সংবাদ শিরোনাম
নারী সব পারে:মাত্র দু’দিনে নাতনিকে কোলে নিয়ে নানী,হাতে কলম নিয়ে পরিক্ষায় সেই মা  » «   নগরীর ঘাসিটুলা মোকামবাড়ী এলাকা থেকে গাঁজার চালানসহ মাদক ব্যবসায়ি আটক  » «   জগন্নাথপুরে চোলাইমদ সহ আটক ১  » «   জগন্নাথপুর উপজেলা ও পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মীসভা অনুষ্টিত  » «   জগন্নাথপুরে মোটরসাইকেল এর সাথে এ কেমন শুত্রুতা: আগুনে পুড়িয়ে দিল দুবৃত্তরা !!  » «   ওসমানীনগরে শিশুর ঝুলন্ত লাশ নিয়ে রহস্য  » «   বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০ কোটি ছাড়িয়েছে  » «   যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম মুসলিম অ্যাটর্নি হচ্ছেন সায়মা  » «   ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে টিকাদান কর্মসূচি শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী  » «   শায়েস্তাগঞ্জে ঘরে ঢুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ  » «   ‘এক সময় পোশাক কেনার টাকা ছিল না’  » «   এসএসসির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ  » «   না ফেরার দেশে চলে গেলেন জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান বিজ্ঞানী প্রফেসর ড.শাহজাহান   » «   নগরীরতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে যে সব এলাকায়  » «   ওসমানীনগরে তিন চোরকে ধরে পুলিশে দিল ব্যবসায়ীরা  » «  

মোবাইল চুরির অপবাদে শিশু ছেলেকে নির্যাতন, জরিমানা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::দক্ষিণ সুরমা উপজেলার গোটাটিকরে রসমেলা ফ্যাক্টরিতে শাকিল আহমদ (১৩) নামের এক শিশু ছেলেকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে পুলিশ সুপার বরাবারে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। বুধবার (২ ডিসেম্বর) এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এতে শিশু নির্যাতনের অভিযোগ তুলে ধরে মোগলাবাজার থানার গোটাটিকর এলাকার রসমেলার সত্ত্বাধিকারী ফয়ছল, উস্তার মিয়া, তারেক, সুহেল, সেলিম ও শফিকের বিরুদ্ধে নির্যাতিত শিশুর মা হাছনা বেগম এই অভিযোগ দাখিল করেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, সংসারে অভাব অনটনের তাড়নায় পিতৃহারা শিশু শাকিলকে সিলেটের বিসিক শিল্প নগরী গোটাটিকর এলাকার রসমেলা ফ্যাক্টরিতে ৫ হাজার টাকা বেতনে চাকুরিতে দেন। গত ২৫ নভেম্বর সকাল ১১টার দিকে তার ছেলে শাকিলের বিরুদ্ধে মোবাইল চুরির মিথ্যা অপবাদ আনা হয়। এই মিথ্যা অভিযোগে রসমেলার সত্ত্বাধিকারী ফয়ছলের নেতৃত্বে অমানবিক নির্যাতন করা হয় শিশু ছেলেটিকে। এমনকি তারা নানা কুসংস্কারের আশ্রয় নিয়ে শাকিলকে মোবাইল চুর হিসেবে চিহ্নিত করতে চায়। সে সময় তারা তার মাকে ডেকে নিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে মোবাইল ফোন বাবৎ ৪০ হাজার টাকা প্রদান করার চাপ প্রয়োগ করে। এসময় তিনি ভয় পেয়ে তার বাসার মালিক কাবুল আহমদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ধার নিয়ে ছেলে শাকিলকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। উক্ত টাকা পাওয়ার পরও শাকিলের বেতন ৪ হাজার টাকা কর্তন করেও তারা আরো টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। বর্তমানে হাছনা বেগম ও তার ছেলে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছেন। ছেলে ও নিজের প্রাণ রক্ষার্থে হাছনা বেগম প্রশাসনের উর্ধ্বতন মহলের সহযোগিতা কামনা করেছেন। বিজ্ঞপ্তি


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.