সংবাদ শিরোনাম
আউশকান্দিতে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে আগ্নেয়াস্ত্র সহ ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ  » «   আওয়ামীলীগের লুটপাটের কারনে দেশে দুর্ভিক্ষ চলছে-সিলেট মহানগর বিএনপি  » «   এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «  

বিভাগীয় সরকার ব্যবস্থা চালুর দাবীতে অর্থমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান

সিলেটপোস্ট রিপোBivagia Sorker Photo 09.12.15র্ট : স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা আরো কার্যকর করতে সিলেট সহ সকল বিভাগে সুশাসন, সুবিচার ও উন্নয়নার্থে নিজ শাসিত ও উন্নীত এবং ঘুষ, দুর্নীতি বেকারত্ব ও দারিদ্রমুক্ত একটি উন্নত ও সুখী শান্তিময় বিভাগীয় ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সিলেট বিভাগীয় সরকার ব্যবস্থা বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান চৌধুরী এডভোকেটের নেতৃত্বে মঙ্গলবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি’র কাছে ২১ দফা দাবী সম্বলিত একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব আখলাক আহমদ চৌধুরী, এডভোকেট চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ, এডভোকেট শামীম হাসান চৌধুরী, দেওয়ান মসুদ রাজা চৌধুরী, এডভোকেট শরীফুল হুদা চৌধুরী প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বহু ত্যাগের মাধ্যমে অর্জিত আমাদের সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশের জনগণ আজ বিভিন্ন ভাবে অবহেলিত নির্যাতিত, নিপীড়িত হচ্ছেন। দেশের মালিক জনগণ, তাদের প্রত্যক্ষ ভোটে জনপ্রতিনিধি ও নেতা নির্বাচিত হন এবং খাজনা টেক্স সহ সম্পদ প্রদান করেন, যাতে নেতারা তাদেরই প্রার্থীত জনসেবার লক্ষ্যে দেশের সংবিধান রচনা এবং প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়ন করে রাষ্ট্রের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে পারেন। কিন্তু ভোটের পর নেতারা জনগণকে বেমালুম ভুলে গিয়ে নিজের আখের গোছাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এতে করে সমাজ, দেশ ও রাষ্ট্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
সুষ্ঠু রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সৃষ্ট যোগ্য নেতারাই দেশপ্রেম ও জনসেবার আদর্শে উদ্ভুদ্ধ হয়ে মানব সম্পদসহ দেশের সম্পদের সদ্ব্যবহার করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যান। দেশ পরিচালনার ও উন্নয়নের এ ব্যবস্থা/নীতিকেই গণতান্ত্রিক রাজনীতি বলে যাতে দেশ পরিচালনা ও উন্নয়নে জনগণ প্রদত্ত ক্ষমতা ও সম্পদ স্থানীয় সরকার পর্যন্ত বিকেন্দ্রিকৃত হয়ে দেশের মালিক জনগণের সম্পৃক্ততায় দেশের সর্বত্র সুশাসন সুবিচার এবং দ্রুত সুসম উন্নয়নের মাধ্যমে বেকারত্ব ও দারিদ্রতা দূর হয়ে বহু ত্যাগের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র সফল হয়। কিন্তু আমাদের স্বার্থান্বেষী নেতাগণ জনপ্রত্যাশা এবং নিজেদেরই ওয়াদা মতে জনসেবা/ দেশসেবার কাজ না করায় জনগণ আজ হতাশ। নেতাগণ জনগণকে তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন না করে দেশের উন্নয়নে জনগণ প্রদত্ত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ও সম্পদ স্থায়ী ভাবে কুক্ষিগত রাখতে দেশে মারামারির, জমিদারী ব্যবসার ন্যায় ব্যক্তিকেন্দ্রিক রাজনৈতিক দল গঠন করেন। নেতারা আবেগময় ও মুখরোচক শ্লোগান, কালো টাকা ও সন্ত্রাসের মাধ্যমে স্বার্থান্বেষি কিছু ছাত্র ও যুবকদের অপব্যবহার করে দেশে গণতন্ত্রের পরিবর্তে এক নেতা এক দেশ রাজনীতি করছেন। মনে রাখতে হবে, মুক্তিযুদ্ধ শেষ হলেও মুক্তি-স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের বড় বাধা ঘুষ, দুর্নীতি-বেকারত্ব, দারিদ্রতা ও সন্ত্রাসের উৎস বর্তমানে এক ও ব্যক্তি কেন্দ্রিক স্বৈরতান্ত্রিক দেশ পরিচালনার পরিবর্তের দেশের সর্বত্র ঘুষ-দুর্নীতি মুক্ত জনগণের শাসন ও উন্নয়ন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে।
সিলেটপোস্ট২৪ডটকম/ফয়ছল আহমদ/০৯.১২.২০১৫

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.