সংবাদ শিরোনাম
দোয়ারাবাজারে মাদক সেবনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৪ জনের সাজা  » «   বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন  » «   দোয়ারাবাজারে কেন্দ্র ফি’র নামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়  » «   তাহিরপুরে বিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব দিতে প্রধান শিক্ষকের টালবাহানা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি ভাতা দেওয়ার নামে প্রতারণা, প্রতারককে জরিমানা  » «   মৌলভীবাজারের জুড়িতে ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ দুইজন গ্রেফতার  » «   দোয়ারাবাজারে বিদেশী মদের চালানসহ মাদক কারবারি আটক  » «   সুনামগঞ্জের তিন উপজেলার ১৫টি স্পটে চলছে সহশ্রাধিক অবৈধ ক্রাশার মেশিনের তান্ডব  » «   সুনামগঞ্জে পিতা ও কন্যার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া আমাদের মধ্যে আর নেই! রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন  » «   জুড়ীতে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ১  » «   ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ?প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত   » «  

চুরি ঠেকানোর দায়িত্ব পেল চোর

55সিলেট পোষ্ট রিপোর্ট  :   শেয়ালের কাছে মুরগি বন্ধক দেয়ার মতো বিষয়টা। তার দায়িত্ব ছিল চুরি ঠেকানো। কিন্তু তিনি নিজেই তা করেছেন বেশ দক্ষতায়। এমন ঘটনাই ঘটেছে। নিরাপত্তাকর্মীর দায়িত্বে থাকা এক ব্যক্তিকে এক হাজার ডিমসহ আটক করা হয়েছে।

 

এক বছর ধরে তিনি ডিমগুলো তার কর্মস্থল খাবার কারখানা থেকে সরিয়েছেন। আর তিনি নিজে স্বীকার করেছেন, তার বাসায় যা কিছু আছে, সবাই চোরাই মাল।

 

ঘটনাটি ঘটেছে চীনের পিনঝু সিটিতে। তার পারিবারিক নাম গু। ২ স্যুটকেসভর্তি মালামাল চুরি করার সময় তাকে প্রথম ধরা হয়। তখনো কেউ অনুমান করতে পারেনি, তার বাসার ফ্রিজে সহস্ত্রাধিক চোরাই ডিম পাওয়া যাবে।

 

তার বাড়িতে তল্লাসি চালিয়ে গোশত, সাবান, টিস্যু বাক্স, ডিটারজেন্ট বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। চাপের মুখে তিনি স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন, ‘আসলেই ডিম খুব ভালোবাসেন’ বলেই চুরি করেছেন। তিনি আবার প্রতিটি ডিমের মধ্যে ব্যবহারের শেষ তারিখও মনোযোগ দিয়ে লিখে রেখেছেন।

 

তিনি জানান, তিনি কতবার চুরি করেছেন, তা ভুলেই গেছেন। সম্ভবত শত বার। তিনি বলেন, ‘আমার বাড়ির সবকিছুই চোরাই মাল।’

 

কারখানার এক মুখপাত্র বলেন, ‘নিরাপত্তা প্রহরী যে এ কাজ করতে পারে, আমরা কেউ ঘূর্ণাক্ষরেও বুঝতে পারিনি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করতাম, সে খুবই পরিশ্রমী ও কর্তব্যপরায়ণ লোক। পরিবারে কেউ নেই বলে সে রাতের পালায় কাজ করতে আগ্রহী থাকত।’

 

তিনি বলেন, এখন আমরা বুঝতে পারছি, সে এমনটা করত যাতে সে কারো সন্দেহ ছাড়াই যেখানে খুশি যেতে পারে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.