সংবাদ শিরোনাম
শতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব স্যার সলিমুল্লাহ ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ প্রসঙ্গ -৭ম পর্ব  » «   জগন্নাথপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার আসামী গ্রেফতার  » «   সুনামগঞ্জে ৪৯ জন শিশুকে সংশোধনের জন্য কারাগারের পরিবর্তে বই দিয়ে পিতামাতার নিকট পাঠিয়েছে আদালত  » «   সারাদেশে টিকাদানের দায়িত্বে থাকছেন যারা  » «   প্রতারণার নতুন ফাঁদ ক্লিকেই আইডি হ্যাক  » «   ভিডিও গেমের নায়ক এবার সালমান শাহ  » «   জাফলংয়ের ডাউকি নদী থেকে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নেতার মরদেহ উদ্ধার, আটক ৩  » «   ৩১৩ দিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টাইগারদের জয়  » «   ট্রাম্প নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করবেন  » «   সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি  » «   জো বাইডেনের প্রশাসনে নান্দাইলের জাইন সিদ্দিকী  » «   করোনায় সর্বনিম্ন মৃত্যু  » «   সন্ত্রাস-বখাটে ও মাদক রুখতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন লামাপাড়া এলাকাবাসী  » «   দক্ষিণ সুরমায় তেলীবাজার থেকে শিলং তীরের ২ এজেন্ট গ্রেফতার  » «   নবীগঞ্জে পণ্যবাহী একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বসত ঘরে:মা মেয়ে আহত  » «  

স্কুল খুলে দিতে বলছে ইউনিসেফ

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে স্কুলের কার্যক্রম আরও এক বছর ব্যাহত হলে সে ক্ষতির ভার শিশুরা বইতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

হেনরিয়েটা ফোর বলেন, ‘আমরা যেহেতু কোভিড-১৯ মহামারির দ্বিতীয় বছরে প্রবেশ করেছি এবং বিশ্বজুড়ে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে, তাই স্কুলগুলো খোলা রাখতে বা পুনরায় খোলার পরিকল্পনায় অগ্রাধিকার দিতে কোনো প্রচেষ্টাই বাদ দেওয়া উচিত হবে না।’

ইউনিসেফ প্রধান জানান, শিশুদের ওপর স্কুল বন্ধের বিরূপ প্রভাবের বিষয়ে অভূতপূর্ব প্রমাণ এবং স্কুলগুলো মহামারির চালিকা শক্তি নয় বলে জোরালো নজির থাকা সত্ত্বেও অনেক দেশই স্কুলগুলো বন্ধ রেখেছে তাও প্রায় এক বছর ধরে।

তিনি জানান, মহামারির চূড়ান্ত পর্যায়ে লকডাউনের কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় বিশ্বব্যাপী ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী ক্ষতিগ্রস্ত হয়, যেখানে স্কুলগামী শিশুদের এক তৃতীয়াংশই দূরশিক্ষণ কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ পায়নি। ফলে স্কুলগুলো বন্ধ রাখায় তা বিপর্যয় নিয়ে এনেছে।

তিনি বলেন ‘স্কুলের বাইরে থাকা শিশুর সংখ্যা ২ কোটি ৪০ লাখ বৃদ্ধি পেতে চলেছে। এটি এমন মাত্রায় বাড়ছে যা আমরা বিগত অনেক বছরেও দেখিনি। অথচ এটি কাটিয়ে ওঠার জন্য আমরা কঠোর লড়াই করেছি। ’

হেনরিয়েটা ফোর উল্লেখ করেন যে শিশুদের পড়া, লেখা ও প্রাথমিক গাণিতিক সমস্যা সমাধানের দক্ষতা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং একবিংশ শতাব্দীর অর্থনীতিতে সাফল্য অর্জনে যে দক্ষতার প্রয়োজন তা হ্রাস পেয়েছে। তাদের স্বাস্থ্য, বিকাশ, নিরাপত্তা এবং সার্বিক কল্যাণের বিষয়টি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা শিশুদের ওপর ক্ষতির পরিমাণ হবে সর্বাধিক।

যদি আরও এক বছর শিশুদের স্কুল বন্ধ থাকার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয় তবে প্রজন্মান্তরে তার ফল ভোগ করতে হবে বলে সতর্ক করে দেন হেনরিয়েটা ফোর


  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.