৪ সেঃ মিটার ও ছাতকে ১৬৬ সেন্টিঃ উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে  » «   ইতালিফেরত ১৪৭ জন হজক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনে  » «   করোনা নিয়ে বাংলাদেশ থেকে আসা ব্যক্তি জ্বর-কাশি নিয়ে ইতালি ঘুরে বেড়ান!  » «   সাহারা খাতুনের মরদেহ আসছে, দাফন শনিবার  » «   খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিদেশেই বেশি প্রয়োজন: ফখরুল  » «   পাহাড়ি ঢলে গোয়াইনঘাটে তৃতীয় দফায় বন্যায় নিম্নঞ্চল প্লাবিত  » «   দিরাইয়ের ঘূর্নিঝড়ে ৯টি পরিবারের বসতঘড় লন্ডভন্ড,১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি  » «   জাফলংয়ে বাল্কহেডের ধাক্কায় বালুবোঝাই নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ ২  » «   আওয়ামী লীগকে বারবার ক্ষমতায় আনতেই এমন উদ্যোগ নেয় ইসি’  » «   একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির কার্যক্রম দ্রুত শুরু হবে’  » «  

জগন্নাথপুরে মানসিক রোগী দীর্ঘ এক বছর পর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফিরে পেল পরিবার

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের রসুলগঞ্জ বাজরে এক মানসিক রোগীকে দেখতে পায় বাজারবাসী। চুপচাপ বসে আছে সে। কারও সাথে কথা বলে না। কেউ কিছু জিজ্ঞাসা করলেও উত্তর দেয় না। তখন জগন্নাথপুর থানার কনস্টেবল আব্দুল হালিম বিষটি অবহিত করেন। থানা পুলিশের সহযোগীতায় দীর্ঘ এক বছর পর মানসিক রোগী খোঁজ পেল তার পরিবার। 

জানা যায়, উপজেলার পাটলি ইউনিয়নে রসুলগঞ্জ বাজার দীর্ঘ এক বছর ধরে নার্গিস আক্তার নামে এক মানসিক রোগী বাজারে বিভিন্ন গলিতে ভাসমান অবস্থায় থাকতো। জগনাথপুর থানার কনস্টেবল আব্দুল হালিম কর্মরত কাজে বাজারে গেলে এই মানসিক রোগী তাকে দেখতে পায়। তিনি তার নাম ঠিকানা সংগ্রহ করে তার নিজ গ্রাম আখাউড়া থানাতে যোগাযোগ করে মহিলা সন্ধান পান। পরে জানতে পারেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া থানার মনিঅন্দ গ্রামের দিনমজুর জহুর মিয়ার মেয়ে নার্গিস আক্তার নার্গিস আক্তারের বিয়ে হয়েছিল বাহ্মনবাড়িয়া জেলার আখাউড়া থানার কামাল মিয়ার সাথে নার্গিস আক্তারের এক ছেলের সবুজ এক মেয়ে জান্নাত। মানসিক রোগী নার্গিস আক্তারের সাত বছরের মেয়ে জান্নাত কে দেখে কোলে নিয়ে আদর করতে শুরু করেন। খুলে নিয়েই বলতে শুরু করেন মা তুমি কই ছিলে এতদিন তোকে খুঁজতে খুঁজতে আমি এই জায়গায়। খোঁজ পাওয়ার পর ৩১ মে বিকাল ৪টায় বাজারের জনসাধারণের সামনে কনস্টেবল আব্দুল হালিম মানসিক রোগী পিতার হাতে তুলে দেন। 

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানা অফিসার ইনচার্জ ইখতিয়ার চৌধুরী সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মানসিক রোগী নার্গিস আক্তারকে পিতার হাতে দেওয়া হয়েছে। কনস্টেবল আব্দুল হালিম প্রশংসার স্থান করে নিল। তিনি এর আগে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানা মানসিক রোগী এভাবে তার পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.