সংবাদ শিরোনাম
এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «  

 মিশরে যৌন নির্যাতন চালাচ্ছে সেনা

21আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মিশরে দেশ জুড়ে অবাধ যৌন নির্যাতন চালাচ্ছে সরকারি নিরাপত্তা বাহিনী। মানসিক ও শারীরিক নিগ্রহের পাশাপাশি চলছে ধর্ষণ মানহানি এমনকী ব্ল্যাকমেলিংও। গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত মিশরের প্রথম প্রেসিডেন্টকে ২০১৩ সালে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকেই চলছে এই অরাজকতা।

 

মঙ্গলবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন ‘হিউম্যান রাইটস ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন। মুরসির মৃত্যুদন্ড ঘিরে ইতিমধ্যেই অশান্তি ছড়িয়েছে মিশরের একাংশে। তার পর এই অভিযোগ উঠে আসায় পিরামিডের দেশে অশান্তি এক অন্য মাত্রা নেবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

 

বছর দুয়েক আগেই মুরসিকে উৎখাত করে মিশরের সেনাবাহিনী। দেশের নয়া প্রেসিডেন্ট হন আবদেল ফাতাহ আল-সিসি। মুরসির বিরুদ্ধে সে বার ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ ওঠে। তার পদত্যাগ চেয়ে বিক্ষোভে সামিল হন দেশের একটা বড় অংশ। এ বার তার চেয়েও ভয়াবহ অভিযোগ উঠল খোদ আল-সিসির সেনার বিরুদ্ধেই।

 

কিন্তু কারা এই যৌন নির্যাতনের শিকার? সংগঠনটির দাবি, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্য থেকে শুরু করে স্কুলপড়–য়া ছাত্রী কেউই সেনার যৌনলিপ্সা থেকে রেহাই পাচ্ছে না। সরকারি তরফে অবশ্য এই অভিযোগ নিয়ে কোনও মতামত মেলেনি। মুখ খোলেননি ইরাকি সেনার মুখপাত্রও।

 

সংগঠনটির আরও অভিযোগ, আল-সিসি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মুসলিম ব্রাদারহুডের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করা শুরু করে কায়রো। সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার পাশাপাশি শুরু হয় ব্যাপক ধরপাকড় ও বিচার। গত দু’বছরে কয়েক হাজার ব্রাদারহুড কর্মীর মৃত্যুদন্ডের সাজা হয়েছে। জেলখানায় বন্দিদের উপর অকথ্য অত্যাচারের অভিযোগ মিলেছিল আগেই। এ বার সেনা-শাসনে অভিযোগ উঠল যৌন নির্যাতনের।

 

সংগঠনটির সভাপতি করিম লাহিদজি বলেন, ‘এতে অবশ্য তাজ্জব হওয়ার কিছু নেই। বিরোধীদের মুখ বন্ধ করতে বিশ্বের ইতিহাসে বরাবর এমনটাই ঘটে এসেছে। মিশরেও ঠিক তাই। ক্ষমতা হাতে পেয়েই দাঁত-মুখ বের করেছে দেশের সেনা।’সংগঠনটির দাবি, একাধিক নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলেছেন তারা। তাদের আরও অভিযোগ, সব জেনেও হাত গুটিয়ে প্রশাসন।

 

 

 

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.