সংবাদ শিরোনাম
জগন্নাথপুরে স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট বাস্তবায়ন কর্মশালা অনুষ্ঠিত  » «   সাংবাদিক বাবরকে হাত পা কেটে সুরমা নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হুমকি:থানায় জিডি  » «   এবার প্রবেশ করলো ‘বডি ওর্ন ক্যামেরা’ ট্রাফিক পুলিশের  » «   সুনামগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবকদলের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধাঁ  » «   বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে সুনামগঞ্জে স্বাস্থ্যকর্মীদের কর্মবিরতি পালন  » «   ৮ঘন্টায় এলব্রুস জয় করে রেকর্ড গড়লেন জগন্নাথপুরের ছেলে “আকি”  » «   জগন্নাথপুরে প্রায় ৫০ বছরের মুক্তিযোদ্ধে শহিদ হওয়া পরিবার সাহায্য থেকে বঞ্চিত  » «   কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নির্বাচন পরিচালনা কমিটিকে সমন জারী  » «   বিএনপি থেকে আবারও বহিস্কার হলেন আব্দাল  » «   দিরাইয়ের শ্যামারচরে ৩২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘর নিমার্ণ কাজের উদ্বোধন   » «   ক্লীন সিলেট ২ বছর মেয়াদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন সভাপতি শিরীন সম্পাদক মোহন  » «   দিরাই শাল্লা অনলাইন গ্রুফ এর পক্ষ থেকে ত্রান সামগ্রী বিতরন  » «   নিবন্ধনের আওতায় আরও ৫১টি অনলাইন নিউজ পোর্টালকে মনোনীত  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাব নির্বাচন:২টি প্যানেলভুক্ত ৪০টি একক মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ পার্থীদের  » «   ব্যবসার মাধ্যমেই একজন ব্যবসায়ী সমাজে প্রতিষ্ঠিত হতে পারে: মেয়র আরিফ  » «  

মাছে ক্ষতিকর রাসায়নিক দিলে ৭ বছরের কারাদণ্ড

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::মাছে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করে রপ্তানি বা অভ্যন্তরীণ বাজারে বিক্রি করলে সাত বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে সংসদে আজ ‘মৎস্য ও মৎস্যপণ্য (পরিদর্শন ও মান-নিয়ন্ত্রণ) বিল-২০২০ পাস হয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বিলটি সংসদে পাশের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়।

নিরাপদ মাছের উৎপাদন নিশ্চিত করতে মৎস্য খামারিদের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করার বিধানও বিলে রাখা হয়েছে।

মৎস্য পণ্যে ভেজাল দিলে বা খামারে নিষিদ্ধ ওষুধ ব্যবহার করলে অন্যূন দুই বছরের জেল এবং সর্বোচ্চ আট লাখ টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে খসড়া আইনে।

১৯৮৩ সালের এ সংক্রান্ত আইনটি রহিত করে বাংলায় নতুন আইন করতে বিলটি আনা হয়েছে। উচ্চ আদালতের নির্দেশনার আলোকে সামরিক শাসনামলের আইনগুলোকে নতুন করে বাংলায় করা হচ্ছে।

বিলে মৎস্যের সংজ্ঞায় বলা হয়েছে ‘সকল প্রকার কোমল ও কঠিন অস্থি বিশিষ্ট মৎস্য, সাদু ও লবণাক্ত পানির চিংড়ি, উভচর জলজপ্রাণী, কচ্ছপ, কুমির, কাঁকড়া জাতীয় প্রাণী, শামুক, ঝিনুক, ব্যাঙ এবং এসব জলজপ্রাণীর জীবন্ত কোষকে মৎস্য হিসেবে গণ্য করা হবে।’

পাস হওয়া বিলে মৎস্য ও মৎস্যপণ্যে ভেজাল, অপদ্রব্যের মিশ্রণ ও অনুপ্রবেশ করানো এবং ক্ষতিকারক রাসায়নিক নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিলটি পাস হওয়ায় এখন থেকে মৎস্য ও মৎস্যপণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানায় তাজা মাছ প্রক্রিয়া করতে হবে। পচা, দূষিত, ভেজাল ও অপদ্রব্য মিশ্রিত মৎস্য ও মৎস্যপণ্য বাজারজাত করা যাবে না।

আইন অমান্য করলে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, পরিদর্শক বা পরিদর্শনকারী কর্মকর্তা কোনো ব্যক্তিকে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত প্রশাসনিক জরিমানা করতে পারবেন।


  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.