সংবাদ শিরোনাম
এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «  

বিমান আছে, মালিক নেই; নিজের দাবি করতে পারেন আপনিও

011সিলেটপোস্ট রিপোর্ট :মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের নিখোঁজ ফ্লাইট এমএইচ ৩৭০ এর হদিস মেলেনি আজো। তবে মালয়েশিয়ান বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এবার বিপরীত একটি সমস্যায় পড়েছে।

দেশটির প্রধান বিমানবন্দরে বোয়িং ৭৪৭ মডেলের তিনটি বিমান পড়ে আছে, যার মালিক খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পরিচালনাকারী কর্তৃপক্ষ মালয়েশিয়ান সংবাদপত্রে অদ্ভূত এক বিজ্ঞাপন দিয়েছে। তারা ৭৪৭-২০০এফ মডেলের তিনটি উড়োজাহাজের মালিকের সন্ধান চায়।

‘আপনি যদি এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ১৪ দিনের মধ্যে বিমানগুলো সংগ্রহ করতে সক্ষম না হন, তবে (মালয়েশিয়ার আইন অনুসারে) এসব বিমান বিক্রি করার অথবা সরিয়ে নেয়ার অধিকার আমাদের আছে,’ বলা হয় দ্য স্টার পত্রিকার বিজ্ঞাপনে।

বিমানবন্দরটি পরিচালনাকারী মালয়েশিয়ান এয়ারপোর্টসের মহাব্যবস্থাপক জয়নল মোহাম্মাদ ইসা বলেন, তারা এখন বিমানগুলোর সর্বশেষ যে মালিকের নাম পাওয়া যাচ্ছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন।

তিনি জানান, তারা মালয়েশিয়ান নয়, আন্তর্জাতিক। তবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে অস্বীকৃতি জানান তিনি।

‘আমি জানি না তারা কেন জবাব দিচ্ছে না, অনেক কারণ হতে পারে। কখনো কখনো এমন হয় যে, (এসব বিমান) পরিচালনা অব্যাহত রাখার অর্থ তাদের নেই,’ বলেন জয়নল।

এসব বিমানের মালিকানা দাবি ছাড়াও বিজ্ঞাপনে সংশ্লিষ্ট মালিকের কাছ থেকে ল্যান্ডিং, পার্কিং এবং অন্যান্য মাশুল দাবি করা হয়েছে। ২১ ডিসেম্বরের মধ্যে পাওনা পরিশোধ করা না হলে বকেয়া পাওনা আদায় করার জন্য বিমানগুলো নিলামে তোলা হবে অথবা স্ক্র্যাপের জন্য বিক্রি করা হবে। এর মাঝে দুটি যাত্রীবাহী বিমান এবং অন্যটি কার্গো প্লেন।

জয়নল বলেন, এই বিমানবন্দরে এ ধরণের ঘটনা আগেও ঘটেছে। গত এক দশকে আরো কিছু বিমান পরিত্যক্ত ছিল, যাদের বেশিরভাগই ছোট উড়োজাহাজ।

তিনি জানান,  ৯০এর দশকে একটি উড়োজাহাজ ফেলে রাখা হলে শেষ পর্যন্ত সেটিকে বিক্রি করে দেয়া হয় এবং কুয়ালালামপুরের একটি শহরতলিতে সেটিকে রেস্তোরাঁয় রূপান্তর করা হয়।

গত বছরের ৮ মার্চ মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ বিমানটি ২৩৯ জন যাত্রী ও ক্রুসহ নিখোঁজ হয়। এর হদিস এখনো পাওয়া যায়নি। বিমান শিল্পের ইতিহাসে এটা সবচেয়ে রহস্যজনক ঘটনা।

সূত্র: এএফপি

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.