সংবাদ শিরোনাম
প্রথমে ভুয়া সেনাবাহিনীর লোক পরিচয়ে জেল:এবার ইনাতগঞ্জে সিআইডি পরিচয়ে আটক  » «   গোলাপগঞ্জে ঘরের মধ্যে একটি বিষধর সাপের কামড়ে শিশুর মৃত্যু  » «   সৎ ও সুন্দর ভাবে ব্যবসা করলে জীবনে প্রতিষ্ঠাপাওয়া সম্ভব-মেয়র আরিফ   » «   জঙ্গিদের টার্গেট ছিল হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার  » «   সিলেটে জঙ্গিদের ট্রেনিং সেন্টার সহ দুটি বাসায় অভিযান, বোমা তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার  » «   নগরীর মদিনা মার্কেট এলাকা থেকে ৪ অপহরণ ও চাঁদাবাজকারী আটক  » «   সুনামগঞ্জের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলাদা একটা দৃষ্টি আছে -পানি মন্ত্রনালয়ের সচিব   » «   জগন্নাথপুরে পুলিশ সদস্য সহ আরোও তিনজন করোনায় আক্রান্ত: মোট আক্রান্ত ১১৯  » «   জগন্নাথপুরে দুর্ধর্ষ চুরি নগদ ৬লক্ষ টাকা সহ ৪ভরি সোনা নিয়ে গেছে চোরেরা  » «   জগন্নাথপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কাপড়ের দোকানে ঢুকে পড়ল ট্রলি  » «   গোলাপগঞ্জে গাঁজাসহ এক তরুণীকে আটক  » «   নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিন আজ শেষ দিন:আগামী কাল থেকে বন্ধ  » «   এক অপরাধীর পরিবর্তে টাকার বিনিময়ে কারাগারে আরেক আসামী  » «   জগন্নাথপুরে সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ গ্রেফতার-৬  » «   ওসমানীনগরের বেগমপুর-জগন্নাথপুর সড়ক মরণ ফাঁদ:জনদুর্ভোগ চরমে  » «  

বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর স্বাস্থ্য বিভাগের সেবাদানে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা

শিপন আহমদ,ওসমানীনগর::একজন স্বাস্থ্যকর্মী ছটফট করছেন। তার ছটফটানি দেখে চিকিৎসক ও সহকর্মীরা দিগবিদিগ ছোটাছুটি করছেন। আতঙ্কগ্রস্থ চিকিৎসকরা দ্রুত তাকে এ্যাম্বুলেন্সে তুলে সিলেটে প্রেরণ করেন। একজন স্বাস্থ্য কর্মীর এমন অবস্থা দেখে তার সহকর্মী ও চিকিৎসকদের মনে বিষাদের ছায়া। ৭জুলাই বেলা দেড়টার দিকে বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এমন চিত্র দেখা গেলো। জানা গেলো ওই নারী স্বাস্থ্যকর্মী একটি কমিউনিটি ক্লিনিকের হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি)। তার করোনা উপসর্গ রয়েছে। করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিতে তিনি হাসপাতালে এসেছিলেন তিনি কিন্তু হাসপাতালে তার অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত তাকে শহরের একটি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, করোনাকালে সেবা দিতে গিয়ে বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক ও স্টাফসহ এপর্যন্ত ৮জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেটি বালাগঞ্জ এবং ওসমানীনগর দুই উপজেলার সাধারণ মানুষদের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে। এমনিতেই উপজেলার স্বাস্থ্য বিভাগে জনবল সংকট। একের পর এক চিকিৎসক ও স্টাফরা করোনা আক্রান্ত হওয়ায় স্বল্প সংখ্যক জনবল নিয়ে তারা সেবাদানে হিমশিম খাচ্ছেন। এরমধ্যেও তারা হাসপাতালের আউটডোর-ইনডোরে রোগীদের সাধ্যমত সেবা দিচ্ছেন। ভর্তি থাকা রোগী ও তাদের স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সেবা পেতে কিংবা খাবার-দাবারে তাদের কোনো সমস্যা হচ্ছে না। দুতলার দক্ষিণ দিকে চোখে পড়লো প্রস্তুত করে রাখা আইসোলেশন ওয়ার্ড। তবে সেখানে কোনো রোগী ভর্তি নেই।

জানা গেছে, ১৯৬৮ সালে প্রতিষ্টিত ৩১ শয্যার বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মঞ্জুরীকৃত ১৯৯টি পদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো দির্ঘদিন ধরে শূন্য। বর্তমানে ৪জন চিকিৎসক ও ৫জন নার্স চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। অবিভক্ত বালাগঞ্জ উপজেলা থেকে ওসমানীনগর উপজেলা গঠিত হওয়ায় ওসমানীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এখনো বালাগঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগের অধিভুক্ত। বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ওসমানীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের বাড়তি দায়িত্ব পালন করছেন। ৭জুলাই পর্যন্ত বালাগঞ্জে ১৯০ জনের করোনা নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট এসেছে- ১৬৭ জনের, পজিটিভ-২১ জন, সুস্থ-১৪জন ও বর্তমানে আক্রান্ত-৭জন। একই তারিখ পর্যন্ত ওসমানীনগর উপজেলায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে- ৩০৪ জনের, রিপোর্ট এসেছে-২৪৭জনের, পজিটিভ-৪২জন, সুস্থ-৩৫জন, মারা গেছেন-৩জন ও বর্তমানে আক্রান্ত-৪জন।

বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: এস এম শাহরিয়ার বলেন, সিলেটের অন্যান্য উপজেলা হাসপাতালে সরকারি গাড়ি বরাদ্দ দেয়া হলেও আমরা কোনো গাড়ি পাইনি। এরপরও মানুষকে সেবা দিতে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। করোনার নমুনা পরীক্ষার ‘টেস্ট টিউবের’ অপ্রতুলতা থাকায় আমরা নিজ উদ্যোগে তা সংগ্রহ করে সাধারণ মানুষদের সেবাদানে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (অরএমও) ডা: মামুন আহমদ জানালেন, তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে কয়েক দিন ছুটি কাটানোর পর রোগীদের সেবা দিচ্ছেন। হাসপাতাল এলাকায় চিকিৎসকদের আবাসনের কোনো ব্যবস্থা নেই। পুরনো আবাসন ভবনগুলো পরিত্যক্ত ও জরাজীর্ণ। হাসপাতালের ছাদ ছুঁইয়ে মেঝতে পানি পড়ে। দির্ঘদিন ধরে জনবল সংকট, নেই পরিচ্ছন্নকর্মী। সেবাদানের স্বার্থে পকেটের টাকা দিয়ে মাসিক বেতনে পরিচ্ছন্নকর্মী রাখতে হচ্ছে। শত প্রতিকূলতার মাঝেও আমাদেরকে সেবা দিতে হচ্ছে। ডা: মামুন বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নির্মাণাধীন ভবনটি দেশের উপজেলা হাসপাতালগুলোর মধ্যে এটি প্রথম সাততলা বিশিষ্ট ভবন হিসিবে নির্মিত হচ্ছে। সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী সাহেব এই ভবনটির নির্মাণ কাজের তদারকি করছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.