সংবাদ শিরোনাম
নগরীর ঘাষিটুলা কলাপাড়া এলাকায় মা-ছেলের মৃত্যু  » «   দিরাইয়ের উদির হাওর বিলে বাধঁ দেয়া নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত,৪০ জন আহত  » «   রাষ্ট্র ধর্ম নিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর মন্তব্যের কড়া জবাব দিলেন সাঈদ খোকন  » «   শান্তিগঞ্জে জয়কলস গ্রামে প্রতিপক্ষের রামদার কোপে একজন নিহত,একজন আহত  » «   পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের এই বছরের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বাতিল  » «   সিলেটে দুই কেন্দ্রে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ৮ হাজার শিক্ষার্থী  » «   সিলেটে আজ মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা  » «   জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন স্ট্রং ক্লাইমেট ফাইটার- পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি  » «   অনুসন্ধান কল্যান সোসাইটি সিলেট এর সভা অনুষ্টিত  » «   কুমিল্লার ঘটনায় জকিগঞ্জে পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ জনতার সংঘর্ষ:পুলিশসহ অন্তত অর্ধশত আহত  » «   তৃতীয় ধাপে ইউপি ও পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় তিন মোটর সাইকেল আরোহী নিহত  » «   নগরীর বনকলাপাড়া এলাকায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগিয়ে এক তরুনের আত্মহত্যা  » «   শারদীয় দুর্গাপূজায় সিলেট বিভাগীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের শুভেচ্ছা  » «   সিলেট নগরীতে ছাত্রলীগের কমিটি প্রত্যাখান করে বিক্ষোভ মিছিল  » «  

সোবহানীঘাট মা ও শিশু হাসপতালে ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::সিলেট নগরীর সোবহানীঘাস্থ ‘সিলেট মা ও শিশু হাসপতালে ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এমন অভিযোগ করেন স্বজনরা।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে বিয়ানীবাজার উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের বাসিন্দা জাবেদ আহমদ তার চার মাস বয়সী শিশু আরিয়ান ভিষম খেলে নগরীর সোবহানীঘাটস্থ সিলেট মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

হাসপাতালে আসার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা শিশুটিকে আইসিইউতে নিয়ে যান। পরে তাদেরকে কর্তৃপক্ষ বারবার শিশু ভালো আছে বললেও বুধবার বিকেল ৫টার দিকে শিশু আরিয়ানকে ছাড়পত্র দেয়ার সময় শিশুটি মারা গেছে বলে জানানো হয়।

শিশু আরিয়ানের পিতা জাবেদ আহমদ শ্যামল সিলেটকে বলেন, ‘মঙ্গলবার দুপুরে আমার ছেলে ভিষম খায়।পরে আমরা তাকে নিয়ে সিলেট মা ও শিশু হাসপাতালে আসি। এখানে আসার পর চিকিৎসকরা তাকে আইসিইউতে নিয়ে রাখে। রাত ১০টার দিকে আমি আমার ছেলেকে দেখি। তার হাত-পা কালো হয়ে আসছে। কোনো নড়াচড়া নেই। তখন থেকে আমাদের মনে হয়েছে আমার ছেলে আর বেঁচে নেই। তারপরও আমরা চিকিৎসকদের জিজ্ঞেস করলে তারা বলেন,শিশু ভালো আছে কোনো সমস্যা নেই।’

তিনি বলেন, বুধবার সকালে আমরা তাদেরকে (চিকিৎসকদের) জানাই- আমরা ওসমানী হাসাপতাল চলে যাবো এখানে আমরা টাকা দিয়ে চিকিৎসা করাতে পারবো না। তবুও তারা বলে শিশু ভালো আছে, আপনারা কেন যাবেন? এভাবে দুপুর পর্যন্ত তারা আশ্বস্ত করেন একপর্যায়ে বিকেল ৫টার দিকে ছাড়পত্র দেয়ার সময় শিশুটি মারা গেছে বলে জানায়।

একপ্রশ্নের জবাবে জাবেদ বলেন, বিষয়টি তারা টাকা দিয়ে সমাধান করতে চেয়েছিল, আমরা তা মেনে নেইনি।আমার বাচ্চা মারা গেছে টাকা দিয়ে তো কিছু হবে না। আগে দাফন-কাপন করি। পরবর্তীতে আমরা যা করার করবো।

এ বিষয়ে জানতে সিলেট মা ও শিশু হাসপাতালের ম্যানেজার মুরশেদ আহমদকে শ্যামল সিলেটকে বলেন, ভর্তির শুরু থেকে রোগীর অবস্থা খারাপ ছিল। পরবর্তীতে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে চিকিৎসকরা তাদেরকে জানান রোগীর অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। তখন স্বজনরা বলেন আল্লাহ আল্লাহ করে বাড়িতে চলে যাবেন। বিকেল ৫ টার দিকে চিকিৎসক জানান রোগী মারা গেছে। বিষয়টি ভুল বোঝাবোঝি হয়েছে।এখন সমাধান হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.