সংবাদ শিরোনাম
জঙ্গিদের টার্গেট ছিল হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার  » «   সিলেটে জঙ্গিদের ট্রেনিং সেন্টার সহ দুটি বাসায় অভিযান, বোমা তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার  » «   নগরীর মদিনা মার্কেট এলাকা থেকে ৪ অপহরণ ও চাঁদাবাজকারী আটক  » «   সুনামগঞ্জের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলাদা একটা দৃষ্টি আছে -পানি মন্ত্রনালয়ের সচিব   » «   জগন্নাথপুরে পুলিশ সদস্য সহ আরোও তিনজন করোনায় আক্রান্ত: মোট আক্রান্ত ১১৯  » «   জগন্নাথপুরে দুর্ধর্ষ চুরি নগদ ৬লক্ষ টাকা সহ ৪ভরি সোনা নিয়ে গেছে চোরেরা  » «   জগন্নাথপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কাপড়ের দোকানে ঢুকে পড়ল ট্রলি  » «   গোলাপগঞ্জে গাঁজাসহ এক তরুণীকে আটক  » «   নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিন আজ শেষ দিন:আগামী কাল থেকে বন্ধ  » «   এক অপরাধীর পরিবর্তে টাকার বিনিময়ে কারাগারে আরেক আসামী  » «   জগন্নাথপুরে সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ গ্রেফতার-৬  » «   ওসমানীনগরের বেগমপুর-জগন্নাথপুর সড়ক মরণ ফাঁদ:জনদুর্ভোগ চরমে  » «   কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত কুলাউড়ার যুবকের মৃত্যু  » «   দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারও সিলেট-লন্ডন রুটে সরাসরি বিমান চালু  » «   সিলেটে এমসি কলেজের ছাত্রীর আত্মহত্যা  » «  

করোনা:বাসা ভাড়া না দেওয়াতে ১৩৮ শিক্ষার্থীর সার্টিফিকেট, ল্যাপটপ, ট্রাঙ্ক ডাস্টবিনে

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::করোনায় সাধারণ ছুটি ঘোষণার কারণে ওরা হোস্টেল ও মেস ছেড়ে বাড়ি গিয়েছিল। এ কারণে তারা বাসা ভাড়া দিতে পারেনি। আর এই কারণে বাড়ির মালিক তাদের রুম থেকে সব মালামাল ময়লা ফেলার ডাস্টবিন ও বাড়ির নিচের গ্যারেজে ফেলে দেয়।

রাজধানীর কলাবাগানের ৪/এ, ওয়েস্ট অ্যান্ড স্ট্রিট (রুবী ভবন-কামরুন নাহার) ও পূর্ব রাজাবাজার এলাকার আলিফ হোস্টেলে গত বুধবার রাতে এমন ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে কলাবাগান থানায় দুইটি মামলা হয়েছে। এই দুই মামলায় পুলিশ বাড়ির মালিক মুজিবুল হক কাঞ্চন ও আলিফ হোস্টেলের মালিক সৈকতকে খুঁজছে।

ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী জানান, কলাবাগান থানাধীন ৪/এ, ওয়েস্ট অ্যান্ড স্ট্রিটের রুবী ভবনের একটি ফ্ল্যাটে ঢাকা কলেজের আট জন ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী থাকতেন। সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর তারা বাড়ি চলে যায়। বুধবার রাতে বাড়ি থেকে ফিরে দেখেন যে, বাড়ির মালিক ফ্ল্যাট থেকে সব জিনিসপত্র ফেলে দিয়েছে। তাদের এসএসসি ও এইচএসসির সনদ, মার্কশিট, ল্যাপটপসহ মূল্যবান জিনিস তারা খুঁজে পাচ্ছে না।

পরে বৃহস্পতিবার সকালে তারা গ্রিন রোডের একটি ডাস্টবিন থেকে কিছু জিনিস খুঁজে পায়। এ ঘটনায়র পর তারা কলাবাগান থানায় গিয়ে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে।

ভুক্তভোগী ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী সজীব বলেন, ঢাকা শহরের বাড়িওয়ালারা এমন অমানুষ হতে পারে আমার জানা ছিল না। শিক্ষাজীবনের অর্জনকৃত সনদগুলো সব ছুড়ে ফেলে দিয়েছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) নিউমার্কেট জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার বলেন, বাড়ির মালিককে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

অপর ঘটনা ঘটে পূর্ব রাজাবাজার এলাকার আলিফ হোস্টেলে। ঐ হোস্টেলে করোনার কারণে শিক্ষার্থীরা ভাড়া দিতে পারেননি। অনেক শিক্ষার্থী বাড়ি চলে গিয়েছে। এ অবস্থায় হোস্টেল মালিক সৈকত ও কেয়ারটেকার খোরশেদ বুধবার রাতে ১৩০ জন শিক্ষার্থীর মালামাল ফেলে দেন। শিক্ষার্থীদের ট্রাঙ্ক ও ভারী মালামাল হোস্টেলের গ্যারেজে ফেলে দেওয়া হয়। আর জামা পোশাক ও বইপত্র পান্থপথের একটি ডাস্টবিনে ফেলে দেয়। ঐ ডাস্টবিন থেকে শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার দুপুরে বেশ কিছু মালামাল উদ্ধার করে। ডাস্টবিনটি কলাবাগান থানা এলাকায় পড়েছে বলে ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী কলাবাগান থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.